• বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

টানা তিন দিনের ছুটিতে পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ

  রফিক খান, মানিকগঞ্জ

১৭ মার্চ ২০২২, ১৬:২৮
সকাল থেকেই পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে যানবাহনের আধিক্য পরিলক্ষিত হয়েছে (ছবি: সংগৃহীত)

টানা তিন দিনের সরকারি ছুটিতে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার প্রবেশদ্বার পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ক্রমশ যানবাহনের চাপ বাড়তে শুরু করেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) সকাল থেকেই পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে যানবাহনের আধিক্য পরিলক্ষিত হয়েছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দুপুর পর্যন্ত ঘাট এলাকায় বাস, ট্রাক ও ব্যক্তিগত গাড়িসহ প্রায় এক হাজার যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।

চাপ সামলাতে ৪টি ঘাট দিয়ে ছোট-বড় মিলিয়ে ২০টি ফেরি যানবাহন পারাপার করছে। তবে নাব্যতা সংকটে যানবাহন পারাপারে ফেরিগুলোতেও স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি সময় লাগছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

মানিকগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের আরিচা পয়েন্টের গ্রেজ রিডার ফারুক হোসেন জানিয়েছেন, বিগত ৭ দিনে যমুনা নদীতে ৩০ সেন্টিমিটার পানি হ্রাস পেয়েছে। ফলে নাব্যতা সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে।

পূর্বে ফেরি পার হতে ৩০-৩৫ মিনিট সময় লাগত। আর বর্তমানে নাব্যতা সংকটের কারণে প্রায় ১ ঘণ্টা সময় লাগছে। ঘাট এলাকার তীব্র যানজট এবং ফেরি পার হতে অতিরিক্ত সময় লাগার কারণে গরমে যাত্রীদের মধ্যে ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে।

বিআইডব্লিউসির আরিচা কার্যালয়ের উপ-ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মহিউদ্দিন রাসেল বলেন, ‘টানা তিন দিন সরকারি ছুটি হওয়ায় যানবাহনের চাপ অনেকটা বেড়েছে। তবে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া উভয় ঘাটে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ২০টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে।’ যাত্রীবাহী বাস ও জরুরি পণ্যবাহী ট্রাক অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

ওডি/কেএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড