• বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে আহত মা

  সুমন খান, লালমনিরহাট

১৩ মে ২০২২, ১৬:৫৩
ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে আহত মা
আহত। ছবি : অধিকার

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে দেবর শাহিনুর ইসলামের লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা জিন্না বেগম (৪০)।

বৃহস্পতিবার (৫ এপ্রিল) বিকাল ৫ টার দিকে ওই উপজেলার পাটিকাপাড়া ইউনিয়নের উত্তর পারুলিয়া ৩ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। এ বিষয়ে (১০ এপ্রিল) শাহিনুর ইসলামকে (৩৫) প্রধান আসামি করে হাতীবান্ধা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী। গুরুতর আহত জিন্না বেগম শাহিনুর ইসলামের বড় ভাই জাহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আহতের ননদ আরজিনা বেগমের সাথে দেবর শাহিনুরের পাওনা টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে জিন্না আক্তারের বড়ছেলে হ্রদয় ফুপুর পক্ষ নিলে চাচা শাহিনুর লাঠি দিয়ে হ্রদয়কে মারতে যায়। সে সময় ছেলে হ্রদয়কে বাঁচাতে গেলে দেবর শাহিনুর ভাবীকে এলোপাথাড়ি মারতে থাকে। মারধরের এক পর্যায়ে জিন্না জ্ঞান হারিয়ে ফেললে ছেলে হ্রদয়ের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য উপজেলা কমপ্লেক্স এ ভর্তি করেন।

সংবাদ প্রকাশ পর্যন্ত আহত নারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

গুরুতর আহত জিন্না আক্তার বলেন, আমার দেবর শাহিনুর কোনো মানুষ না সে একটা জানোয়ার। কোনো মানুষ মহিলাকে এভাবে মারতে পারে। আমার জায়গায় ছেলে হ্রদয় হলে তাকে তো সে মেরেই ফেলত। দেবর শাহিনুরকে আইনের মাধ্যমে কঠোর শাস্তি দাবি করেন ভুক্তভুগি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শাহিনুর ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি আমার ভাতিজাকে লাঠি দিয়ে মারতে গিয়েছিলাম কিন্তু কিভাবে যে ভাবীর গায়ে আঘাত লাগল বুঝতে পারিনি।

হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ এরশাদুল আলম বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত চলমান আছে দোষী ব্যক্তিকে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

ওডি/ওএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড