• বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ছাত্রদের বলাৎকার করেও পার পেয়ে যায় স্কুলের দপ্তরি

  তানভীর লিটন, কুমারখালী-খোকসা (কুষ্টিয়া)

২৮ মে ২০২২, ১৫:৫৪
বারবার ছাত্রদের বলাৎকার করেও পার পেয়ে যায় স্কুলের দপ্তরি
অভিযুক্ত ধর্ষক হারুন-অর-রশীদ হারুন (ছবি: অধিকার)

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরির বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ে এক ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার সদকী ইউনিয়নের মালিয়াট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্লাস রুমে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত হারুনর-অর-রশীদ (২৭) ওই বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক কাম নৈশ্য প্রহরী হিসেবে কর্মরত আছেন। হারুন মালিয়াট পূর্বপাড়া গ্রামের পাগা প্রামাণিকের ছেলে। বলাৎকারের শিকারের ওই বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।

ভুক্তভোগী শিশুটি বলেন, হারুন ভাই আমাকে গত শুক্রবার (২০ মে) স্কুলে ডেকে এনে এই কাজ করে। আর বলে যদি এই কথা কারও কাছে যদি বলি, তাহলে আমাকে মেরে ফেলবে। এরপর হারুন ভাই আমার সাথে আরও দুইবার এমন কাজ করেছে।

ভুক্তভোগীর মা বলেন, আমার ছেলেকে গোসল করানোর সময় গোপনাঙ্গে খুব ব্যাথা অনুভব করে। আমি ছেলেকে ব্যাথার কারণ জিজ্ঞেস করলে, তখন বিষয়টি জানতে পারি। পরে শুক্রবার রাতে স্থানীয় নেতা রবিউল আউয়ালের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি মীমাংসা করে নেওয়ার কথা বলেন। আমি মীমাংসা করিনি। আমি এই হারুনের কঠিন বিচার চাই।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিশুর বাবা বলেন, এই হারুনের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বেও এমন অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী লোকের কারণে সে বারবার ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যায়।

এদিকে, বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী স্কুলের দপ্তরি হারুনের বিরুদ্ধে বলাৎকারের অভিযোগ তোলেন। ভুক্তভোগী বলেন, হারুন ভাই আমার সাথেও কিছুদিন আগে এমন কাজ করেছে। সে সময় ভিডিও ধারণ করে বলে জানায় শিশুটি।

এলাকাবাসী জানান, দপ্তরি হারুন সত্যিকারের একজন চরিত্রহীন লোক, তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতনের অনেক অভিযোগ রয়েছে। সামাজিকভাবে টাকা দিয়ে সমস্যা সমাধান হয়ে যায়, বিধায় হারুন আবারও এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটায়েই চলছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফিরোজ হোসেন বলেন, হারুনের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এর আগেও শুনেছি। আজ আবার এমন অভিযোগ শুনছি। যেহেতু বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে কোন ঘটনা ঘটেনি, সেহেতু এর দায়ভার বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নেবে না। আইনানুগভাবে যা করার তাই করা হোক।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদকী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিনহাজুল আবেদীন দ্বীপ বলেন, অফিস সহায়ক হারুন বিদ্যালয় ছুটির দিনে বিদ্যালয় খুলে জুয়ার আসর বসানোসহ নানা অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এসব কাজের সত্যতাও আছে।

তবে এমন অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে দপ্তরি হারুন বলেন, আমি এমন কাজ করিনি, আমাকে চাকরিচ্যুত করার জন্য একটি মহল গভীর ষড়যন্ত্র করছে। আমি এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত চাই।

আরও পড়ুন: শিশুদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, এই ঘটনা নিয়ে আজ (শনিবার) স্কুলে হট্টগোল শুরু হলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় অভিযুক্ত দপ্তরিকে না পেয়ে তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি জব্দ করা হয়। ঘটনার সুষ্ঠু নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওডি/এমকেএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড