• মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ছুরিকাঘাতে ইউপি চেয়ারম্যানকে আহতের ৩ সপ্তাহ পরও হয়নি মামলা 

  আতিয়ার রহমান, দৌলতপুর (কুষ্টিয়া)

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:০২
ছুরিকাঘাতে ইউপি চেয়ারম্যানকে আহতের ৩ সপ্তাহ পরও হয়নি মামলা 
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত ইউপি চেয়ারম্যান (ফাইল ছবি)

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীন আহত হওয়ার ঘটনার ৩ সপ্তাহ পার হলেও আজও থানায় মামলা হয়নি। গ্রেফতার হয়নি হামলাকারী সন্ত্রাসীদের কেউই। এ ঘটনায় এলাকাবাসী চরম ক্ষুব্ধ হলেও দৌলতপুর থানা পুলিশের ভূমিকা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা সংশয়।

হামলার ঘটনায় সে সময় আহত চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীন বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় এজাহার দিলেও অজ্ঞাত কারণে দৌলতপুর থানা পুলিশ সে এজাহার গ্রহণ করেননি এমন অভিযোগ সন্ত্রাসী হামলায় আহত চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীনের।

গত ২৮ আগস্ট (রবিবার) রাত সাড়ে ১০টার দিকে দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীন কালিদাসপুর বাজার থেকে লালনগর হাইস্কুলের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনী প্রচারণা শেষে মোটরসাইকেল যোগে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন।

পার্শ্ববর্তী বিলপাড়া এলাকায় পৌঁছালে একটি মোটরসাইকেল যোগে তিনজন সন্ত্রাসী পেছন থেকে হেলাল উদ্দীনকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। এ সময় হেলাল উদ্দীন পেটে ছুরিকাঘাতে আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

হামলার ঘটনায় চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীন বাদী হয়ে ঘটনার পরদিন একই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও তার ভাইকে আসামি করে দৌলতপুর থানায় এজাহার দিলে দৌলতপুর থানার ওসি এজাহার গ্রহণ না করে তা ফিরিয়ে দেন এমন অভিযোগ হামলার শিকার চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীনের।

সন্ত্রাসী হামলায় আহত আড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীন জানান, হামলার ঘটনায় সাবেক চেয়ারম্যান ও তার ভাই সহ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় এজাহার দেওয়া হলে দৌলতপুর থানার ওসি মামলা না নিয়ে তা ফিরিয়ে দিয়েছেন। এরপর থেকে চরম আতঙ্ক, উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছি। তবে তার ওপর হামলার ঘটনা তিন সপ্তাহ পার হলেও হামলার সাথে জড়িত কেউ আজও গ্রেফতার না হওয়ায় তিনি চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

চেয়ারম্যানের ওপর হামলার ঘটনায় দৌলতপুর থানার ওসি এস এম জাবীদ হাসান বলেন, আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীনের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা না হলেও ঘটনাটি তদন্তাধীন রয়েছে।

উল্লেখ্য, আড়িয়া ইউনিয়নের লালনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের লোকজনদের সাথে হেলাল উদ্দীনের বিরোধ চলছিল। নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য হত্যার উদ্দেশ্যে ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীনের উপর হামলা করা হয়েছিল বলে এলাকাবাসীর অভিমত। তবে হামলার ঘটনার পর ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রশাসন স্থগিত রাখেন।

আড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দীনের ওপর হামলার ঘটনায় হামলাকারী সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সে সময় সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, ভাইস চেয়ারম্যান সাক্কীর আহমেদসহ দৌলতপুরের ১৩ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। এরপরও গ্রেফতার হয়নি হামলাকারী সন্ত্রাসীদের কেউ।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড