• বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চাঁদা না পেয়ে ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রি

  নজরুল ইসলাম শুভ, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ)

০১ নভেম্বর ২০২২, ১৫:২৯
চাঁদা না পেয়ে ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রি

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের পশ্চিম সনমান্দী ছনকান্দা এলাকার মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে ফসলি জমির মালিক কামাল হোসেনের কাছে চাঁদা দাবি করে একই এলাকার মোসলেম মাষ্টারের চার ছেলে কবির হোসেন, গোলজার হোসেন, জসিম উদ্দিন ও এমদাদুল হক।

চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে জোর পূর্বক কামাল হোসেনের সি এস ও এস এ-২৯৫ ও ১৬০, আর এস ৮৩৪, ৮৩৫, ৮৩৮, ৮৩৯, ৮৪৫, ৮৪৬ ও ৮৪৭ দাগে ৫৬ শতাংশ কৃষি জমির মাটি কেটে পুকুরে পরিণত করে ওই মাটি অন্যত্র বিক্রি করার পর জমিতে সাইনবোর্ড লাগিয়ে রেখেছে কবির হোসেন, গোলজার হোসেন, জসিম উদ্দিন ও এমদাদুল হক নামের চাঁদাবাজ চার সহোদর। সাইনবোর্ডে পাওয়ার-ফুল বিল্ডার্স নামে একটি প্রতিষ্ঠানের নাম লিখা রয়েছে।

সরেজমিনে গেলে জমির মালিক কামাল হোসেন বলেন, আমার ক্রয়কৃত ফসলি জমি তারা মালিকানা দাবি করে এবং আমার জমিতে মোসলেম মাষ্টারের চার ছেলে সাইনবোর্ড লাগিয়ে রেখেছে। এর আগে তারা আমার কাছে আড়াই লক্ষ্য টাকা চাঁদা দাবি করে এবং আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, আমি চাকুরি করে জীবিকা নির্বাহ করি, তারা এই এলাকায় সন্ত্রাসী কার্যকলাপ এবং বিভিন্ন অপরাধমূলক কাজের সাথে জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে মানুষকে বিভিন্নভাবে হয়রানি ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

জমির মালিক কামাল হোসেন বলেন, আমি কোনো উপায়অন্ত না পেয়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সোনারগাঁ থানাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছি। সকল দপ্তর থেকে আমার পক্ষে রায় আসলেও তারা তাদের সাইনবোর্ড এখনো উঠিয়ে নিচ্ছে না। উল্টো আমাকেসহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহ'র বিরুদ্ধে মামলা দেয়ার হুমকি প্রদান করে।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বললে তারা বলেন- আমরা দীর্ঘদিন ধরে দেখে আসছি এই জমি ক্রয় সূত্রে মালিক হয়ে কামাল হোসেন ভোগদখল করে আসছে। হঠাৎ মোসলেম মাষ্টারের ছেলেরা তার জমি থেকে মাটি কেটে ফসলি জমি পুকুরে পরিণত করে জোরপূর্বক সাইনবোর্ড লাগিয়ে রেখেছে। এখানেই শেষ নয়, তারা বরাবরই এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে কোণঠাসা করে রাখতে চায়, আমরা এর প্রতিকার চাই।

সনমান্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহ বলেন, জায়গার মালিক আমার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিল, বিবাদীদের ইউনিয়ন পরিষদে ডেকেছিলাম কিন্তু তারা উপস্থিত হয়নি। বিষয়টি নিয়ে বাদীকে ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য উচ্চ আদালতে অভিযোগ করার ডিগ্রী/আদেশ দিয়েছি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড