• রোববার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জামিনে মুক্ত হয়েই বাদীর বাড়িতে হানা দিল আসামি পক্ষ

  মনিরুজ্জামান, নরসিংদী

১৫ নভেম্বর ২০২২, ১২:৩১
জামিনে মুক্ত হয়েই বাদীর বাড়িতে হানা দিল আসামি পক্ষ

নরসিংদীর যোশর ইউনিয়নে বাড়িঘর ভাঙচুর করে স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকাসহ অর্ধ কোটি টাকা লুটপাটের মামলার আসামিরা হাইকোর্ট থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে মামলার বাদীকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়াসহ বাড়িঘরে আগুন ধরিয়ে দিয়ে ঘরের মালামাল ও আসবাবপত্রসহ ২০ লক্ষাধিক টাকার সম্পদ পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে আসামি পক্ষের বিরুদ্ধে।

গত রবিবার (১৩ নভেম্বর) রাত সাড়ে নয়টার দিকে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার যোশর ইউনিয়নের পাহাড়পুলদী গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হকের ছেলে মো. মানিক মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

সোমবার (১৪ নভেম্বর) সকালে প্রতিবেদক টিম সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যায়। সেখানে গিয়ে দেখা গেছে- দুর্বৃত্তদের দেয়া আগুনে একটি চারচালা বিশিষ্ট টিনের ঘর, ঘরের ভেতরের খাট, আলমারি, সুকেছ, টিভি, ফ্রিজ ও ড্রেসিংটেবিলসহ সম্পূর্ণ মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ভুক্তভোগী মানিক মিয়ার অভিযোগ, মাস দুয়েক পূর্বে আমার এক ভাগিনা মূল্যবান গহনাগাঁটি ও টাকা পয়সা নিয়ে বিদেশ থেকে দেশে আসে। এই সুযোগে যোশর এলাকার বশির মৃধার ছেলে জিকু, আনিছুর রহমানের ছেলে আকরাম ও হাবিবুর রহমান মৃধার ছেলে শাহিন মৃধা দলবলসহ আমাদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা করে বাড়িঘর ভাঙচুর করে ২২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ অর্থসহ প্রায় অর্ধ কোটি টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়। পরে তারা হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে এসে আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি, ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকি দিতে থাকে। গত রবিবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে আমরা কয়েকজন মিলে যোশর বাজার পরিচালনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হাসান রাশেদের দোকানে স্থানীয় একটি ফুটবল খেলার বিষয়ে পরামর্শের জন্য সমবেত হই।

এ সময় বশির মৃধা ও তার ভাতিজা তৌকির মৃধা আমাকে সকলের সামনে প্রকাশ্যে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে উপস্থিত সবাই আমাকে চলে আসতে বললে আমি আমার নরসিংদীর বাসায় চলে যাই। এরই জের ধরে রাত সাড়ে নয়টার দিকে জিকু, শামিম, তৌকির ও আকরামসহ অজ্ঞাত ১০/১২ জন মিলে আমার বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়ে আমার ঘরের মূল্যবান আসবাবপত্রসহ ২০ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়িয়ে ছাই করে দেয়।

বর্তমানে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ ব্যাপারে প্রশাসনসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

যোশর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আব্দুল গফুর ভুঁইয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রবিবার রাতে মানিকের বাড়িতে আগুন লাগার খবর পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান, আমি এবং বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক সহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই কিন্তু ততক্ষণে ঘর ও ঘরে থাকা সকল মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

তবে কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা জানেন না বলেও জানান তিনি।

এ ব্যাপারে জোশর ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি বক্তব্য দিতে অস্বীকৃতি জানান।

যোশর বাজার পরিচালনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. এনামুল হাসান রাশেদ বলেন, গত রবিবার বিকালে একটি ফুটবল খেলার বিষয়ে আমরা সবাই আমার দোকানে বসি। কিন্তু আমার একটি জরুরি কাজ থাকায় আমাকে চলে যেতে হয়। পরে এসে মানিকের সাথে বশির মৃধা ও তার ভাতিজা তৌকির মৃধার কথা কাটাকাটি হয়েছে বলে শুনতে পাই।

বাজার পরিচালনা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের শামিম বলেন, ঘটনার দিন মানিকের সাথে বশির মৃধা ও তার ভাতিজা তৌকির মৃধার কথা কাটাকাটির সময় স্থানীয় ইউপি সদস্য, বাজার পরিচালনা পরিষদের সহ সভাপতি তোফাজ্জল মেম্বার ও হাফিজ উদ্দিনসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

যদিও রাতে মানিকের বাড়িতে কে বা কারা আগুন ধরিয়ে দিয়েছে এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে জানান তিনি।

অভিযুক্ত বশির মৃধার দোকানে গিয়ে এ ব্যাপারে তার বক্তব্য জানতে চাইলে সাংবাদিকরা কার কথায় তার দোকানে গিয়েছে জানতে চেয়ে বলেন, এ বিষয়ে আপনারা কি সমাধান দিতে পারবেন? আপনাদের কাছে আমি কোনো বক্তব্য দিতে বাধ্য নই। যদি এ ব্যাপারে কিছু বলতে হয় তাহলে পুলিশের কাছে বলব। আর তা না হলে বিচার জমিয়ে বড় করে মঞ্চ বানিয়ে সেখানে মাইক দিয়ে বলব।

এ ব্যাপারে জানতে শিবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সালাউদ্দিনের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড