• বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পানি তাল দ্বন্দ্বে চাচাকে কোপালেন ভাতিজা 

  কাজী শাহরিয়ার রুবেল, বরগুনা

২১ মে ২০২২, ১১:৪১
পানি তাল দ্বন্দ্বে চাচাকে কোপালেন ভাতিজা 
ছবি : অধিকার

বরগুনার আমতলীতে গাছ থেকে পানি তাল পাড়াকে কেন্দ্র করে ভাতিজা সাইদুল শিকদার (২২) কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে ছোট চাচা সুলতান শিকদারকে (৪৫)।

শুক্রবার (২০ মে) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর টেপুরা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে।

আহত চাচার অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর টেপুরা গ্রামের মৃত জয়নাল শিকদারের পুত্র সুলতান শিকদারের ভাগের একটি তালগাছের পানি তাল তার আপন বড় ভাই বাবুল শিকদার জনৈক এক ব্যক্তির কাছে গোপনে বিক্রি করেন। শুক্রবার দুপুরে ওই তালগাছের পানি তাল বাবুল শিকদারের পুত্র সাইফুল শিকদার জোর করে পাড়তে যায়। ওই তালগাছ চাচা সুলতান শিকদার তার ভাগের বলে দাবি করে গাছ থেকে পানি তাল পাড়তে নিষেধ করেন। তার নিষেধ অমান্য করে ভাতিজা সাইফুল গাছ থেকে জোরপূর্বক তাল পাড়তে যায়। পরে এ নিয়ে চাচা ভাতিজার মধ্যে কথা কাটাকাটি ও ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে সেখানে চাচা সুলতান শিকদারের বড় ভাই সাইফুলের পিতা বাবুল শিকদার, মা মিনারা বেগম, দুই বোন লাকি ও সাবিনা উপস্থিত হন।

এ সময় হঠাৎ করে ভাতিজা সাইফুল তার হাতে থাকা দাঁড়ালো দা দিয়ে চাচা সুলতান শিকদারকে মাথায় কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে। চাচা সুলতান শিকদারের ডাক চিৎকারে তার স্বজনরা এগিয়ে আসলে ভাতিজা সাইফুলসহ অন্যরা ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।

পরে স্বজনরা সেখান থেকে আহত সুলতান শিকদারকে উদ্ধার করেন। পরে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। এ সময় একাধিকবার বমি করায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মার্জিয়া তাজিন তাকে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. মার্জিয়া তাজিন বলেন, রোগীর মাথায় দাঁড়ালো অস্ত্রের আঘাত ও শরীরের বিভিন্নস্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। রোগীর অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় দ্রুত তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

আহত চাচা সুলতান শিকদারের স্ত্রী লাইলী বেগম মুঠোফোনে বলেন, আমাদের ভাগের একটি তাল গাছের পানি তাল গোপনে অন্যত্র বিক্রি করেন আমার বড় ভাসুর বাবুল শিকদার। শুক্রবারে জোর করে গাছ থেকে ওই পানি তাল পারতে গেলে আমার স্বামী এতে বাঁধা দেয়। এতে আমার স্বামীকে ভাসুর পুত্র সাইদুল শিকদার তার পিতার সামনেই দাঁড়ালো দা দিয়ে মাথায় কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করেছে। এর আগেও একবার আমার স্বামীকে পিটিয়ে আহত করেছিল তারা। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত ভাতিজা সাইফুল শিকদারের ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া গেছে। আমতলী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, বিষয়টি শুনেছি। এখনো কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে এর সত্যতা পেলে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নিব।

ওডি/ইমা

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড