• মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কুমার নদীর লোহার সেতু যেন মরণফাঁদ!

  রয়েল আহমেদ, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ)

০৮ জুন ২০২২, ১০:৫৮
শৈলকুপায় কুমার নদীর লোহার সেতু যেন মরণফাঁদ!
ছবি : অধিকার

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় কুমার নদীর ওপরে নির্মিত লোহার(আয়রন) ব্রিজটি মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। ব্রিজটি সংস্কারের অভাবে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। পাটাতনে ৩টি সৃষ্ট বড় বড় গর্ত ও এক অংশ দেবে যাওয়ার ফলে যে কোনো সময় ঘটে যেতে পারে মারাত্মক দুর্ঘটনা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এলাকাবাসী লোহার ব্রিজটির ওপর দিয়ে চরম ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন। ব্রিজের উপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করছে অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে। তাছাড়া ব্রিজের ঝুঁকিপূর্ণ অংশে কোনো ধরনের সতর্কতা সংকেত টাঙানো হয়নি।

এছাড়া ব্রিজটি দিয়ে যানবাহনে পারাপারের সময় স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা দুর্ঘটনার আতঙ্কে থাকেন। এতে বিপাকে পড়েছেন অটোবাইক, মোটরসাইকেল, টেম্পো, রিকশা, ভ্যানসহ ব্রিজটির উপর দিয়ে চলাচলকারী বাহনের যাত্রীরা।

স্থানীয়রা জানান, ১৯৯৪ সালে বারইপাড়া-মধুপুর অংশে কুমার নদীর উপর দিয়ে এ আয়রন ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। প্রতিদিন শৈলকুপা পৌরসভা, কাঁচেরকোল, সারুটিয়া, দিগনগর, উমেদপুরসহ আশপাশের কয়েকটি ইউনিয়ন থেকে শত শত মানুষ দুর্ঘটনার শঙ্কা মাথায় নিয়ে চলাচল করছেন। ব্রীজটির পাটাতনে সৃষ্ট তিনটি গর্ত ও এক অংশ দেবে যাওয়ার ফলে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় প্রায়শই ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে। বিশেষ করে সন্ধ্যার পরে বেশি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন মানুষ। তাই দ্রুত সংস্কার করা না হলে ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। দুর্ঘটনা এড়াতে ব্রিজটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ লোহার ব্রিজ দিয়ে যাতায়াতকারী তহুর সিকদার নামে এক ভ্যানচালক জানান, প্রায় ৫/৬ মাস ধরে দেখছি এই গর্ত। ভ্যানের চাকা গর্তে পড়ে কয়েকদিন আগে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছি। আমার ভ্যানে থাকা যাত্রীও আহত হয়েছে। রাতে এই অংশ আরও বেশি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠে। এই ব্রিজে নতুন চলাচলকারীরা বেশি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। এভাবে চলতে থাকলে প্রাণহানীও ঘটতে পারে। যদি বড় ধরনের কোনও দুর্ঘটনা ঘটে যায়, তা হলে এর দায় কে নেবে?

শৈলকুপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতিমা লিজা জানান, লোহার ব্রিজটিতে সৃষ্ট গর্ত সম্পর্কে জেনেছি। সংস্কারের বিষয়ে প্রকৌশলীকে জানানো হয়েছে।

ওডি/ইমা

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড