• সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জন্ম নিবন্ধনে অনিয়ম, ভোগান্তি চরমে

  কাজী কামাল হোসেন, নওগাঁ

০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:২২
জন্ম নিবন্ধনে অনিয়ম, ভোগান্তি চরমে
সরকারি অফিসে কর্মরত লোকজন (ফাইল ছবি)

নওগাঁর পত্নীতলায় নজিপুর পৌরসভায় জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রমে ইচ্ছেমতো অর্থ আদায়, একাজে ১৫ থেকে ৩০ দিন পর্যন্ত সময় লাগা, পৌরসভার নিজস্ব কম্পিউটার, প্রিন্টার থাকলেও বাহির থেকে নিবন্ধনের যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করাসহ নানা রকম অসংগতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পৌরসভার জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রমের জটিলতা দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের কোনো মাথা ব্যথা নেই। অতীব গুরুত্বপূর্ণ জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম সময়মতো সম্পন্ন করতে না পারায় সাধারণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

এ দিকে জনগুরুত্বপূর্ণ জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রমে ধীর গতি এবং পৌরসভার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাকন ঘোষের অদক্ষতা ও খামখেয়ালির কারণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। এ নিয়ে খোদ পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কাউন্সিলররাও অনেকেই এই প্রতিবেদকের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

সরেজমিনে জানা গেছে, জন্ম নিবন্ধন ডেস্কের সামনে সেবা প্রত্যাশী সাধারণ মানুষের জটলা নিত্যদিনের। জন্ম নিবন্ধনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কম্পিউটারের সামনে ঠায় বসে আছেন। পৌরসভার একজন কর্মচারী সেবা প্রত্যাশীদের কাছ থেকে কাগজপত্র নিয়ে একটি কাপড়ের ব্যাগে ভরে রাখছেন এবং ১৫ দিন থেকে ৩০ দিন পর যোগাযোগ করার জন্য বলছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার অদক্ষতার কারণে জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে অতিরিক্ত সময় লাগছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিজে সকল কাজ করতে পারেন না বলে নজিপুর বাসস্ট্যান্ডের মসজিদ মার্কেটের একটি কম্পিউটারের দোকান থেকে কাজ সম্পন্ন করে নিয়ে আসেন। কিছুটা অর্ডার নিয়ে ডেলিভারি করার মতো। বাহিরের কম্পিউটার হতে কাজ করে নিতে হয় বলে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ৫০-২০০ টাকা ফি গ্রহণ করা হয়ে থাকে।

পৌরসভার জন্ম নিবন্ধন সেবা নিতে আসা কয়েকজন এর সাথে কথা বললে তারা অভিযোগ করে জানান, জন্ম নিবন্ধনের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাকন ঘোষ সকাল ১১টার আগে অফিসে আসেন না। অফিস সময় বিষয়ে তিনি কারও ধারও ধারেন না।

এ বিষয়ে কয়েকজন পৌর কর্মচারীর সাথে কথা বললে নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা বলেন, কাকন ঘোষ সময়মতো অফিসে না আসার বিষয়টি আজকে নতুন নয়। দীর্ঘদিন ধরে তিনি এভাবেই ইচ্ছেমতো অফিস করে থাকেন। এটা ওপেন সিক্রেট। মেয়র সাহেব নিজেও বিষয়টি জানার পরও তিনি অদৃশ্য কারণে এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। পৌরসভার জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রমে গতিশীলতা আনয়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা জরুরি বলেও তারা মত দেন।

এ বিষয়ে নজিপুর পৌর সভার জন্ম নিবন্ধন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাকন ঘোষ এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। প্রয়োজনে মেয়রের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন।

পৌর মেয়র রেজাউল কবির চৌধুরী বলেন, সার্ভারের সমস্যা থাকার কারণে জন্ম নিবন্ধন সনদ সরবরাহে কিছুদিন বিলম্ব হয়েছে। টাকার বিষয়ে তিনি বলেন, অন্যান্য পৌরসভায়ও জন্ম নিবন্ধনে একই অবস্থা। পৌরসভার জন্ম নিবন্ধনের কাজ বাহিরে করা হয় না।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড