• বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দুই সপ্তাহ ধরে পাওয়া যাচ্ছে না পেট্রল-অকটেন!

  মাজেদুল ইসলাম হৃদয়, ঠাকুরগাঁও

০৫ মে ২০২২, ২১:২২
দুই সপ্তাহ ধরে পাওয়া যাচ্ছে না পেট্রল-অকটেন!
ফিলিং স্টেশনে পেট্রল ও অকটেন সরবরাহের ট্যাংকগুলো পলিথিনে মোড়ানো, ফিরে যাচ্ছেন ক্রেতা (ছবি: অধিকার)

ঠাকুরগাঁওয়ের ফিলিং স্টেশনগুলোতে দুই সপ্তাহ থেকে পাওয়া যাচ্ছে না পেট্রল ও অকটেন। পেট্রল ও অকটেন নির্ভর বিভিন্ন যানবাহনের চালকরা বিপাকে পড়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৫ মে) বেলা ১১টায় জেলা শহরের ফিলিং স্টেশনগুলোতে সরজমিনে দেখা যায়, শহরের বাঁধন কাকন ফিলিং স্টেশন, চৌধুরী ফিলিং স্টেশন, মির্জা ফিলিং স্টেশন, রুপসী বাংলা ফিলিং স্টেশন, সুপ্রিয় ফিলিং স্টেশনে পেট্রল ও অকটেন সরবরাহের ট্যাংকগুলো পলিথিনে মোড়ানো রয়েছে। সেখানে লিখে দেওয়া হয়েছে পেট্রল ও অকেটন শেষ। প্রায় ১৫ দিন ধরে পেট্রল পাওয়া যাচ্ছে না। আর বুধবার থেকে পাওয়া যাচ্ছে না অকটেন।

তবে পেট্রল পাম্প কর্তৃপক্ষ এবং খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, ডিপো থেকে পেট্রল সরবরাহ বন্ধ থাকায় এ সংকটের সৃষ্টি হয়েছে। কবে নাগাদ সমস্যার সমাধান হবে তা কেউ বলতে পারছেন না। এতে পেট্রলের তীব্র সংকটে বিকল্প হিসেবে অকটেন ব্যবহার করছিলেন আরোহীরা এখন এটাও প্রায় শেষ।

মোটরসাইকেল চালক আল মামুন জীবন বলেন, ‘ইদের তিনদিন আগে শহর থেকে বালিয়াডাঙ্গী আসার পথে একটি পাম্পে পেট্রল কিনতে গেলে তারা বলে শেষ হয়ে গেছে। কী কারণে পেট্রল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে তার সঠিক উত্তর দিতে পারছে না ফিলিং স্টেশন কর্তৃপক্ষ।

আরেক মোটরসাইকেল চালক রাকিব বলেন, পেট্রোল না পাওয়ার কারণে আমরা চরম দুর্ভোগে আছি৷ গতকাল (বুধবার) থেকে আবার অকটেন পাওয়া যাচ্ছে না। ইদের সময় আমরা যারা ছুটি নিয়ে বাসায় আসি আমাদের জন্য এটা অনেক কষ্টের। এবারে ইদে মোটামুটি রকম ছুটি বেশি পাওয়া গেছে৷ আমরা আত্মীয়-স্বজনদের বাড়ি যাওয়ার জন্য প্রস্তুতিও নিয়েছি। কিন্তু শহরের কোথাও কোনো পাম্পে পেট্রোল ও অকটেন পাওয়া যাচ্ছে না৷ এটি কি আসলে পাম্প মালিকদের কোন ধরনের সিন্ডিকেট নাকি সরবরাহ নেই। তবে যাই হোক ডিপোতে এই বিষয়টি প্রশাসনের খতিয়ে দেখা দরকার বলে আমি মনে করছি। আর দ্রুত সময়ের মধ্যে বিষয়টি সমাধানও চাই।

পেট্রল সংকটের বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের ফিংলি স্টেশনের ম্যানেজার রুহুল আমিন বলেন, ‘ডিপো থেকে কী কারণে পেট্রল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে তা আমার জানা নেই। পেট্রল না দিতে পারায় আমাদের অনেক কাস্টমার ফিরে যাচ্ছে। এ সমস্যা ঠাকুরগাঁওয়ের সব ফিলিং স্টেশনেই। আমরা দ্রুত এর সমাধান চাই।’

কিছু বড় বড় গ্যালন নিয়ে চৌধুরী ফিলিং স্টেশনে এসেছেন প্রাইভেটকার চালক সৌরভ। গ্যালন নিয়ে আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি পেট্রলে গাড়ি চালাই। তবে পেট্রল না থাকায় এতদিন অকটেন ব্যবহার করছিলাম। কিন্তু অনেক পাম্পে এখন অকটেনও পাওয়া যাচ্ছে না। তাই গাড়ির ট্যাংক ফুল করে গ্যালনেও স্টক করে নিচ্ছি। কারণ অকটেনও যদি শেষ হয়ে যায়, তাহলে গাড়ি বাসায় বসে থাকবে।’

অকটেনের সংকট দেখিয়ে স্টেশন বন্ধ করা বাঁধন কাঁকন ফিলিং স্টেশনের ম্যানেজার রশিদুল ইসলাম জানান, ঈদে আগেই পেট্রল শেষ হয়ে গেছে। এতে অকটেনের ওপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হয়েছে এবং দ্রুত শেষ হয়ে গেছে।

চৌধুরী ফিলিং স্টেশনের কর্মরত ম্যানেজার প্রফুল্ল বলেন, আমি পার্বতীপুর, বাঘাবাড়িসহ যে সকল ডিপো থেকে তেল আনি, সব জায়গায় যোগাযোগ করেছি৷ তারা বলছেন তাদের কাছে নেই৷ প্রায় পাঁচ ছয়দিন থেকে আমরা কোন ধরনের পেট্রোল পাইনি৷ তবে তারা বলছে দেখছি আর চেষ্টা করছি৷

এ নিয়ে পার্বতীপুর ডিপোর সাথে যোগাযোগ করা হলে সেখানকার ইনচার্জ ফারুক হোসেন বলেন, ডিপোতে তেল না থাকার কারণে তারা ফিলিং স্টেশনগুলোতে সরবরাহ দিতে পারছেন না। তবে তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও জানান তিনি৷

ঠাকুরগাঁও পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এনামুল হক জানান, শহরের কোন পেট্রোল পাম্পে পেট্রোল নেই। যে কয়েকটাতে ছিল সেগুলোও শেষ হয়ে গেছে। আমি বগুড়া, খুলনা ডিপোতে কথা বলেছি। তারা বলেছে তাদের কাছে আসলে তারা আমাদের পাঠাবে। আমরা যোগাযোগ অব্যহত রেখেছি। আশা করছি বিষয়টি নিরসন হবে৷

তিনি আরও বলেন, জেলায় ৩৬টি ফিলিং স্টেশন রয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ২৪টি, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় দুটি, হরিপুর উপজেলায় দুটি, রাণীশংকৈল উপজেলায় চারটি এবং পীরগঞ্জ উপজেলায় চারটি ফিলিং স্টেশন রয়েছে। জেলায় দৈনিক পেট্রল, অকটেন ও ডিজেলের চাহিদা রয়েছে প্রায় ৯০ হাজার লিটার। এর মধ্যে পেট্রল ২৩ হাজার লিটার, অকটেন সাড়ে ১৬ হাজার লিটার ও ডিজেলের চাহিদা ৫০ হাজার লিটার।

আরও পড়ুন: মশা মারতে গিয়ে গৃহস্থের স্বপ্ন ছাই

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, এটা নিয়ে আমরা কথা বলেছি। আসলেই পেট্রোল সরবরাহ কম আছে। ডিপোগুলোতে একই অবস্থা। পার্বতীপুর ডিপোতে আমরা কথা বলেছি৷ সেখানেও সরবরাহ অনেক কম। আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি স্বল্প সময়ের মধ্যে সমস্যাটি সমাধান হবে৷

ওডি/এমকেএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড