• সোমবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চার পা বিশিষ্ট কন্যা শিশুর জন্ম!

  এম আনোয়ার হোসেন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম)

১৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭:০১

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে চার পা বিশিষ্ট কন্যা শিশুর জন্ম দিয়েছেন গৃহবধূ নাছরিন আক্তার। উপজেলার বারইয়ারহাট পৌরসভার শেফা ইনসান হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে আজ মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) ভোররাতে শিশুটির জন্ম হয়।

ওই গৃহবধূ ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানার ১নং বাগানবাজার ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের হাতির খেদা গ্রামের নিজাম উদ্দিনের বাড়ির সাইদুল ইসলামের স্ত্রী।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার রাত ২টার দিকে গৃহবধূ নাছরিন আক্তার (১৮) প্রসব বেদনা নিয়ে হাসপাতালে ২০৪নং কেবিনে ভর্তি হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্বাভাবিকভাবে মঙ্গলবার ভোর ৫টার সময় হাসপাতালের প্রসূতি ও স্ত্রী রোগে অভিজ্ঞ ডা. মারিয়া কিবতিয়ার তত্বাবধানে ওই গৃহবধূর চার পা বিশিষ্ট কন্যা শিশুর জন্ম হয়।

শিশুটির চার পায়ের মধ্যে দুটি পা ক্লাব ফুট (মুগর পা) এবং বাকি দুটি পা অস্বাভাবিক এবং মেরুদণ্ড মেনিগোসিল। শিশুটির ওজন দুই কেজি ৮’শ গ্রাম। শিশুটির মা পুরোপুরি সুস্থ হলেও শিশুর সামান্য শ্বাসকষ্ট রয়েছে।

গৃহবধূর স্বামী সাইদুল ইসলাম বলেন, ২০২০ সালের ১১ মার্চ ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানার ১নং বাগানবাজার ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের হাতির খেদা গ্রামের হানিফ হানিফ কোম্পানির ছোট মেয়ে নাছরিন আক্তারের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই। একই বছর বিবাহের ৯ মাসের সময় একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেয় আমার স্ত্রী। কিন্তু সেই শিশুটি ডেলিভারির সময় মারা যায়। এরপর ২ বছরের ব্যবধানে বারইয়ারহাট শেফা ইনসান এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) ভোরে দ্বিতীয় শিশুর (কন্যা) জন্ম হয়। তবে স্বাভাবিকভাবে চার পা বিশিষ্ট শিশুটির জন্ম হয়।

তিনি আরও বলেন, সন্তান জন্মগ্রহণের পর যে কোনো বাবার মুখে হাসি ফুটে। কিন্তু আমার এবং পরিবার ও আত্মীয়স্বজন সবার মাঝে দুশ্চিন্তার ছাপ এই অস্বাভাবিক কন্যা সন্তান নিয়ে। আমি ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। তাতে পরিবার নিয়ে চলাও কষ্টকর হয়ে যায়। কিন্তু এখন আমি হতাশার মধ্যে আছি আমার কন্যা সন্তানের চিকিৎসা ব্যয় নিয়ে। তার উন্নত চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন পড়বে।

শেফা ইনসান হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্রসূতি ও স্ত্রী রোগে অভিজ্ঞ ডা. মারিয়া কিবতিয়া বলেন, সোমবার রাত ২টার দিকে গৃহবধূ নাছরিন আক্তার প্রসব বেদনা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্বাভাবিকভাবে মঙ্গলবার ভোর ৫টার সময় ওই গৃহবধূর চার পা বিশিষ্ট কন্যা শিশুর জন্ম হয়।

শেফা ইনসান হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নবজাতক ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এস এ ফারুক বলেন. এটি আমার চিকিৎসা জীবনে একটি বিরল ঘটনা, যা আগে আমি কখনো দেখিনি। ৪ পা বিশিষ্ট শিশুটির স্বাভাবিকভাবে জন্ম হয়। তবে ৪ পায়ের মধ্যে ২টি পা ক্লাব ফুট (মুগর পা) এবং বাকি ২টি পা অস্বাভাবিক এবং মেরুদণ্ড মেনিগোসিল। শিশুটির ওজন ২ কেজি ৮’শ গ্রাম। শিশুটির মা পুরোপুরি সুস্থ হলেও শিশুর সামান্য শ্বাসকষ্ট রয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড