• মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮  |   ১৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

১১ বিধি-নিষেধ না মানলে জেল-জরিমানা

  এম কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি

১৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:৪১
জনগণকে সচেতন করা হচ্ছে (ছবি : অধিকার)

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক বেঁধে দেওয়া ১১ বিধি-নিষেধ না মানলে জেল-জরিমানার বিধান রেখেছে সরকার। এই আদেশ বহাল রেখে সারাদেশের জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের কাছে প্রজ্ঞাপন পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সকাল থেকে কার্যকর হয়েছে ১১ বিধি-নিষেধ।

এদিকে রাঙামাটিকে করোনা রেড জোন ঘোষণা করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন মহল। গত ১২ জানুয়ারি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মতে কেবলমাত্র একজনই ভর্তি আছেন সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে। রাঙামাটি জেলা করোনা রেড জোন ঘোষণা করায় আতংক বেড়েছে অনেকের মধ্যে।

বিভিন্ন মহলের উদ্বেগ, বাংলাদেশের ৬৪ জেলার মধ্যে রাঙামাটি জেলা স্বাস্থ্য সচেতনতায় অনেকটা এগিয়ে। রাঙামাটি জেলার মানুষ করোনার প্রথম থেকে এখন পর্যন্ত শতভাগ মাস্ক ব্যবহার করে আসছে। তারপরও এ জেলাকে করোনা রেড জোন ঘোষণা করল স্বাস্থ্য অধিদফতর। স্থানীয় প্রশাসনও এ নিয়ে রীতিমত হতাশ। তবে সরকার ঝুঁকি আছে মনে করে আগে থেকেই রাঙামাটি জেলাকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

গত নভেম্বরে এখানে রোগীর সংখ্যা ছিল ৮ জন। ডিসেম্বরে ২৭ জন এবং গতকাল পর্যন্ত রাঙামাটি জেলায় এই সংখ্যা ২৪ জন। এটা শুধু পর্যটকদের আসার কারণে হয়েছে বলবো না। এখানকার অনেক লোক বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে যায়। বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এখানে লোকও আসে। তবে সীমান্তবর্তী এলাকা নিয়ে আমাদের বেশি ভীত-সন্ত্রস্ত হওয়ার কোনো প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না।

করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে নিজেদের সক্ষমতা উল্লেখ করে সিভিল সার্জন বলেন, ‘মন্ত্রী পরিষদ থেকে স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সেগুলোর ব্যাপারে ইতোমধ্যে আমরা সার্কুলার করেছি। এবং আমাদের কোভিড ইউনিট প্রস্তুত আছে। সেখানে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সাপ্লাই, পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যকর্মী ও ওষুধ পত্রসহ প্রয়োজনীয় লজিস্টিকও আছে।’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য মতে, উচ্চঝুঁকি থাকায় ঢাকা ও রাঙামাটি জেলা সংক্রমণের রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া মধ্যম ঝুঁকির তালিকায় ৬ জেলাকে ‘হলুদ জোন’ এবং কম ঝুঁকির ৫৪ জেলাকে সবুজ জোন বলে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ফের ঊর্ধ্বমুখী হওয়ায় করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য অধিদফতর। সেখানে সংক্রমণের উচ্চঝুঁকি, মধ্যম ঝুঁকি ও কম ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করা হয়। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৪৫ জনের। এর মধ্যে তিনজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৬.৬৭%।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) নিজের কার্যালয়ে সিভিল সার্জন বলেন, রোগী শনাক্তের হার ১০ থেকে ১৯ শতাংশ হলেই সেখানে রেড জোন ঘোষণা করা হচ্ছে। তার ভিত্তিতেই রাঙামাটিকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। গত সপ্তাহে আমাদের রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৮ জন। সেই হিসেবে আমি মনে করি যে সংখ্যাটা খুব একটা বেশি নয়। শুধু এখানে আমাদের পরীক্ষা সংখ্যা কম হওয়াতে এই শতাংশ বেড়ে গেছে।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, করোনা রেড জোন ঘোষণা করার সময় এখনো হয়নি। তবে সরকার হয়তোবা ঝুঁকি মনে করেছেন তাই রেড জোন ঘোষণা করেছেন। ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক ১১ বিধি-নিষেধ দাফতরিক আদেশ পেয়েছি। আজ থেকে জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ করোনা বিধি-নিষেধ জনগণকে সচেতন করতে মাঠে থাকবে। আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিধি-নিষেধ না মানলে প্রয়োজনে জেল-জরিমানা করা হবে।

আরও পড়ুন : ঐতিহ্যের ধারক বাঁশখালীর বখশি হামিদ জামে মসজিদ

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে বনরুপা কাঁচা বাজার, রিজার্ভ বাজার, তবলছড়ি ও কলেজগেট এলাকায় করোনা সচেতনতায় জনগণের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ও পুলিশ সুপার মীর মোদদাছছের হোসেন। এ সময় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং বনরুপা বাজার, তবলছড়ি বাজার, রিজার্ভ বাজার ও কলেজগেট ব্যবসায়ী মহলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড