• মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সিধঁ কেটে আড়াই বছরের শিশুকে অপহরণ

  মোঃ মাহাবুবুর রহমান রানা, সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ)

০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৭:০৬
অপহরণ

সাটুরিয়া উপজেলার বরাইদ ইউনিয়নের ছনকা মাকারপুল গ্রামে রোববার ভোর রাতে বক্কর নামে আড়াই বছরের শিশুকে ঘরের সিধঁ কেটে অপহরণ করে নেয় ঝন্টু ও সজল মিয়া নামে দুই নেশাখোর। শিশুটিকে নিয়ে দৌলতপুর এলাকার খলিসা ডহরা গ্রামের তাসলিমা বেগমের কাছে এক হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয় তারা।

আবু বক্করের বাবা আরিফ হোসেন জানান, রোববার ভোর রাতে ঘুম থেকে চেতন পেয়ে দেখি ঘরের দরজা খোলা। এরপর ঘরের বাতি জ্বালিয়ে দেখতে পাই ঘরের ভেতর বড় ধরনের সিধঁ কাটা হয়েছে। পরে স্ত্রী জেসমিনকে ডাকতে গেলে দেখেন বিছানায় তার আড়াই মাসের সন্তান নেই। প্রতিবেশিদের ডাকাডাকি করে ঘুম থেকে উঠিয়ে মসজিদের মাইকে মাইকিং করা হয়। এদিকে রাতেই মাইকিং করার পর নাগরপুর এলাকার কাওয়াখোলা এলাকা থেকে সকালে স্থানীয় জনতা সজল ও তাসলিমাকে আটক করে সাটুরিয়ার পুলিশকে খবর দেন। পরে নাগরপুর এলাকা থেকে দুই আসামীসহ শিশুটিকে উদ্ধার করে। এসময় ঝন্টু মিয়া পালিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঝন্টু ও সজল এরা দুজনই মাদকাসক্ত। এরা নেশার টাকা যোগাড় করার জন্য ওই শিশুটিকে ঘরের সিধঁ কেটে অপহরণ করে ১ হাজার টাকায় তাসলিমার কাছে বিক্রি করে দেয়। ঘটনাটি এলাকার মসজিদে মাইকিং করার পর শিশুসহ সজল ও তাসলিমাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

এদিকে আড়াই মাসের শিশু অপহরণের ঘটনায় মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. গোলাম আজাদ খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

সাটুরিয়া থানার ওসি মুহাম্মদ আশরাফুল আলম বলেন, শিশুটিকে চুরি করে ১ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছিল। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঝন্টু নামে এক আসামী পালিয়েছে তাকে ধরতে পুলিশ কাজ করছে। এ বিষয়ে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড