• রোববার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সন্তানের ঘর ভাঙলেন ‘সৎ মা’

  মনিরুজ্জামান, নরসিংদী

১২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:৪৪
জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সন্তানের ঘর ভাঙলেন ‘সৎ মা’
জমিতে পড়ে থাকা কাঠ-বাঁশ (ছবি : অধিকার)

নরসিংদীর মাধবদী থানাধীন শিমুলের কান্দী এলাকায় জোরপূর্বক জমি দখলে রাখতে মো. আল-আমিন নামে এক প্রবাসীর নির্মাণাধীন ঘরে ভাঙচুর চালিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছে তার সৎ মা ফাতেমা বেগম, তার ছেলে সাইদুল ও মকবুল হোসেন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থেকে মাধবদী থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকালে সরেজমিনে দেখা যায়, প্রবাস ফেরত মো. আল-আমিনের সৎ মা ও তার ছেলেরা মিলে তার নির্মাণাধীন ঘরের পিলার ও টিনের চাল ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে। চালের সমস্ত টিন অন্যত্র সরিয়ে ফেলা হয়েছে। সেখানে শুধু নির্মাণাধীন ঘরের পিলার গুলো উপুড় হয়ে পড়ে রয়েছে।

প্রবাস ফেরত আল-আমিন বলেন, আমার পিতার কাছ থেকে ২০১৪ সালে ক্রয়কৃত জমিতে বিগত কিছুদিন আগে আমি গৃহনির্মাণের কাজ শুরু করি। নির্মাণ কাজ শুরু করার সময় আমার সৎ মা ও সৎ ভাইয়েরা কোনো রকম বাধা দেয়নি। কিন্তু হঠাৎ করে তারা এলাকার কতিপয় অসাধু লোকের পরামর্শে আমার গৃহনির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়ে আমার উপর চড়াও হয়। এ সময় তারা আমার নির্মাণাধীন ঘরের চাল খুলে নেয় এবং পিলার গুলো ভেঙ্গে মাটির সাথে মিশিয়ে খেলে। এতে আমি বাধা দিলে আমার কাছ থেকে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

তিনি আরও বলেন, এতে আমি বিচলিত হয়ে এলাকাবাসীর শরণাপন্ন হই। তারা উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে আপোষ মীমাংসা করার জন্য দুই দিনের সময় নেয়। তাদের নেয়া সময় শেষ হওয়ার আগেই আমার সৎ মা আমার নামে মাধবদী থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেন। পরে বাধ্য হয়ে আমি ও তাদের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ করি।

আল-আমিনের পিতা মো. আফাজ উদ্দিন বলেন, আমি ব্যবসা করতে গিয়ে বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়ে গত ২০১৪ সালে কয়েকটি মামলায় জড়িয়ে পড়ি। উপায়ন্তর না পেয়ে ধার-দেনা মেটানোর জন্য আমার প্রথম ও দ্বিতীয় সংসারের ছেলে-মেয়েদের পরামর্শে জমি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেই। তখন আমার প্রথম সংসারের বড় ছেলে মো. আল-আমিন বিদেশ থেকে এ কথা শুনে জমি কিনতে রাজি হয়। সেখান থেকে সে ধার-দেনা করে জমির সমুদয় টাকা পরিশোধ করলে সে বিদেশে থাকাকালীন সময়ে আমি তাকে জমি রেজিস্ট্রি করে দেই। তার পাঠানো টাকা দিয়ে আমি সকল পাওনা পরিশোধ করি এবং আমার মেয়েদের বিবাহ দেই।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে সে দেশে ফিরে আসলে আমি তার জমি তাকে বুঝিয়ে দিলে সে সেখানে ঘরের নির্মাণ কাজ শুরু করে। কিন্তু আমার দ্বিতীয় স্ত্রী ও তার সন্তানেরা এতে বাধা দিয়ে ঘর ভাঙচুর করে আমার ছেলে মো. আল-আমিন ও আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

আফাজ উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রী ফাতেমা বেগম অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে আমি এ জমিতে বসবাস করে আসছি। এ জমিতে তারা ঘর বানাবে তা আমরা মেনে নিতে পারিনি তাই রাগে ক্ষোভে ঘর ভেঙ্গে ফেলেছি। এ জমিতে আমার এবং আমার সন্তানদের হক রয়েছে। আমাকে অন্যত্র জমি দিলেও আমি নেব না। আমাকে এখান থেকেই জমি দিতে হবে।

মাধবদী থানার এএসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে উভয় পক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে‌। বিষয়টি আমরা তদন্ত করে উভয় পক্ষের কাগজপত্র খতিয়ে দেখেছি। একজন ক্রয় সূত্রে এবং অপরজন দখল সূত্রে মালিক। এ ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে তাদের আইনি পরামর্শ দেওয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড