• সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ ফেলে পালাল স্বামী

  তন্ময় কুমার সাহা, রায়পুরা (নরসিংদী)

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:০০
গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ ফেলে পালাল স্বামী
সদ্য প্রাণ হারানো গৃহবধূ মাহিনুর বেগম (ফাইল ছবি)

নরসিংদী রায়পুরায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে মাহিনুর বেগম (১৬) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী হালিম খাঁন ও তার স্বজনদের উপর। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে রায়পুরা থানা পুলিশ।

রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার চাঁনপুর ইউনিয়নের সওদাগর কান্দি গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। মর্মান্তিক এ ঘটনার পর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত কুয়েত প্রবাসী হালিম খাঁন উপজেলার চাঁনপুর ইউনিয়নের সওদাগর কান্দি খান্নাবাড়ির মৃত্যু সোলায়মান মিয়ার ছেলে। অপর দিকে নিহত ওই গৃহবধূ একই ইউনিয়নের সুজাতপুর গ্রামের মো. গোলাপ মিয়ার মেয়ে।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে, গত ৭ মাস আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় এ দম্পতির। সর্বশেষ রবিবার রাতে মাহিনুরের সাথে কথা হয় তার মায়ের। তখন মাহিনুরের মা নিজের মেয়ে ও তার জামায়কে তাদের বাড়িতে আসতে বলেন। পরে স্বামী হালিম শ্বশুরবাড়িতে আসতে আপত্তি জানায়। এমতাবস্থায় সোমবার দুপুরে মেয়েকে শ্বশুরবাড়ি থেকে আনতে যাওয়ার জন্য মাহিনুরের বাবা রওনা হলে পথমধ্যে স্থানীয়দের কাছ থেকে জানতে পারেন যে তার মেয়ে মাহিনুর মারা গেছে। পরে মাহিনুরের স্বামী হালিমকে ফোন করলে তিনি কল কেটে দিয়ে ফোন সুইচ অফ করে দেন।

এ ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন। পরে স্বজনরা ঘটনাস্থলে এসে ঘরের মেঝেতে হাঁটু ভাঁজকরা ঝুলন্ত অবস্থায় মাহিনুরের মরদেহটি দেখতে পান। স্বজনদের ধারণা হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

বাবা গোলাপ মিয়া বলেন, জামাই প্রবাস থেকে বাড়ি এসে মেয়ে জামায় বাড়ি বানানোর কথা বলে ৫ লাখ টাকা চেয়েছিল। আমি সে টাকা দিতেও রাজি হয়েছিলাম কিন্তু কি কারণে জামাই ও পরিবারের লোকজন মেয়েকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়েছে তা জানি না। কিন্তু আমার মেয়ের সাথে প্রায়ই বিভিন্ন সামান্য বিষয় নিয়ে তার কথা কাটাকাটি হতো বলে মাহিনুর একাধিক বার জানিয়েছে। এখন আমি প্রশাসনের নিকট আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই।

রায়পুরা থানার উপ পরিদর্শক মোরাদ হাসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড