• মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নদীতে গোসল করতে নেমে কিশোর নিখোঁজ

  সাইফুল ইসলাম, শরীয়তপুর

০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:১৭
নদীতে গোসল করতে নেমে কিশোর নিখোঁজ
স্বজনদের আর্তনাদ (ছবি : অধিকার)

শরীয়তপুরের জাজিরায় নদীতে গোসল করতে নেমে শিক্ষক দম্পতির একমাত্র ছেলে পানিতে ডুবে গিয়ে নিখোঁজ রয়েছে।

নিখোঁজ ছেলেটির নাম মুরছালিন (১৩)। সে জাজিরা শামসুল উলুম কামিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

সরেজমিনে জানা যায়, নিখোঁজ মুরছালিন জাজিরা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের আইসিটি শিক্ষক মাস্টার মজিবুর রহমান ও জাজিরা শামসুল উলুম কামিল মাদরাসার আইসিটি শিক্ষক হাফসা আক্তারের একমাত্র ছেলে। তারা জাজিরার জয়নগর ইউপির খোরাতলার স্থায়ী বাসিন্দা হলেও জাজিরা পৌরসভার আক্কেল মাহমুদ মুন্সি কান্দির শাহী মসজিদ এলাকায় গিয়াসউদ্দিন মাদবরের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) বেলা এগারোটার দিকে তার সহপাঠী শিক্ষার্থী আফনানসহ (১৩) কয়েকজন বন্ধুদের সাথে জাজিরার শফিক কাজির মোড় থেকে কাজীরহাটমুখি কীর্তিনাশা নদীর লঞ্চঘাট এলাকায় গোসল করতে যায়।

এ সময় নদীর পাড়ে থাকা একটি বাল্কগেড থেকে তারা নদীতে লাফাচ্ছিল এবং গোসল করছিল। এছাড়া তারা কয়েকবার নদীর তীব্র স্রোতকে উপেক্ষা করে নদী পারও হয়েছে। এভাবে একাধিকবার নদী পার হওয়ার পর হঠাৎ মুরছালিন ডুবে যায়।

মুরছালীনের সহপাঠী আফনান বলেন, আমরা বাল্কগেড থেকে লাফিয়ে নদী পার হয়ে যাই। কিন্তু মুরছালিন আমাদের সাথে বাল্কগেড থেকে লাফ দিয়ে ডুব দিলে আর ওঠেনি। আমরা নদী পার হয়ে বিষয়টি খেয়াল করে ভয় পেয়ে যাই। এরপর কিছুক্ষণ খোঁজাখুঁজি করে ওর পরিবারকে বিষয়টি জানাই।

নিখোঁজ মুরছালিনের বাবা মাস্টার মজিবুর রহমান আর্তনাদ করে বলেন, আমার ছেলে গোসল করার কথা বলে আসছিল। কিভাবে কি হয়ে গেল কিছুই বুঝতে পারলাম না। আমার ছেলেটা ডুবে কোথায় চলে গেলো আল্লাহই ভালো জানে।

এ দিকে ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন জড় হয়ে যায় নদীর আশপাশে। স্থানীয়রা নদীতে অনেক খোঁজাখুঁজি করলেও নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় ভালোভাবে খুঁজে দেখা সম্ভব হয়নি, যার ফলে নিখোঁজ মুরছালিনের কোনো হদিস পাওয়া যায়নি।

অপর দিকে খবর পেয়ে জাজিরা ফায়ার স্টেশন থেকে উদ্ধারকর্মীরা আসলেও তাদের ডুবুরিদল না থাকায় অনুসন্ধানে নামতে পারেনি তারা। যার ফলে তারা উদ্ধারকাজে আসার জন্য সিনিয়রদের মাধ্যমে অভিজ্ঞ ডুবুরিদলকে জানায়।

জাজিরা থানার স্টেশন মাস্টার এনামুল হক সুমন দৈনিক অধিকারকে বলেন, আমরা খবর পেয়ে সাথে সাথে সেখানে গিয়েছি। নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় এবং আমাদের ডুবুরিদল না থাকায় আমরা অনুসন্ধান চালাতে পারিনি। অভিজ্ঞ ডুবুরিদলকে খবর দেয়া হয়েছে, তারা এসে নদীতে অনুসন্ধান চালাবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড