• বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গৃহবধূকে নির্যাতন, হাসপাতালে ভর্তি

  কাজী শাহরিয়ার রুবেল, বরগুনা

২৫ মে ২০২২, ২০:১৯
গৃহবধূকে নির্যাতন, হাসপাতালে ভর্তি
প্রতীকী ছবি

বরগুনার আমতলীর কৃষ্ণনগর গ্রামে সালমা (৩৮) নামে এক গৃহবধূকে ৫ লক্ষ টাকা যৌতুকের জন্য দু’দফা নির্যাতন করে আটক করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (২৫ মে) সকালে গুরুতর আহত ওই গৃহবধূকে প্রতিবেশী উকিল বাবা উদ্ধার করে আমতলী হাসপাতালে এনে ভর্তি করেন।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের কৃষ্ণনগর গ্রামের স্ত্রী বিপত্মীক মো. গেন্দু মিয়ার সাথে ঢাকার কেরানিগঞ্জের কুন্ডা ইউনিয়নের ব্রাম্মনগাঁও গ্রামের মৃত মমিন মাঝির মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা সালমার সাথে ২০২১ সালে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় সালমার পরিবার থেকে গেন্দু মিয়াকে বিভিন্ন উপঢৌকন দেওয়া হয়। বিয়ের এক বছর যেতে না যেতেই গেন্দু মিয়া সালমার নিকট তার বাবার বাড়িতে পাওয়া জমি বিক্রি করে ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক এনে দিতে বলেন।

সালমা এতে রাজি না হওয়ায় প্রায়ই গেন্দু মিয়া তাকে মারধর করেন। মঙ্গলবার সকালে সালমাকে মারধরের পর ঘরে আটকে রাখেন। বুধবার সকালে আবার তাকে যৌতুকের জন্য বাঁশের লাঠির দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। খবর পেয়ে সালমার উকিল বাবা প্রতিবেশী বাসিন্দা শিপন সরকার তাকে উদ্ধার করে আমতলী হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

আহত সালমা অভিযোগ করে বলেন, আমার স্বামী গেন্দু মিয়া আমার বাবার বাড়িতে পাওয়া জমি বিক্রি করে ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক এনে দিতে বলেন। আমি টাকা এনে দিতে রাজি না হওয়ায় প্রায়ই সে আমাকে মারধর করে। মঙ্গলবার আমাকে মারধর করে ঘরে আটকে রাখে। বুধবার সকালে আবার বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।

অভিযুক্ত গেন্দু মিয়া বলেন, আমি যৌতুকের জন্য মারধর করিনি। আমাকে ফাঁসানোর জন্য আমার স্ত্রী আমার বিরুদ্ধে এ ঘটনা সাজিয়েছে।

সালমার উকিল বাবা শিপন সরকার বলেন, গেন্দু মিয়া প্রায়ই সালমাকে যৌতুকের জন্য মারধর করে। মঙ্গলবার ও বুধবার বাঁশের লাঠি দিয়ে দু’দফা পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে আমি তাকে আজ সকালে উদ্ধার করে আমতলী হাসপাতালে এনে ভর্তি করি।

আমতলী হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. ফারাহ বলেন, গৃহবধূ সালমার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

আরও পড়ুন: টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের একাংশ মরণ ফাঁদ

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম মিজানুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে এখনও কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

ওডি/এমবকেএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড