• শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ৫ ভাদ্র ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সেতু নির্মাণ কাজ অর্ধেক করে ঠিকাদার লাপাত্তা 

  সোহেল রানা, সিরাজগঞ্জ

২৬ জুন ২০২২, ২০:৩৭
সেতু নির্মাণ কাজ অর্ধেক করে ঠিকাদার লাপাত্তা 
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া ফুলজোড় খালের উপর নির্মাণাধীন সড়ক সেতুর কাজ অর্ধেক শেষ করে গত এক বছর যাবত ঠিকাদার লাপাত্তা হয়ে গেছে (ছবি: অধিকার)

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া ফুলজোড় খালের উপর নির্মাণাধীন সড়ক সেতুর কাজ অর্ধেক শেষ করে গত এক বছর যাবত ঠিকাদার লাপাত্তা হয়ে গেছে। এতে এলাকাবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বারবার তাগাদাপত্র দেয়া হলেও কর্ণপাত করছে না।

জানা যায়, উপজেলার বড়হর ইউনিয়নের সড়াতৈল-অলিপুর আঞ্চলিক সড়কে সড়াতৈল গ্রামের পাশে ফুলজোড় খালের উপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) আওতায় ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লিটন এন্টারপ্রাইজ ২ কোটি ৬৩ লাখ ৩৭ হাজার ৭৯১ টাকা ব্যয়ে ৫৪ মিটার লম্বা সড়ক সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু করেন। নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার মেয়াদ ধরা হয় ২০২১ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর। ঠিকাদার সেতুটির প্রায় অর্ধেক কাজ শেষ হবার পর হঠাৎ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়ে লাপাত্ত হয়ে যায়। দীর্ঘ এক বছর যাবত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ না করে লাপত্তা রয়েছে।

সড়াতৈল মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান তালুকদার ও ইউপি সদস্য সদস্য সিরাজুল ইসলাম জানান, সড়াতৈল-অলিপুর আঞ্চলিক সড়কের মাঝে ফুলজোড় খাল পারাপারে দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছিল স্থানীয় লোকজন। বর্ষা মৌসুমে নৌকা এবং গ্রীষ্ম মৌসুমে বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার হতো লোকজন। এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ২০২০ সালে খালের উপর ৫৪ মিটার লম্বা একটি সড়ক সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। ওই বছরের অক্টোবর মাসে সেতু নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। সেতুটি প্রায় অর্ধেক কাজ শেষ হওয়ার পর ঠিকাদার আকস্মিকভাবে কাজ বন্ধ করে দিয়ে লাপাত্তা হয়ে যায়।

তারা জানান, প্রায় এক বছর মাস আগে সেতু নির্মাণ কাজ শেষ হবার কথা থাকলেও অদ্যাবদি পুনরায় কাজ শুরু হয়নি। কাজ শুরু না করায় সেতুর পাশে ফেলে রাখা নির্মাণ সামগ্রীও রোদ-বৃষ্টিতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

সড়াতৈল গ্রামের মাহমুদুল হাসান বাবলা ও শহিদুল ইসলাম ভুলু জানান, এলজিইডি’র উল্লাপাড়া উপজেলা অফিসকে বারবার তাগাদা দিলেও তারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না।

এলজিইডি’র উপজেলা প্রকৌশলী আবু সায়েদ জানান, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রায় এক বছর ধরে সেতুটির নির্মাণ কাজ বন্ধ রেখেছে। অফিস থেকে বারবার ঠিকাদারকে চিঠি দিলেও তাতে সাড়া না দেওয়ায় কয়েকদিন আগে চলতি মাসের ৩০ জুনের মধ্যে সেতুর অবশিষ্ট অংশের কাজ শুরু করার জন্য সময়সীমা বেঁধে দিয়ে শেষ তাগাদাপত্র দেয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে ঠিকাদার কাজ শুরু না করলে তার কার্যাদেশ বাতিল করে নতুন ঠিকাদারকে কাজ করার নির্দেশনা দেয়া হবে।

আরও পড়ুন: ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর সন্ত্রাসী হামলা, আহত ৮

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লিটন এন্টারপ্রাইজের মালিক মোরশেদুল ইসলাম লিটন জানান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের একটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার কাজ করতে গিয়ে খুব ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম। যে কারণে সড়ক সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারেননি। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই তিনি সেতুর অবশিষ্ট কাজ শুরু করবেন বলেও জানান তিনি।

ওডি/এমকেএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড