• বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

প্রধান শিক্ষকের নিয়োগ বাণিজ্যের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

  মোস্তাকিম আল রাব্বি সাকিব, মণিরামপুর (যশোর)

২৭ অক্টোবর ২০২২, ১১:৩৫
প্রধান শিক্ষকের নিয়োগ বাণিজ্যের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

যশোরের মণিরামপুর উপজেলার বাংগালীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিয়োগ অনিয়ম দুর্নীতি ও অফিস সহায়ক পদে চাকরি দেওয়ার কথা বলে দুই লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার ঘটনায় সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য আব্দুল কুদ্দুস বাদি হয়ে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মণিরামপুর আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেছে। মামলার সিআর নং ৮৯৭/২২ তারিখ ১৮/১০/২০২২ ইং। আদালত মামলাটি তদন্ত দায়িত্ব দিয়েছেন ডিবি পুলিশের উপর বলে অভিযোগ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাংগালীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য বাংগালীপুর গ্রামের মৃত আ. আজিজের ছেলে আব্দুল কুদ্দুস ১৪ মার্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির এক আলোচনা মোতাবেক অফিস সহায়ক, পরিচ্ছন কর্মী ও আয়া পদে নিয়োগ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত হয়। সে মোতাবেক প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমানের সাথে আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে সাগর হোসেনকে পরিচ্ছন্ন কর্মী পদে চাকরী দিবে বলে মৌখিক ভাবে ৭ লক্ষ টাকা চুক্তি হয়। পরে কুদ্দুসের কাছ থেকে প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমান ২ লক্ষ টাকা অগ্রিম নিয়েছে বলে অভিযোগ। আর বাকি ৫ লক্ষ টাকা নিয়োগ বোর্ডের এক সপ্তাহ আগে দেওয়ার মৌখিক চুক্তি হয়।

সে সময় প্রধান শিক্ষক বলেছিলেন, আমি টাকা দিয়ে শিক্ষা অফিসার, নিয়োগ বোর্ডের ডিজি ও সভাপতিসহ সকলকে ম্যানেজ করে নিবো। পরে প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমান আরও বেশি টাকার লোভে পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিসহ কিছু গোপন করে রাখে। কুদ্দুস পরবর্তীকালে ছেলে সাগরের জন্য প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমানকে বলে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কবে দিবেন। তখন প্রধান শিক্ষক বলেন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আবেদনের তারিখ শেষ হয়ে গেছে। এখন আমার আর কিছু করার নায়।

তিনি বলেছেন, প্রধান শিক্ষক সাফ বলে দিয়েছে- তেঘরি গ্রামের বাবর আলীর ছেলে মতিয়ারের চাকরির জন্য সুপারিশ করেছে সভাপতি ও চেয়ারম্যান। বিধায় আপনার ছেলের চাকরীর আশা ছেড়ে দেন। আমার ছেলের চাকরির জন্য প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমার ২ লক্ষ টাকা অগ্রিম নিয়েছিল সে টাকা ফেরৎ চাইলে তিনি কিছু দিনের জন্য সময় নেন। নির্ধারিত দিনে প্রধান শিক্ষক টাকা ফেরত না দিয়ে বিভিন্ন তালবাহনা করতে থাকে। এক পর্যায় আমি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলে সে সাফ বলে দিয়েছে আমি আপনার একটি টাকাও দিবো না।

প্রধান শিক্ষক আরও বলেন, আমার ছেলের চাকরি দেওয়ার জন্য ২ লক্ষ টাকা ফেরৎ পাওয়ার জন্য প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও বাংগালীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি কাছে। কুদ্দুস আলী এতো কিছু করেও কোনো ফল না পাওয়ায় নিরুপায় হয়ে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মনিরামপুর আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেছে। আদালতের মামলার সি আর নং ৮৯৭/২২, তারিখ ১৮/১০/২০২২ ইং। আদালত মামলাটি তদন্ত দায়িত্ব দিয়েছে ডিবি পুলিশের উপর।

বাংগালীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমান বলেন, কুদ্দুস আলীর কাছ থেকে আমি একটি টাকা নেয়নি। সে আমার বিরুদ্ধে ব্যাপক য়ড়যন্ত্র করে বেড়াছে।

বাংগালীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি দিলীপ ব্যানার্জী বলেন, কুদ্দুস আলী প্রধান শিক্ষকের কাছে ২ লক্ষ টাকার বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে অফিযোগ দিয়ে ছিলো। সরেজমিন এসে কোনো প্রমান তারা পাইনি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ চন্দ্র সরকার বলেছেন, উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার নিকট একটি অভিযোগ দিয়েছিলো। পরীক্ষা হওযার কারণে আমি রির্পোট করতে পারিনি। পরবর্তীতে জানতে পারলাম এ বিষয়র উপর আদালতে মামলা হয়েছে। সে কারণে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড