• বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সাংবাদিকদের প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি, ওসিকে প্রত্যাহারের আল্টিমেটাম

  মো. রাফিকুর রহমান লালু, রাজশাহী

২০ নভেম্বর ২০২২, ১২:০০
সাংবাদিকদের প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি, ওসিকে প্রত্যাহারের আল্টিমেটাম

রাজশাহীতে পুলিশের সামনে প্রকাশ্যেই এক সন্ত্রাসী সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি দিয়েছে। এছাড়া পুলিশের সামনে রাজশাহীর একজন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়ায় সাংবাদিকরা থানা ঘেরাও করেছেন।

রাজশাহী নগরীতে প্রকাশ্যে পুলিশের সামনে সিনিয়র সাংবাদিক আনিসুজ্জামানের উপর হামলা চালিয়ে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সন্ত্রাসীদের পক্ষ নিয়ে সাংবাদিকদের গ্রেফতার করার হুমকি দেয় রাজপাড়া থানা পুলিশ। গত শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) দুপুরে হোটেল এক্সে ঘটনাটি ঘটে।

এর প্রতিবাদে রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমানকে প্রত্যাহারে থানার সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন সাংবাদিকরা। পরে রাজশাহী পুলিশ কমিশনারের আশ্বাসে ওসিকে প্রত্যাহারে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আন্দোলন স্থগিত করেন রাজশাহীতে কর্মরত সাংবাদিকরা। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অমিত ঘোষ ও পারভেজ নামের দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাতেই লাঞ্ছিতের শিকার আনিসুজ্জামান রাজপাড়া থানায় দুজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৭-৮ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

জানা যায়, ওই আবাসিক হোটেলে সকালে সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে হেনস্থার শিকার হন দৈনিক ইত্তেফাকের রাজশাহীর স্টাফ রিপোর্টার মো. আনিসুজ্জামান। খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যান রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম মহাসচিব রাশেদ রিপনসহ কয়েকজন সাংবাদিক। তারা প্রায় এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকা সাংবাদিক আনিসুজ্জামানকে পুলিশের উপস্থিতিতে উদ্ধার করে হোটেল থেকে বের হচ্ছিলেন। তখন হোটেলের কর্মীরা আবারও পুলিশের সামনেই সাংবাদিক আনিসুজ্জামানকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। পুলিশ তখন নির্বিকার ছিল। এ সময় ওই এলাকার এক সন্ত্রাসীকে হোটেল কর্তৃপক্ষের পক্ষ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রকাশ্যেই হত্যার হুমকি দিতে দেখা যায়। পুলিশের সামনেই ফোন করে অন্য সন্ত্রাসীদের অস্ত্র নিয়ে ঘটনাস্থলে ডাকতেও দেখা যায় ওই সন্ত্রাসীকে।

এ সময় সাংবাদিকরা হোটেলের এক্সের সামনে অবস্থান নিয়ে অভিযুক্তদের আটকের দাবি জানালে পুলিশ দুইজনকে থানায় নেয়। কিন্তু থানায় নেয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নিতে গড়িমসি করা এবং উল্টো হোটেল এক্সের পক্ষ নিয়ে কথা বলতে শুরু করেন ওসি এএসএম সিদ্দিকুর রহমান। পুলিশের বোয়ালিয়া জোনের অতিরিক্ত উপ কমিশনার তৌহিদুল আরিফের সামনেই ওসি সাংবাদিক নেতাদের সঙ্গে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন। গ্রেফতার করার হুমকিও দেন। এর প্রতিবাদে সাংবাদিকরা থানার সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। তারা ওসিকে প্রত্যাহারের দাবি জানান।

শুক্রবার সন্ধ্যায় আন্দোলন চলাকালে নগর গোয়েন্দা শাখার উপ পুলিশ কমিশনার আরেফিন জুয়েলের নেতৃত্বে পুলিশের একটি প্রতিনিধি দল সেখানে যান। এ সময় দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা ও ওসিকে প্রত্যাহারের আশ্বাস দেন। পরে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ওসিকে প্রত্যাহারসহ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে আল্টিমেটাম দিয়ে আন্দোলন স্থগিত করেন সাংবাদিকরা।

রাজশাহী নগর গোয়েন্দা শাখার উপ পুলিশ কমিশনার আরেফিন জুয়েল জানান, হোটেলটি চালু হওয়ার শুরু থেকেই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে। এক রকম দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। তাদের কাছেও বেশকিছু তথ্য আছে। তারা দ্রুতই ব্যবস্থা নেবেন। আর সাংবাদিকের প্রতি হামলা অনাকাঙ্ক্ষিত। রাজশাহী পুলিশ কমিশনারের নির্দেশে তিনি সাংবাদিকের সঙ্গে কথা বলেছেন। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাংবাদিকরা অভিযোগ তোলেন, ওসি এএসএম সিদ্দিকুর রহমান হোটেল এক্স থেকে অবৈধ সুবিধা নেন বলে ওই হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ চলে। তিনি শুক্রবারের এই ঘটনার পরিস্থিতি ঘোলাটে করেছেন। তিনি রাজপাড়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি থানায় থাকার যোগ্য নন। তিনি যোগ দেওয়ার কয়েকদিনের মধ্যেই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সেদিনই এই ওসিকে প্রত্যাহার করা উচিত ছিল। কারণ, তিনি যে কোন পরিস্থিতি মোকাবিলায় ব্যর্থ। ওসির বিরুদ্ধে মতিহার থানা ও কাঁটাখালি থানায় থাকাকালীন বহু অভিযোগ রয়েছে।

রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে ওই হোটেলে গিয়েছেন তাদের এক সহকর্মী। তখন পুলিশের উপস্থিতিতে তার ওপর হামলা করা হয়। বিষয়টি নিয়ে থানায় গেলে থানার ওসি হামলাকারীদের পক্ষ নিয়ে ওই সহকর্মী ও তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। বাধ্য হয়ে তারা রাস্তায় নামেন। পরে পুলিশ কমিশনারের পক্ষ থেকে দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে তারা কর্মসূচি প্রত্যাহার করেনে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড