• শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গ্রাহকদের অর্ধকোটি টাকা নিয়ে উধাও উদয়ন ফাউন্ডেশন

  মো. মাহাবুবুর রহমান রানা, সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ)

০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:৫০
গ্রাহকদের অর্ধকোটি টাকা নিয়ে উধাও উদয়ন ফাউন্ডেশন

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলায় প্রায় তিন শতাধিক গ্রাহকের আমানতের প্রায় অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে উদয়ন ফাউন্ডেশন নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান (এনজিও) উধাও হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

প্রতিদিন গ্রাহকের আমানত ফেরত পেতে ভিড় করছে ওই অফিসের সামনে।

স্থানীয় লোকজনের কাছে জানা যায় তারা দুই সপ্তাহ আগে সাটুরিয়া উপজেলার উত্তর কাওন্নারা এলাকায় একটি বাসা-বাড়িতে অফিস ভাড়া নিয়ে কার্যক্রম শুরু করেছিল। তারা অফিসে না বসেই তারা সাটুরিয়া ও ধামরাইয়ের বিভিন্ন হাট বাজার ও বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঋণ দেওয়ার কথা বলে সঞ্চয় উত্তোলন করেন। ২০ হাজার টাকা সঞ্চয় জমা হলে ওই গ্রাহককে দুই লাখ টাকা ঋণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

উপজেলার বালিয়াটি বাজারের ব্যবসায়ী পলাশ জানান,উদয়ন ফাউন্ডেশন নামে একটি এনজিও প্রতিষ্ঠান তাদের ঋণ দেবে বলে তাদেরকে ২০ হাজার টাকা সঞ্চয় দেয়, সঞ্চয় জমা দেওয়ার এক সপ্তাহ পর ঋণ দেবে কিন্তু এক সপ্তাহ পর অফিসে ঋণের জন্য গেলে জানতে পারে তারা অফিস গুটিয়ে চলে গেছে।

খলিলাবাদ গ্রামের ব্যবসায়ী শামীম হোসেন জানায়, দ্রুত সময়ে ঋণ পাওয়ার আশায় তাদের ২০ হাজার টাকা সঞ্চয় দেয়। এক সপ্তাহ পর ঋণ দেবে এ কথা বলে সঞ্চয় নিয়েছে তারা।ঋণের জন্য এক সপ্তাহ পর অফিসে গেলে অফিসে তালা ঝুলতে দেখা যায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ধামরাইয়ে কাওয়ালীপাড়া বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান,সঞ্চয় নেওয়ার সময় তারা কোনো পাশ বহি: আমাদের দেয়নি। তারা উদয়ন ফাউন্ডেশনের একটি সীটে সঞ্চয় উত্তোলন করে।সঞ্চয় নেওয়ার সময় প্রতি গ্রাহককে একটি কার্ড ইস্যু করে তারা। ঋণ দেওয়ার সময় পাশবই দেওয়া হবে বলে জানায়। ঋণ আনতে গেলে তারা পালিয়েছে বলে স্থানীয়রা জানায়।এমনকি তাদের মোবাইল নম্বরও বন্ধ রয়েছে।

উত্তর কাওন্নারার স্থানীয় চাঁনমিয়া জানান, এক সপ্তাহ আগে তারা মো. ফজলুর রহমানের বাড়িতে অফিস ভাড়া নেন। এ অফিসে বসে কয়েকদিন কার্যক্রম চালিয়েছেন। পরে জানতে পারি তারা নাকি অনেক টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে। প্রতিদিনই মানুষজন এসে ভিড় করছে তাদের আমানত ফেরত পাওয়ার আশায়।

বাড়ির মালিক মো. ফজলুর রহমান বলেন, গত নভেম্বর মাসের ২০ তারিখে এসে আমার বাড়ির দুতলায় একটি রুম ভাড়া নেওয়ার কথা বলে। এ কথা বলে কিছু ফার্নিচার আনেন। ডিসেম্বর মাসের ১ তারিখ থেকে ভাড়া চলবে। ভাড়া দেওয়ার আগে তাদের কাছে তাদের পরিচয়পত্র ও এনজিওর নথিপত্র চাওয়া হয়। কিন্তু অফিসে উঠার আগেই তারা মানুষের কাছ থেকে সঞ্চয়ের নামে টাকা নিয়ে ছটকে পরে।

উত্তর কাওন্নারার আব্দুল কাদের জানান, উদয়ন ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা ছোট ছোট বাজারের ব্যবসায়ীদের টার্গেট করে ঋণ দেওয়ার লোভ দেখিয়ে মোটা অংকের সঞ্চয় উত্তোলন করে। গ্রামগঞ্জের ছোট ব্যবসায়ীরা তাদের ফাঁদে পরে সর্বস্ব খুঁইয়েছেন।

উদয়ন ফাউন্ডেশনের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার মো. সায়েম প্রামনিককের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড