• মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বিদ্যালয়ের কক্ষেই চলছে কোচিং বাণিজ্য

  রফিক খান, মানিকগঞ্জ:

২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:২২
কোচিং বাণিজ্য

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এসএসসি-সমমান পরীক্ষার জন্য ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর পর্যন্ত সারা দেশে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। ৫ সেপ্টেম্বর সচিবালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমনটাই জানিয়েছেন। কিন্তু সরকারি এসব নির্দেশনা উপক্ষো করে অভিনব কায়দায় মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা জাগীর-কৃষ্ণপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে নবম ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য কোচিং সেন্টার চালু রেখেছেন।

শিক্ষার্থীরা বলছে মাসিক ৩০০ টাকা ফি দিয়ে তারা সকাল ৮ টা থেকে ৯ টা পর্যন্ত কোচিং করছে।

এসব তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে জাগীর-কৃষ্ণপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম বলেন, কোচিং নয় বিদ্যালয়ের দূর্বল ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য অতিরিক্ত ক্লাশ করানো হচ্ছে। বিনিময়ে তাদের থেকে ১৫০ টাকা ফি নেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, এগুলো করা হচ্ছে শিক্ষা অফিসের নিয়ম মেনেই।

শিক্ষা অফিসের লিখিত কোন নির্দেশনা আছে কিনা জানতে চাইলে , ওই প্রধান শিক্ষক ক্ষিপ্ত হয়ে আর কোনো তথ্য দেওয়া হবে না বলে আশরাফুল ইসলাম নামক এক সংবাদকর্মীর ক্যামেরা ও তার উপর হামলা চালায়। এ সময় অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ এসে প্রধান শিক্ষককে ফিরিয়ে নিয়ে যান।

মঙ্গলবার সকাল ৮ টায় গিয়ে দেখা গেছে, বিদ্যালয়ের ক্লাশরুমে অভিনব সব কায়দায় কোচিং কার্যক্রম চালিয়ে চাচ্ছে। সপ্তম ও নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থীদের থেকে ৩০০ করে মাসিক ফি নিয়ে চলছে এসব কোচিং সেন্টার। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কোচিং চলাকালে একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, মাসে ৩০০ করে টাকা নিয়ে আমাদের কোচিং করানো হয়।

জাগীর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য শাহ আলম জানান, সরকারি নির্দেশনা দিয়েছে কোচিং বন্ধ রাখতে। তা না মেনে বিদ্যালয়ের রুমে কোচিং করানো এটা দন্ডনীয় অপরাধ হয়েছে। আমি দেখেছি ও শুনেছি সাংবাদিকের উপর ওই প্রধান শিক্ষক হাত তুলেছেন। একজন খারাপ মনের মানুষ শিক্ষক হতে পারে না। একজন সাংবাদিকের সাথে খারাপ আচরণ করে তাহলে একজন সাধারণ মানুষের সাথে কেমন আচরণ করতে পারে। তিনি এ ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তে মাধ্যমে দোষীর বিচার চান।

জাগীর-কৃষ্ণপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুল মান্নান বলেন, আমি জানি যারা এসএসসি পরিক্ষা দিচ্ছে শুধু তাদের কোচিং করা যাবে না। শিক্ষার্থীদের থেকে ৩০০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

জাগীর-কৃষ্ণপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য কালাম মিয়া বলেন, দূর্বল ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সকাল নয়টা থেকে অতিরিক্ত ক্লাশ নেওয়া হয়। কোন টাকা বা ফি নেওয়া হয় না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জ্যোতিশ্বর পাল জানান, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এখন কোচিং সেন্টার বন্ধ। যদি কোথাও কোচিং সেন্টার চালু রাখে, খোঁজ-খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে সংবাদকর্মীর উপর হামলা হলে তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড