• বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পেরে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

  মো. মাহবুবুর রহমান রানা, সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ)

১৭ নভেম্বর ২০২২, ১৪:০৬
কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পেরে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা
উদ্ধারকৃত মরদেহ (ফাইল ছবি)

কিস্তির টাকা পরিশোধ না করতে পেরে বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন এক মুরগী ব্যবসায়ী।

ঋণের তাগাদা সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বুধবার মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছেন।

ঘটনাটি মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার বালিয়াটি ইউনিয়নের মুন্সিচর গ্রামে ঘটেছে।

জানা গেছে, বালিয়াটি ইউনিয়নের মুন্সিচর গ্রামের দুদু ব্যাপারীর ছেলে বাবুল হোসেন বিভিন্ন এনজিও থেকে ৯ লাখ টাকা ও সুদ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা সুদ নেন।

এরপর প্রতিদিন এনজিওর কিস্তির টাকার তাগাদা ও সুদ কারবারিদের তাগাদা সইতে না পেরে বাড়ির পাশে ক্ষেতে বিষপান করে গত সোমবার। স্থানীয়রা তাকে ক্ষেতে থেকে উদ্ধার করে শুরুতে সাটুরিয়া হাসপাতালে নিলে তাকে মানিকগঞ্জ কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার বিএনকে হাসপাতালে নেওয়া হলে বুধবার ওই হাসপাতালেই তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

বাবুলের ছেলে মো. রেজাউল করিম বলেয়, আমার বাবা মুন্সিচর জগা মার্কেটে মুরগীর ব্যবসা করত। তিনি গণকল্যান ট্রাস্ট, ব্র্যাক, ব্যুরো বাংলাদেশ, স্টেপ ও দিশাসহ বিভিন্ন এনজিও থেকে ৯ লাখ টাকা ঋণ নেয়। গ্রামের সুদ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে আরও ৫ লক্ষ টাকা সুদ নেয়। মোট ১৪ লক্ষ টাকা ঋণ হওয়ায় এবং ঋণের টাকার তাগাদা সইতে না পেরে আমার বাবা আত্মহত্যা পথ বেছে নেয়।

সাটুরিয়া থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস বলেন, বাবুল হোসেন ঋণে জর্জরিত ছিল। সে বিভিন্ন এনজিও সুদ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা সুদ করে আনেন। ওই টাকার তাগাদা সইতে না পেরে বিষপান করে আত্মহত্যা করে। এ বিষয়ে সাটুরিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড