• মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পুলিশ-প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনই ঝুঁকি : তৈমূর

  তুষার আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ

১৫ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৪১
সংবাদ সম্মেলন
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্যকালে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার। ছবি : অধিকার

পুলিশ-প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনকেই ঝুঁকি হিসেবে দেখছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার। একই সাথে তৈমূর ও তার কর্মীদের পেটানোর জন্যই কেন্দ্রগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন বিএনপি থেকে আসা এ স্বতন্ত্র প্রার্থী।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর মিশনপাড়া এলাকায় ডাকা এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

তৈমূর বলেন, আমি পুলিশ-প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনকেই ঝুঁকি হিসেবে দেখছি। কেন্দ্রগুলোতে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে আমাদের পিটানোর জন্য। এটাতো নিরপেক্ষ হলো না। তারা নিরপেক্ষ থাকলে কোনোকিছুই ঝুঁকিপূর্ণ না।

এ দিকে, সিটি নির্বাচনকে যুদ্ধের ময়দান হিসেবে দেখছেন এই স্বতন্ত্র প্রার্থী। এ প্রসঙ্গে তৈমূর বলেন, যুদ্ধের ময়দানে আছি। যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলা করব। যা আছে কপালে তাই হবে। এবারের নির্বাচনের কোনো কেন্দ্রকেই আমি ঝুঁকি মনে করি না। কারণ নগরীর বাসিন্দাদের ওপর আমার আস্থা রয়েছে।

আরও পড়ুন : জেলের জালে ৩৫ কেজির রুই!

তৈমূর আলম বলেন, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর নানক এক সঞ্চালকের প্রশ্নের জবাবে চ্যানেল আইকে বলেছেন, ‘তারা ১২ ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ড ঝুঁকিপূর্ণ মনে করছেন বলেই ডিসি ও এসপিকে বিষয়টি সম্পর্কে জানাতে গিয়েছি। ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আমি। আমার ছোট ভাই বিগত ১৮ বছর যাবৎ এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। ১২ নম্বর ওয়ার্ড হলো সরকারি দলের এমপিদের ওয়ার্ড। এখন তারা নিজ দলের এমপিদের ওয়ার্ডকেই ঝুঁকিপূর্ণ মনে করে। তাদের মধ্যে কি পরিমাণ বিরোধ রয়েছে এখন এটাই প্রতীয়মান হচ্ছে।’

ওডি/নিলয়

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড