• বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ডাক্তার আছে মেশিন নেই, ভোগান্তিতে রোগীরা

  নাজিম উদ্দীন (স্টাফ রির্পোটার) চট্টগ্রাম

২৬ মে ২০২২, ১৫:৩৯
ডাক্তার আছে মেশিন নেই, ভোগান্তিতে রোগীরা
ভোগান্তিতে রোগীরা । ছবি : অধিকার

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে মেশিন আছে ডাক্তার নেই। ডাক্তার আছে মেশিন নেই । এক্সরে ও ইসিজি মেশিন আছে ফিল্ম নেই। আল্ট্রাসনোগ্রাফি মেশিন আছে এক্সপার্ট নেই। ফলে কয়েকটি রোগের ডাক্তার ও রোগ নির্ণয়কারী মেশিন এবং মেশিন এক্সপার্ট টেকনিশিয়ান না থাকার কারণে চিকিৎসা নিতে আসা অনেক রোগীকে ভোগান্তি পোহাতে হয়।

হাসপাতালটিতে নাক-কান-গলার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আছে। তবে কাজ করার মতো যন্ত্রপাতি না থাকায় তারা টর্স মেরে দেন চিকিৎসা। চোখের কনসালটেন্ট নেই। ৩/৪ বছর আগে যখন ছিল তখন চোখ পরীক্ষার প্রধান মেশিন ছিল টর্চ লাইট। সার্জারি বিশেষজ্ঞ নেই, এনেস্থিসিয়া দেওয়ার মেশিন অকেজো। তাই এর সাথে সম্পর্কিত চিকিৎসা আছে এই হাসপাতালে পাওয়া যাচ্ছে না। এক্স-রে মেশিন আছে, জিন এক্সপার্ট মেশিন আছে যা শুধু যক্ষ্মা রোগীদের জন্যই প্রযোজ্য। অন্য রোগের জন্য ইসিজি করার ফ্লিম নেই। এক্সপার্টের অভাবে এবং দীর্ঘ ১০/১২ বছর যাবৎ অকেজো থাকায় আল্ট্রাসনোগ্রাফি মেশিনটিও সম্পূর্ণভাবে নষ্ট হয়ে পড়ে আছে।

অক্সিজেন ব্যবস্থাপনা করা হয়েছে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, আবুল খায়ের গ্রুপ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও হৃদয়বান ব্যক্তিবর্গের সহায়তায়। প্রতিটা সিটে অক্সিজেন সংযোগ রাখা হয়েছে। জরুরি ক্ষেত্রে রোগীকে অক্সিজেন দেয়ার জন্যেই এ ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

এ যাবৎ চারটি অ্যাম্বুলেন্স সরকার থেকে দেওয়া হয়েছে তারমধ্যে একটি ২৫/২৬ বছর পূর্বেই নষ্ট হয়ে পড়ে রয়েছে। এভাবে আরও দুটিও নষ্ট হয়ে পড়ে আছে।

গত ২৪ এপ্রিলে আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাহিদুল আলম, উপজেলা ভাইস চেয়াম্যান নুরুল আলম বাসেক, হাটহাজারী মডেল থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম, হাটহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা. সুরজিত দত্তসহ আরও অনেকের উপস্থিতিতে একটি অ্যাম্বুলেন্সের চাবি প্রদান করেন ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি কিন্তু দুর্ভাগ্য যে ওই পদের ড্রাইভার বা চালকও নাই। দীর্ঘদিন ধরে ড্রাইভারের পদটিও শূন্য রয়েছে। চালক না থাকার ফলে অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকলে এ অ্যাম্বুলেন্সটিও আগের ৩টির মতো অবস্থা হতে বেশি সময় লাগবে না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সচেতন জনগণ ও সেবা গ্রহীতারা।

এছাড়া এম এল এস এস পদ সংখ্যা ৯টি তার ৬টি পদই শূন্য। ফার্মাসিস্ট পদ-৭টি তারও ৬টি পদই শূন্য বা খালি পড়ে আছে। এসব সমস্যা সমাধানে স্থানীয়রা যথাযথ কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুরজিৎ দত্ত এ তথ্য প্রতিবেদককে জানান, বিভিন্ন পদ খালি থাকা সত্ত্বেও সাধ্যমত সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন এ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্মরত চিকিৎসক ও কর্মচারীরা।

এছাড়াও প্রত্যন্ত এলাকার রোগীদের সেবা প্রদানের জন্য পুরা উপজেলায় ৩৫টি কমিউনিটি ক্লিনিক ও ৫টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র রয়েছে ও জনবল সংকট নিরসনের জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ওডি/ওএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড