• বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ক্যাম্প পালানো ২০৩ রোহিঙ্গা আটক 

  এম. সালাহ উদ্দিন আকাশ, উখিয়া (কক্সবাজার)

০৫ মে ২০২২, ২০:৪৭
ক্যাম্প পালানো ২০৩ রোহিঙ্গা আটক 
কক্সবাজারের উখিয়ায় আটক রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর একাংশ (ছবি: অধিকার)

কক্সবাজারের উখিয়ায় অভিযান পরিচালনা করে ক্যাম্প পালানো ২০৩ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে ৮ এপিবিএন (আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন)। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোঃ কামরান হোসেন।

বৃহস্পতিবার (৫ মে) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের ক্যাম্পসমূহের চেকপোস্ট সংলগ্ন বাইরের এলাকা এবং ক্যাম্প এলাকার বাইরে থেকে চেকপোস্ট দিয়ে ভেতরে গমনকালে মোট ২০৩ রোহিঙ্গা সদস্যকে আটক করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোঃ কামরান হোসেন বলেন, ইদুল ফিতর উপলক্ষ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারকরণ এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে রোহিঙ্গা সদস্যদের ক্যাম্প এলাকার বাইরে গমন রোধে এ সাড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এ ধরণের অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করা হলেও ইদ উপলক্ষ্যে তা জোরদার করা হয় যা চলমান থাকবে। এছাড়া আটককৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ক্যাম্প-ইন-চার্জ (সিআইসি) দের মাধ্যমে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, গতকাল কক্সবাজার সৈকতে পর্যটকদের সাথে মিশে যাওয়া শত শত রোহিঙ্গা থেকে কক্সবাজার জেলা পুলিশ মাত্র কয়েক ঘণ্টা সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে সমুদ্র সৈকতসহ শহর থেকে ৪৪৩ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে। এর মধ্যে দুই শতাধিক আটক হয়েছে কেবল সমুদ্র সৈকত থেকেই। উখিয়া ও টেকনাফের শিবির ছেড়ে কক্সবাজার সৈকতে এসে পর্যটকদের মতো করেই এসব রোহিঙ্গারা ইদের আনন্দ উপভোগ করছিল। এর মধ্যে একজন সাগরে গোসল করতে গিয়ে একজনের মৃত্যুও ঘটেছে।

গতকাল (বুধবার) ইদ পরবর্তী দেশের বিভিন্নস্থান থেকে অন্তত লাখো পর্যটকের সমাগম ঘটেছে কক্সবাজার সৈকতে। সাগর পাড়ের হোটেল-মোটেলগুলোর কোনো কক্ষই এখন খালি নেই। সৈকতে গিজ গিজ করছে পর্যটকে। এমন পরিস্থিতিতে লাখো পর্যটকের সাথে রোহিঙ্গাদের একাকার হবার বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন এবং সচেতন মহলকে ভাবিয়ে তুলেছে।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান জানিয়েছেন, রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের সরকার উখিয়া ও টেকনাফে নির্ধারিত স্থানে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় রোহিঙ্গাদের খাওয়া-দাওয়াসহ নানা সুযোগ-সুবিধা দিয়ে রাখা হয়েছে। রোহিঙ্গাদের শিবিরের বাইরে যাবার কোনো সুযোগ নেই।’

পুলিশ সুপার আরও জানান, শিবির ছেড়ে শত শত রোহিঙ্গা কক্সবাজারের নানা স্থানে ছড়িয়ে পড়ায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির দিন দিন অবনতি ঘটছে। আটক রোহিঙ্গাদের আপাতত শিবিরে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে তাদের ভাসানচরে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

কক্সবাজার রোহিঙ্গা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন, কক্সবাজার সৈকতে আটক হওয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে শিবির থেকে আসা বিপুল সংখ্যক মাদরাসায় পড়ুয়া আলখেল্লা পরিহিত রোহিঙ্গাও রয়েছে। এসব রোহিঙ্গাদের নিয়ে নানা সন্দেহও দেখা দিয়েছে।

আরও পড়ুন: মোটরসাইকেলই কাল হল আরোহীর

তিনি আরও জানান, মাত্র কয়েক ঘণ্টার অভিযানে যদি এত বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা আটক হয়ে থাকে, তাহলে পুরো কক্সবাজার জেলা শহরে কত হাজার থেকে লাখ রোহিঙ্গায় ভরে গেছে তা ভাবনার সময় এসেছে।

ওডি/এমকেএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড