• শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মনপুরায় উদ্ভোধনের অপেক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ৭০টি ঘর

  খলিল উদ্দিন ফরিদ, ভোলা

২০ জুলাই ২০২২, ২৩:৪৫
মনপুরায় উদ্ভোধনের অপেক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ৭০টি ঘর
উদ্ভোধনের অপেক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর (ছবি : অধিকার)

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় জমিসহ সেমি-পাকা ঘর পেয়ে খুশি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলো। আশ্রয়ণ প্রকল্প-২, নির্মিত তৃতীয় পর্যায়ের ২১০টি ঘরের মধ্যে ১৪০টি ঘর গত ২৬ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক উদ্ভোধন পরপরই উপকার ভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করা হয়েছে। আর তৃতীয় ধাপের অবশিষ্ট ৭০টি ঘর আগামী ২১ জুলাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাা সারা বাংলাদেশে একসাথে উদ্ভোধন করবেন।

উপজেলার হাজির হাট ইউনিয়নের জংলারখাল সংলগ্ন আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে আশ্রয় পাওয়া পরিবারগুলো জানায়, তারা কোনোদিন ভাবেনি মাথা গোঁজার মতো নিজেদের একটি ঠিকানা হবে। আজ অসহায় পরিবারগুলো প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘরে থাকে, আর তাদের কোনো কষ্ট নেই।

তাদের দাবি, অগে খুব কষ্টে ছিলাম। বর্ষায় বৃষ্টির পানিতে খুব কষ্ট করেছি। এখন খুব আরামে থাকব। ঘর বরাদ্ধ পেয়ে আমরা খুব খুশি। প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা নামাজ পড়ে দোয়া করি শেখ হাসিনার জন্য। 'আমাগোরে বিনা পয়সায় সুন্দর ঘর করে দিছেন প্রধানমন্ত্রী। এখন আমাদের কোনো চিন্তা নাই।'

প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর বরাদ্ধ পেয়ে খুব খুশি গৃহহীন পরিবারগুলো। ঘর বরাদ্ধ পাচ্ছেন যাদের কোনো জায়গা জমি নেই। বেড়ীর পাশে বা অন্যের বাড়ীতে যারা বসবাস করতেন। এসব ছিন্নমুল পরিবারগুলো প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর বরাদ্ধ পেয়ে খুব খুশি।

প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পেয়ে খুব খুশি ৬০ বছর বয়সী মিনারা বেগম। প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর বরাদ্ধ পেয়ে আনন্দিত। চোখে মুখে শুধু হাসির ঝিলিক। ঘর বরাদ্ধ পেয়ে আবেগ আপ্লুত কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার কেউ নেই। সরকার আমাকে একটা ঘর বরাদ্ধ দিয়েছেন। আমি নামাজ পড়ে দোয়া করি। এখন আমার কোনো চিন্তা নাই। শেখ হাসিনার প্রতি আমরা খুশি।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধান মন্ত্রীর উপহার হিসেবে ভোলার মনপুরায় প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে ২শত ৫০ ভূমিহীন ও গৃহহীণ পরিবারের জন্য নির্মিত হয়েছে সেমি-পাকা টিনের ঘর। তৃতীয় ধাপে ২১০টি ভূমিহীন ও গৃহহীণ পরিবারের জন্য নির্মিত হয়েছে সেমি-পাকা টিনের ঘর।

উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে সর্বমোট ৪৬০টি সেমি-পাকা টিনের ঘর প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় সরকারি খাস জমিতে এসব ঘর নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উপহার নির্মানাধীন ঘরগুলো ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে বিনা মূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উপহার (ঘর) পেয়ে বসবাস করছেন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলো।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. ইলিয়াছ মিয়া জানান, প্রতিটি পরিবারের জন্য দুই শতাংশ খাস জমি বরাদ্ধ দিয়ে সেমি পাকা ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। তৃতীয় ধাপে মোট ২১০টি ঘর নির্মান কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে ১৪০টি নির্মিত ঘর উদ্ভোধনের করা হয়েছে গত এপ্রিল মাসে। আগামী ২১ জুলাই (বৃহস্পতিবার) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একযোগে সারা বাংলাদেশে তৃতীয় ধাপের নির্মিত ঘর গুলো উদ্ভোধন করবেন। মনপুরা উপজোয় ৭০টি ঘর উদ্ভোধন করা হবে।

নির্মিত ঘরগুলো বাথরুম, গোসলখানা, বারান্দাসহ ২ কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি সেমি-পাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ২ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকা বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে মনপুরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দায়িত্বে থাকা চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল নোমান বলেন, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে তৃতীয় ধাপের আশ্রয়ন প্রকল্প-২ আওতায় নির্মিত ৭০টি সেমিপাকা ঘর উপকার ভোগীদের মাঝে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্ভোধনের পরপরই বুঝিয়ে দেওয়া হবে। আমরা উপজেলা অডিটোরিয়ামে উপকার ভোগীদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার (ঘর) হস্তান্তরের সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড