• বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কৌশলে সংগঠিত হচ্ছে জামায়াত

  মোঃ রাফিকুর রহমান লালু, রাজশাহী:

৩০ অক্টোবর ২০২২, ১৪:১৯
জামায়াত-শিবির

রাজশাহীতে নতুন করে সংগঠিত হচ্ছে জামায়াত-শিবির। দলটি জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে এনজিও, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামে নতুন নতুন কৌশলে সংগঠিত করছে নিজেদের। এ জন্য এই জেলার নেতৃত্বে আনা হচ্ছে অন্য এলাকার চৌকস শিবির নেতাদের, যাদের নামে নিজ এলাকায় একাধিক নাশকতার মামলা রয়েছে।

এক সময় জামায়াত-শিবিরের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ছিল রাজশাহী। পঁচাত্তর-পরবর্তী রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের পর ধীরে ধীরে এই অঞ্চলে শক্ত অবস্থান তৈরি করে তারা। তবে যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু হলে দলটি আবারও অবস্থান হারাতে শুরু করে। ২০১০ সালের ২৫ মার্চ ট্রাইব্যুনাল, আইনজীবী প্যানেল এবং তদন্ত সংস্থা গঠন করা হয়। পরে অভিযুক্ত জামায়াত নেতারা একের পর এক গ্রেপ্তার হতে থাকে। ২০১৪ সালের পর থেকে এ অঞ্চলে একেবারেই কোণঠাসা হয়ে পড়ে দলটি।

জানা যায়, বহিরাগত ও নাশকতা মামলার আসামিদের নেতৃত্বে এনে আবারও সংগঠনকে শক্তিশালী করার চেষ্টা চলছে। সম্প্রতি পুলিশের হাতে এরকম কিছু নেতাকর্মী আটক হয়েছেন। তাদের অধিকাংশই বহিরাগত। তারা নিজ এলাকাসহ রাজশাহীতেও একাধিক নাশকতা মামলার আসামি বলে নিশ্চিত করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একটি সূত্র।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, দলকে শক্তিশালী করতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাসিন্দা ছাত্রশিবিরের চৌকস নেতা কেরামত আলীকে রাজশাহী মহানগর জামায়াতের আমির করা হয়েছে। তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি ডা. জামিল আক্তার রতন হত্যা মামলার অন্যতম আসামি। এই নেতা বর্তমানে রাজশাহীতে অবস্থান করছেন। বেশির ভাগ জায়গায় পরিচয় গোপন করে জামায়াতকে শক্তিশালী করার কাজ করছেন।

রাজশাহী মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি করা হয়েছে এমাজউদ্দিন মণ্ডলকে। তিনি ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলার বাসিন্দা। তার নামে নিজ এলাকায় পাঁচটি নাশকতার মামলা। গত ২২ এপ্রিল তিনি গোপন বৈঠক করার সময় পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন। জামিন নিয়ে বর্তমানে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

সম্প্রতি নাশকতার জন্য গোপন বৈঠক করার অভিযোগে ছয় সহযোগীসহ গ্রেপ্তার হওয়া মহানগর শিবিরের সেক্রেটারি উসামা রায়হান খুলনা নগরীর নিউমার্কেট এলাকার বাসিন্দা। শিবির নেতা কক্সবাজারের ফরিদ উদ্দীন আক্তার বর্তমানে নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানা জামায়াতের আমির।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দলটির নেতাকর্মীরা নতুন ব্যবসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও এনজিওর আড়ালে নিজেদের সংগঠিত করছে। তারা এসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অংশীদার বানাচ্ছেন ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী ও স্থানীয় পর্যায়ের নেতাদের।

রাজশাহী মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রমাণিক দেবু দৈনিক অধিকারকে বলেন, এ অঞ্চলে নতুনরূপে জামায়াত-শিবির সংগঠিত হচ্ছে। এতে শুধু আমরা না, সাধারণ মানুষও আতঙ্কিত।

এ বিষয়ে জানতে রাজশাহী মহানগর জামায়াতের আমির কেরামত আলীকে মোবাইল ফোনে কল দিয়ে পাওয়া যায়নি। কয়েকজন জামায়াত নেতাকে ফোন দিলেও তারা এই বিষয়ে কোনো কথা বলতে চাননি।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-৫) অধিনায়ক লে. কর্নেল রিয়াজ শাহরিয়ার বলেন, তাদের নতুন কৌশল ভাঙতে মাঠে সক্রিয় আছে র‌্যাব। ইসলামী দলগুলো সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতার কারণে সম্ভব হচ্ছে না।

রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বলেন, ‘সম্প্রতি জামায়াত-শিবিরের কয়েকটি গোপন বৈঠকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র ও দেশি অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়। তারা আর আগের মতো নাশকতা ঘটাতে পারবে না। পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড