• বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইউনিয়ন পরিষদের জায়গায় দোকান তুলে ভাড়া দিচ্ছেন প্রভাবশালীরা

  মিলন মাহমুদ, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ)

৩১ অক্টোবর ২০২২, ১৫:০৩
ইউনিয়ন পরিষদের জায়গায় দোকান তুলে ভাড়া দিচ্ছেন প্রভাবশালীরা

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার শায়েস্তা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) জায়গা দখল করে দোকানঘর তুলে ভাড়া দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সাবেক চেয়ারম্যানসহ কয়েকজন প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। সাবেক চেয়ারম্যান ছাড়াও ইউপি সদস্য ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাও রয়েছেন।

এ দিকে জমি উদ্ধারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে অভিযোগ দিয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে দ্রুত জায়গা উদ্ধারের আশা করছেন তারা।

বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান বলছেন, দখলদারেরা প্রভাবশালী হওয়ায় দীর্ঘদিনেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। তবে সাবেক চেয়ারম্যানের দাবি জায়গাটা তিনিসহ কয়েকজনের ক্রয়কৃত।

শায়েস্তা ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, আরএস খতিয়ান অনুযায়ী পরিষদের দক্ষিণ পাশের রাস্তায় গড়ে তোলা দোকানের জমির মালিক শায়েস্তা ইউনিয়ন পরিষদ। পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিন চোকদার ক্ষমতায় থাকাকালীন ওই জমিতে দোকান তোলা হয়। প্রথমে জায়গাটি পরিষদের পক্ষ থেকে ভাড়া দেওয়ার সিদ্ধান্ত হলেও, পরে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে সাবেক চেয়ারম্যান ও তার লোকজন দখলে নেন। এ বিষয়ে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম জায়গাটি উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইউএনওকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, পরিষদের জায়গায় তোলা দোকানের ভাড়া নিচ্ছেন ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিন চোকদার, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য মো. তমিজ উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি দবির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ (টিপু), ইউপি সাবেক সদস্য আব্দুল মান্নান ও ফজলুর হক সামীম।

সরেজমিনে দেখা গেছে, শায়েস্তা ইউনিয়ন পরিষদের দক্ষিণ পাশের রাস্তায় সারি দিয়ে তোলা হয়েছে সাতটি দোকান। দীর্ঘদিন ধরে দোকানগুলো ভাড়া নিয়ে বিমান টিকিট, মনিহারি, ইলেকট্রনিক, স্টুডিও এবং খাবারের হোটেল করেছেন কয়েকজন ব্যবসায়ী। জায়গাটি ইউনিয়ন পরিষদের হলেও, দোকান ভাড়া নিচ্ছেন স্থানীয় প্রভাবশালী ছয় ব্যক্তি।

ভাড়াটেদের একজন মোহাম্মদিয়া ট্রাভেলস সার্ভিসের কর্মচারী মো. রায়হান বলেন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. তমিজ উদ্দিনের কাছ থেকে দোকানটি ভাড়া নেওয়া হয়েছে। প্রতি মাসে তাকে দোকান ভাড়া পরিশোধ করতে হয়।

খাবার হোটেলের মালিক মো. লীলচান বলেন, ‘শায়েস্তা ইউপির সাবেক সদস্য আব্দুল মান্নানের কাছ থেকে তিন শাটারে দোকান ভাড়া নিয়েছি। প্রতি মাসে তাকে দোকান ভাড়া দিয়ে আসছি।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিন চোকদার বলেন, জায়গাটি ইউনিয়ন পরিষদের নয়। অদিতি রায় নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে জমিটি আমরা কিনেছি। কেনা জমিতেই দোকানঘর তোলা হয়েছে। তবে ওই জমির পাশে ইউনিয়ন পরিষদের জায়গা রয়েছে।

শায়েস্তা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, জায়গাটা ইউনিয়ন পরিষদের। প্রভাবশালীরা জোর করে দখলে রেখেছেন।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম বলেন, উপজেলা সার্ভেয়ার দিয়ে পরিষদের জায়গাটি মাপা হয়েছে। দোকানঘরগুলো পরিষদের জায়গায় পড়েছে। জায়গাটি উদ্ধারের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে; কিন্তু দখলদারেরা প্রভাবশালী হওয়ায় দীর্ঘদিনেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছি না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিপন দেবনাথ বলেন, শায়েস্তা ইউনিয়ন পরিষদের জায়গাটির সীমানা নির্ধারণ ও দাপ্তরিক বিষয় নিয়ে জটিলতা রয়েছে। এ বিষয়ে আমাদের কাজ চলছে। খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড