• মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দুগ্রুপের সংর্ঘষে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১২ জন আহত

  মোস্তাকিম আল রাব্বি সাকিব, মনিরামপুর (যশোর)

১৪ জুলাই ২০২২, ২০:৪২
দুগ্রুপের সংর্ঘষে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১২ জন আহত
(ছবি : অধিকার)

আবার উতাপ্ত মণিরামপুরের শ্যামকুড় ইউনিয়ন। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বর্তমান ও সাবেক দুই ইউপি চেয়ারম্যান গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

গত সোমবার রাত ও মঙ্গলবার পৃথক সংঘর্ষের স্থানীয় আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয় ভাংচুর, ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেনসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছে।

এ ঘটনায় এলাকায় দুই গ্রুপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে সাবেক চেয়ারম্যানের ৬ অনুসারিকে পুলিশ আটক করেছে। সংঘর্ষের ঘটনায় বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান একে অপরকে দোষারোপ করেছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ইকরামুল কবির জানান, ইদ পরবর্তী শুভেচ্ছা জানাতে সোমবার রাত আটটার দিকে বর্তমান চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন মুজগুন্নি গ্রামের আমিরের মোড়ে স্থানীয় কর্মীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করছিলেন। পাশের নির্মল দাসের চায়ের দোকানে বসে ছিলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মণিরুজ্জামান। এসময় চেয়ারম্যানের আলমগীর হোসেন নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ওই চায়ের দোকান গেলে দুই গ্রুপের কয়েকজন কর্মীর মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। কিছুক্ষনের মধ্য যুবলীগের হোসেন, কালামসহ প্রায় ৪০ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে চেয়ারম্যান আলমগীরসহ তার নেতাকর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এসময় বর্তমান চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান, সাবেক উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শ্রম বিষয়ক সম্পাদক অজিত ঘোষ, সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য ছবুরোননেছা, মামুন হোসেন, হাবিবুর রহমান, আব্দুর রহিমসহ অন্তত: ১২ জন আহত হন। স্থানীয়দের সহযোগীতায় আহতদেরকে উদ্ধার করে মণিরামপুর হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে ইউপি চেয়ারম্যান আলমলীগ হোসেনের অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় সোমবার রাতেই যশোরে নেয়া হয়। বর্তমানে তিনি কুইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অপরদিকে, হামলার ঘটনা নিয়ে ভিন্ন কথা বলেছেন সাবেক চেয়ারম্যান মণিরুজ্জামান মনি। তিনি বলেন, সোমবার দুপুরে আমার কর্মী বাঙ্গালীপুর গ্রামের হাবিবুর রহমানকে মারপিট করেন বর্তমান চেয়ারম্যানের চাচা আইয়ূব হোসেন। এরপর বিকালে চেয়ারম্যান আলমগীর নিজেই মুজগুনির হায়দারকে মারার হুমকি দেয় এবং সন্ধ্যায় তাকে মারপিট করে। এরপর মঙ্গলবার সকালে আমার আরেক অনুসারী আব্দুর রহিমকে আলমগীরের লোকজন মারপিট করেছে বর্তমান রহিম খুলনা একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আমার লোকজনকে মারছে আবার আমাদের নামে মামলা হচ্ছে।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে বর্তমান চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন জানিয়েছেন, নির্বাচনের পর থেকে সাবেক চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান ও তার লোকজন পরিকল্পিতভাবে তার কর্মী সমর্থকদের ওপর একের পর এক হামলা চালিয়ে এলাকায় সন্ত্রাসের রাম রাজত্ব কায়েম করে চলেছে।

এদিকে, ইউপি চেয়ারম্যানের আলমগীর হোসেনের উপর হামলার ঘটনায় যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের শ্যামকুড় মোড় থেকে ফকির রাস্তা পর্যন্ত ২ ঘন্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করে তার (আলমগীর হোসেনের) অনুসারীরা। প্রকৃত দোষীদের আটকের বিষয়ে আশাস্ত করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এরপর সড়ক অবরোধ তুলে নেয় তারা। শ্যামকুড় ইউনিয়ন জুড়ে উত্তেজনা বিরাজ করায় রাতেই অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। শ্যামকুড় ইউনিয়নের বিট অফিসার (এসআই) আব্দুল হান্নান জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শ্যামকুড় ইউনিয়নের এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার রাতেই পুলিশের একটি বিশেষ অভিযানে ৬ জনকে আটক করা হয়। আটকরা হলেন, উপজেলার জামলা গ্রামের হোসাইন আহম্মদ, শ্যামকুড় গ্রামের ফজলুর রহমান, মুজগুন্নি গ্রামের বাবুল হোসেন, রায়হান হোসেন, রেজাউল করিম ও হাফিজুর রহমান।

মণিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-ই-আলম সিদ্দীকি জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় ছয় জনকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড