• শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ১৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দলিল লেখক, মাদকাসক্ত ও নারী কেলেঙ্কারিতে জড়িতরা ঠাই পেল ছাত্রলীগে!

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৫:৫৬
দলিল লেখক, মাদকাসক্ত ও নারী কেলেঙ্কারিতে জড়িতরা ঠাই পেল ছাত্রলীগে!
সড়কে বিক্ষোভরত ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা (ছবি : অধিকার)

দলিল লেখক ভেন্ডার, মাদকসেবী ও নারী কেলেঙ্কারিতে জড়িতদের নিয়ে টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রলীগের তিন কমিটি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। গত ৩০ সেপ্টেম্বর মধ্য রাতে টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর উপজেলা, সরকারি মুজিব কলেজ আর সখিপুর শহর ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।

কমিটি ঘোষণার পরে এ কমিটিকে বর্তমান সংসদ সদস্যের পারিবারিক কমিটি ও জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস হাসানের পকেট কমিটি উল্লেখ করে বিক্ষোভ করেছেন পদবঞ্চিতরা। যদিও জেলা ছাত্রলীগের দাবি- দীর্ঘদিনের পরীক্ষিতদেরকেই নবগঠিত কমিটিতে পদায়ন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের একটি পক্ষ নিজ দলের নামে গুজব ছড়াচ্ছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের দাবি- তাদেরকে অবহিত না করেই জেলা ছাত্রলীগ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর উপজেলা ছাত্রলীগের পাঁচ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক রাসেল আল মামুন একজন দলিল লেখক ভেন্ডার। যার সনদ নাম্বর ১৭৪৮। ছাত্রলীগের এ আহ্বায়কের একটি ঘনিষ্ঠ ভিডিয়ো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এছাড়া যুগ্ম আহ্বায়ক আল মাহমুদ ও সাইফুল ইসলাম, শহর ছাত্রলীগের সভাপতি রেজভী শিকদার টাঙ্গাইল-৮ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জোয়ারুল ইসলামের নাতি।

নবগঠিত শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসানের প্রকাশ্যে মাদক সেবনের একটি ছবিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এছাড়া সরকারি মুজিব কলেজ ছাত্রলীগের খন্দকার রকিবুল হাসান বিজয় সংসদ সদস্য জোয়ারুল ইসলামের ভাতিজা আর সাধারণ সম্পাদক সুমন মিয়া সংসদ সদস্য জোয়ারুল ইসলামের মেয়ে জামাইয়ের ভাতিজা। কমিটি ঘোষণার পর থেকে পদবঞ্চিতরা উপজেলা শহরে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছেন।

নবগঠিত উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জুয়েল রানা বলেন, রাতের আধারে কমিটি গঠনের মাধ্যমে বিতর্কিতদের পদায়ন করে ছাত্রলীগকে কলঙ্কিত করা হয়েছে। উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক রেজিষ্ট্রেশনকৃত দলিল লেখক আর শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাদকাসক্ত। এছাড়া কমিটির অন্যান্যরা সাধারণ সম্পাদক আর বর্তমান সংসদ সদস্যের আত্মীয়স্বজন। পারিবারিক ও পকেট কমিটি করার জন্য ত্যাগী নেতারা বাদ পরেছেন। আমরা এ কমিটি প্রত্যাখ্যান করেছি। কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন কমিটি গঠন না করা পর্যন্ত আমরা বিক্ষোভ অব্যাহত রাখব।

এসব অভিযোগ নিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক রাসেল আল মামুনকে ফোন দেয়া হলে তাকে পাওয়া যায়নি। টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস হাসান বলেন, সখিপুরের তিনটি কমিটি দেয়ার সময় আগের কমিটির নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়েছে। উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আগের কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তাকে ফাঁসানোর জন্য প্রতিপক্ষরা একটি রুমের মধ্যে আটক করে মেয়ে দিয়ে নাটকের দৃশ্য করে। তার বিরুদ্ধে দলিল লেখকের অভিযোগও মিথ্যা। আর শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসানের মাদকের ছবিটিও এডিট করা।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনুপম শাহজাহান জয় বলেন, সখিপুরের সদ্য গঠিত তিন কমিটি নিয়ে আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগ বিব্রত। যাদেরকে নতুন কমিটিতে আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারি, মাদকসেবনসহ নানান অভিযোগ রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, জেলা ছাত্রলীগ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাথে পরামর্শ না করে কমিটি গঠন করেছে। বিতর্কিত, বহিরাগত আর স্থানীয় সংসদ সদস্যের আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে এ কমিটি করেছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড