• রোববার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কানের দুলের লোভে শিশুকে খুনের পর আলমারিতে লুকিয়ে রাখে তারা

  মনিরুজ্জামান, নরসিংদী

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:২২
কানের দুলের লোভে শিশুকে খুনের পর আলমারিতে লুকিয়ে রাখে তারা
নিহত শিশু নুসরাত জাহান সায়মা, অভিযুক্ত হত্যাকারী সেলিনা বেগম ও তার স্বামী-হানিফা (ছবি : অধিকার)

নরসিংদীর শিবপুরে সামান্য একজোড়া কানের দুলের লোভ সামলাতে না পেরে নুসরাত জাহান সায়মা (৮) নামে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুলছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে প্রতিবেশী এক পাষণ্ড নারী। হত্যাকাণ্ডের পর সে শিশুটির নিথর দেহ বস্তাবন্ধি করে ঘরের আলমারির ভেতরে লুকিয়ে রাখে।

এ ঘটনায় পুলিশ এরই মধ্যে ঘাতক ওই নারী ও তার স্বামীকে গ্রেফতার করেছে।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার দিকে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার যোশর ইউনিয়নের আখড়া মন্দিরের পাশে রেহেনা বেগমের বাড়ির ভাড়াটিয়া হানিফ মিয়ার ঘরের আলমারির ভেতর থেকে ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ঘাতক সেলিনা বেগম (২৮) ও তার স্বামী-হানিফা (৪৫)।

গ্রেফতারকৃত হানিফা (৪৫) নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার পাহাড়ফুলদী এলাকার মৃত জমশের আলী ছেলে। সে বর্তমানে শিবপুর উপজেলার যোশর এলাকার রেহেনা বেগমের বাসায় ভাড়া থাকেন।

বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে নরসিংদী জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে তথ্যটি নিশ্চিত করা হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিবপুর মডেল থানাধীন যোশর ইউনিয়নের যোশর (নন্দারটেক) এলাকার মো. সানোয়ারের দ্বিতীয় মেয়ে নুসরাত জাহান সায়মা (৮) গত মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুর অনুমান সোয়া একটার দিকে নিখোঁজ হয়। এরপর তার বাবা মেয়েকে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করেন। সায়মা পার্শ্ববর্তী বাড়ীর ভাড়াটিয়া সেলিনা বেগমের মেয়ে রাইছার (৫) সাথে খেলাধুলা করত এবং একে অপরের বাড়ীতে আসা যাওয়া করত। সে কারণে এলাকার অন্যান্য লোকজন সেলিনা বেগমকে সায়মার ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার খবর জানতে চায়। যদিও তিনি কিছু জানেনা বলে দাবি করেন। পরবর্তীকালে সন্ধ্যা অনুমান ৬টার দিকে সেলিনা বেগমের মেয়েকে এলাকার লোকজন জিজ্ঞাসাবাদ করলে নুসরাত জাহান সায়মা তাদের ঘরে আছে বলে জানায়। এতে করে সায়মার পিতাসহ এলাকার লোকজনের সন্দেহ হলে তারা বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানান।

এরপর যোশর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান যোশর ইউনিয়নের বিট অফিসার এসআই/মিনহাজকে সংবাদ প্রদান করেন। এসআই মিনহাজ ও সঙ্গীয় ফোর্স বিট এলাকায় ঘটনাস্থলের পার্শ্বে থাকায় দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছায় এবং সেলিনা বেগম ও তার স্বামী পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে তাদের আটক করে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, সেলিনা বেগমের স্বামী বিভাটেক চালক হানিফ বাড়িতে এসে স্ত্রীর কাছে জানতে পারে তার স্ত্রী নুসরাত জাহান সায়মাকে হত্যা করে লাশ লোহার মেটসেফের ভিতরে রেখেছে। কিন্তু তার পরে সে লোকজনের কাছে অস্বীকার করে লাশসহ ঘরে অপেক্ষা করতে থাকে এবং লাশ গোপনসহ ঘটনাকে অন্য খাতে প্রভাবিত করে রাতের আঁধারে লাশ অন্যত্র ফেলে দেওয়ার অপেক্ষায় থাকে।

যদিও এর আগেই পুলিশ খবর পেয়ে সেলিনা বেগমের ভাড়াটিয়া ঘর তল্লাশি করে লোহার মেটসেফের মধ্যে বস্তাবন্দি অবস্থায় নুসরাত জাহান সায়মার (৮) লাশ উদ্ধার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সেলিনা বেগম সে নিজেই ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে পুলিশকে জানিয়েছেন। হত্যার কারণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সেলিনা বেগম জানান মেয়েটির দুই কানে এক আনা তিন রতি ওজনের দুইটি স্বর্ণের দুল ছিল। যা নেওয়াই তার মূল উদ্দেশ্যে ছিল। জীবিত থাকা অবস্থায় সে দুল দুটি নেয়ার চেষ্টা করে কিন্তু মেয়েটি তাকে তা দিতে অস্বীকার জানায়। এরপর সে তার মাকে বিষয়টি বলে দিবে বলেও জানায়। তখন তারা শিশু নুসরাত জাহান সায়মাকে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ প্রথমে ঘাটের নিচে রাখে পরবর্তীকালে লোহার মেটসেফের মধ্যে বস্তাবন্দি অবস্থায় রাখে।

সেলিনা বেগমের স্বীকারোক্তি মতে তার ঘর থেকে মেয়েটির কানের দুলও উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

উল্লেখ্য, গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামি সেলিনা বেগম বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে বলেও প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড