• সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গৃহকর্তাকে বেঁধে সর্বস্ব লুট করে শ্রীঘরে আট ডাকাত

  আবিদ মাহমুদ, রাউজান (চট্টগ্রাম)

২৩ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৪৯
গৃহকর্তাকে বেঁধে সর্বস্ব লুট করে শ্রীঘরে আট ডাকাত
গ্রেফতারকৃত আসামিরা (ছবি : অধিকার)

চট্টগ্রামের রাউজানে দুবাই প্রবাসী মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরীর বাড়িতে তার ‘বাবাকে ছুরির মুখে জিম্মি করে’ ৭০ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ অর্থ লুটে নেয় ডাকাত দলের একটি চক্র। এরপর সেই চক্রের সকলে লুটে নেওয়া স্বর্ণ ও টাকা ভাগাভাগি করে আপন মনে দিনযাপন করতে থাকে।

যদিও ঘটনার ২৩ দিন পর ওই ডাকাত চক্রের সাত সদস্যকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। একই সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়- তাদের লুটে নেওয়া স্বর্ণালংকারগুলোর ক্রেতা এক জুয়েলারি দোকানিকেও।

গতকাল মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) সকালে নগরের চান্দগাঁও ক্যাম্পে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‍্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এম এ ইউসুফ।

এর আগে গত সোমবার (২১ নভেম্বর) বিকালে রাউজান ও হাটহাজারী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৪৬ ভরি স্বর্ণালংকার এবং স্বর্ণ বিক্রির ৩০ লাখ এক হাজার ছয়শ টাকা উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মুসা, সাইদুল ইসলাম প্রকাশ সাইফুল, খোরশেদুল আলম, সাজ্জাদ হোসেন, মো. বাপ্পি, সজল শীল, মো. ইদ্রিস প্রকাশ কাজল এবং জুয়েলারি দোকানি বিপ্লব চন্দ্র সাহা।

র‍্যাব জানায়, মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরী (৩৫) একজন প্রবাসী এবং রেমিট্যান্স যোদ্ধা। তিনি গত ২৭ অক্টোবর দুবাই থেকে বাংলাদেশে আসেন। পরের দিন ২৮ অক্টোবর দিবাগত রাতে সরোয়ার তার মামাতো বোনের বিয়ে উপলক্ষে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মামার বাড়ি যান। ওই সময় ঘরে তার বৃদ্ধ বাবা ছাড়া আর কেউ ছিলেন না। সেই সুযোগে রাতে একদল ডাকাত সরোয়ারের পাকা ঘরের পিছনের লোহার জানালার গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে এবং তার বৃদ্ধা বাবাকে কম্বল দিয়ে চেপে ধরে চোখ-মুখ ও হাত-পা বেঁধে গলায় ছুরি ধরে হত্যার ভয় দেখিয়ে আলমারির চাবি নিয়ে নেয়।

এ সময় আলমারিতে থাকা সরোয়ারের স্ত্রীর, মা-বোন ও আত্মীয়স্বজনদের আমানত হিসেবে রাখা মোট ৭০ ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায় ডাকাতরা। এছাড়াও ওই চক্রের সদস্যরা সরোয়ারের মামাতো বোনের বিয়ের জন্য ঘরে রাখা পাঁচ লক্ষ টাকা, পাঁচটি দামি মোবাইল সেট ও একটি ট্যাব নিয়ে যায়।

পরে ৯ নভেম্বর এ ঘটনায় মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরী বাদী হয়ে রাউজান থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেন। বিষয়টি অবহিত করা হয় র‍্যাবকেও। সেই থেকে মূল আসামিদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার ও গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রেখে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের অবস্থান শনাক্ত করে। পরে সোমবার (২১ নভেম্বর) বিকালে চট্টগ্রামের রাউজানের দক্ষিণ গহিরা সিবের ঘাট এলাকার একটি বাড়ি থেকে মো. মুসা নামে এক ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়।

র‍্যাব আরও জানায়, মুসার দেওয়া তথ্য মতে- একই দিনে উপজেলার গহিরার উত্তর-পূর্ব কোতোয়ালী ঘোনার দলই নগরস্থ একটি বাড়ি থেকে ডাকাত দলের আরেক সদস্য সাইদুল ইসলাম প্রকাশ সাইফুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের দুইজনের দেয়া তথ্য মতে রাউজান ও হাটহাজারী থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ডাকাত দলের আরও পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ডাকাতিকাজে ব্যবহৃত গ্রিল কাটার, ছোরা, টর্চ-লাইটসহ মোট ৪৬ ভরি স্বর্ণালংকার এবং স্বর্ণ বিক্রির ৩০ লাখ এক হাজার ছয়শ টাকা উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে ডাকাতি হওয়া স্বর্ণালংকার কেনা জুয়েলারির দোকানিকেও গ্রেফতার করা হয়।

র‍্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এমএ ইউসুফ বলেন, আসামিরা ডাকাতির ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন। একই সঙ্গে তাদের কাছ থেকে ডাকাতি হওয়া স্বর্ণালংকারগুলো কেনার কথাও স্বীকার করেছেন জুয়েলারি দোকানি বিপ্লব চন্দ্র সাহা। গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড