• মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯  |   ১৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বৃদ্ধকে পাঁচ বিয়ে করিয়ে ১৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারকরা!

কখনো হয়নি ফুলশয্যাও

  মো. রেজোয়ান ইসলাম, নীলফামারী

২৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৪৮
বৃদ্ধকে পাঁচ বিয়ে করিয়ে ১৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারকরা!
নববধূ ও ভুক্তভোগী বৃদ্ধ (ছবি : অধিকার)

বিপত্নীক অনিল চন্দ্র রায়কে (৬৫) তিন বছরের মধ্যে পাঁচটি বিয়ে দিয়ে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি প্রতারক চক্র। সাজানো বিয়ের পরের দিনেই নববধূরা বাড়ি থেকে কাপর, সোনাদানা আর অর্থ হাতিয়ে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান। এমনকি হয়নি বৃদ্ধের ফুলশয্যাও। প্রতারক চক্রটি পাতানো বিয়ে দিয়ে আবার বিচ্ছেদ ঘটিয়ে ভুক্তভোগী বৃদ্ধের ১৪/১৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবারটি। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে নীলফামারীর ডোমার উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়নের কোর্টপাড়া এলাকায়।

গতকাল শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) সকালে নিজ বাড়িতে প্রতারিত বৃদ্ধ ও তার তিন ছেলে প্রতারক চক্রের হাত থেকে রক্ষা পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এ সময় পড়শীরাও উপস্থিত ছিলেন সংবাদ সম্মেলনে।

লিখিত বক্তব্যে অনিল চন্দ্র রায় বলেন, পাঁচ বছর পূর্বে আমার স্ত্রী মারা যায়। স্ত্রীর মৃত্যুতে আমি মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়ি। এতে এলাকার প্রতারক চক্রের সদস্য বাবুল (হাঁস বাবুল), সবুজ, আ: লতিফ, কালিপদ, রমজান আলী জ্বিন, হব্বু আমাকে বিভিন্ন প্রলোভনে খানসামা, গড়েয়া, মাড়েয়া, মিরগঞ্জ এলাকার মহিলাদের সাথে একে একে পাঁচটি বিয়ে দিয়েছে। আমি ওইসব মহিলাদের বাড়ী ঘর দেখিনি এবং কি নাম পর্যন্ত জানি না। তারা হাট বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে আমাকে নিয়ে গিয়ে মহিলাদের দেখিয়ে কাগজে সই করে বিয়ে দিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেন। বিয়ের পর নববধূকে বাড়ীতে নিয়ে আসলে শুধুমাত্র রাতে নববধূ বাড়িতে থেকে পরের দিন সকালেই টাকা, কাপড় ও সোনাদানা নিয়ে প্রতারক চক্রদের সহযোগিতায় গোপনে পালিয়ে যায়। পালিয়ে যাওয়ার কয়েকদিন পর প্রতারক চক্রের সদস্য হাঁস বাবুল, আ: লতিফ ফোন করে টাকা দাবী করে। আমাকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রায় ১৪/১৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক চক্রটি। এখন তারা আবারো আমার কাছে ঐ সব মহিলাদের সাথে ডিভোর্সের কথা বলে টাকা দাবী করছেন। টাকা না দিলে র্যাব, পুলিশ দিয়ে তুলে নিয়ে ক্রস ফায়ারে দেওয়ারে হুমকিসহ কোর্টে মামলা দেওয়ারও ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। সর্বশেষ ঠাকুরগাঁও জেলার এক মহিলাকে সাথে নিয়ে আমার কাছে ছয় লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করেন তারা। আমি ওই চক্রের কবল থেকে রক্ষা পেতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে সহযোগিতা চাই।

হরিণচড়া ইউপি চেয়ারম্যান রাসেল রানা দৈনিক অধিকারকে বলেন, বিষয়টি শুনেছি। এলাকার একটি প্রতারক চক্র নানান ভাবে মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে। বিষয়টির ব্যপারে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অনিল চন্দ্র রায় খুব সহজ সরল মানুষ। গত পাঁচ বছর আগে তার স্ত্রী মারা যাওয়ার পর প্রতারক চক্রটি তাকে ফুঁসলিয়ে ফাঁদে ফেলে তিন বছরে পাঁচটি বিয়ে দেয়। এতে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রটি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড