• শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০২৩, ১৭ চৈত্র ১৪২৯  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

২০ বছরেও শেষ হয়নি ব্রিজ নির্মাণ, দুর্ভোগে ৬ গ্রামবাসী

  তৌকির আহাম্মেদ হাসু, সরিষাবাড়ী (জামালপুর)

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৫:৫৪
ভোগান্তি
বর্ষাকালে ভোগান্তি বাড়ে ছয় গ্রামবাসীর (ছবি : অধিকার)

এক-দুই বছর নয়, ২০ বছরেও সম্পন্ন হয়নি গ্রামীণ সেতুটির নির্মাণকাজ। প্রায় ৮ হাজার মানুষের নিত্যভোগান্তি আর গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়ে আছে সেতুটি। জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের টাকুরিয়া গ্রামের হালিম মেম্বারের বাড়ির পার্শ্বে এই অসম্পন্ন সেতুর অবস্থান। বিন্নাফৈর, মালিপাড়া, ব্রাম্মণজানি, টাকুরিয়া, গাছ বয়ড়া, বয়ড়া ও চর সরিষাবাড়ী এলাকাবাসীর যাতায়াতের পথ এটি। কিন্তু সেতুটি পরিপূর্ণভাবে নির্মিত না হওয়ায় চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়ে আছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, এলাকাবাসী সেতুর নিচ দিয়ে যাতায়াত করছেন। শুধু তাই নয়, মোটরসাইকেল আরোহীরাও যাত্রীসমেত সেতুর নিচ দিয়ে আসা-যাওয়া করছেন।

পোগলদিঘা ইউনিয়নের টাকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দারা জানান, মালিপাড়া, টাকুরিয়া, ব্রাম্মণজানি, গাছ বয়ড়া, বয়ড়া ও চর সরিষাবাড়ী এলাকার বাসিন্দাদের চলাচলের জন্যে ২০০১ সালে সরকারি অর্থায়নে ব্রিজটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। নির্মাণকাজ শুরু করার পর পিলারের কাজ শেষ হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত স্পেন বসানোর কাজ করা হয়নি। স্থানীয়দের অভিযোগ, কাজ শেষ না করেই ঠিকাদার বিল তুলে নিয়ে লাপাত্তা। এতে এলাকার প্রায় ৮ হাজার বাসিন্দা ভোগান্তিতে রয়েছেন।

মালিপাড়ার বাসিন্দা ওয়াছিম উদ্দিন বলেন, খুব সম্ভব ২০০১ সালে ব্রিজটির নির্মাণকাজ শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু পিলারের কাজ শেষ হওয়ার পরেও ২০ বছরে হয়নি স্পেন বসানোর কাজ। তারপর বিভিন্ন সময় ইউনিয়নের মেম্বার, চেয়ারম্যানকে স্পেন বসানোর ব্যবস্থা করে দেওয়ার কথা জানালেও আশা দিয়ে কেউ এটি ঠিক করে দেয়নি। ফলে অকেজো অবস্থায় রয়েছে ব্রিজটি।

ব্রিজটির এই বেহাল দশা ২০ বছরেও সম্পন্ন না হওয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। তারা বলেন, সরকারিভাবে সেতুটি নির্মাণ করা হলেও কাজ শেষ করা হচ্ছে না। একই এলাকার বাসিন্দা মুসলিম মিয়া বলেন, এই ব্রিজটির কাজ আজও শেষ হয়নি। বর্ষার দিন এলে আমরা পানির জন্য ঘরের বাইরে যেতে পারি না। আজাহার আলী নামে আরেকজন বলেন, এই সেতুটি পরিপূর্ণভাবে তৈরি না হওয়ার ফলে প্রায় ৮ হাজার মানুষ ভোগান্তির শিকার। এটি মেরামত করার জন্যে মেম্বার, চেয়ারম্যানের কাছে অনেকবার গিয়েছি, কোনো কাজ হয়নি। এই রাস্তা পাড়ি দিয়ে প্রতিদিন আমাদের সরিষাবাড়ী থানা সদরে যেতে অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

ব্রাম্মণজানি কলেজের শিক্ষার্থী শিহাব উদ্দিন বলেন, এই ব্রিজটি চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় বর্ষাকালে আমরা স্কুল-কলেজে যেতে পারি না। আমাদের ঝুঁকি নিয়ে পানি পেরিয়ে স্কুল-কলেজে যেতে হয়। পানির কারণে আমরা স্কুল-কলেজে সময়মতো যেতে পারি না। সরকার এতো টাকা ব্যয় করে ২০ বছর আগে ব্রিজটির কাজ শুরু করে মানুষের উপকারের জন্যে। অথচ জরাজীর্ণ অবস্থাতেই ব্রিজটি পড়ে রইলো। আমরা ব্রিজটির স্পেন বসানোর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

আরও পড়ুন : প্রবাসী স্বামীকে দেউলিয়া করে স্ত্রী উধাও

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা প্রকৌশলী জাহিদুল ইসলাম দৈনিক অধিকারকে বলেন, এই সেতুটি সম্পর্কে আমি জেনেছি। সরজমিন পরিদর্শন করে জনগুরুত্ব বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড