• বুধবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

প্রসূতি মায়েদের আস্থা রুপসীপাড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র

  নুরুল করিম আরমান, লামা (বান্দরবান)

১৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৪:৫০
প্রসূতি মা
প্রসূতি মা (ছবি : অধিকার)

কয়েক বছর আগেও স্বাস্থ্যসেবায় জরাজীর্ণ ছিল বান্দরবানের লামা উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকার রুপসীপাড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র। নিয়মিত রুটিন কাজ হলেও মাতৃত্বস্বাস্থ্য সেবা ও প্রসূতি মায়েরাও অন্য রোগীদের মতো ছুটে যেতেন কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম মেডিক্যালসহ বিভিন্ন প্রাইভেট স্বাস্থ্য কেন্দ্রে। কিন্তু এখন বদলে গেছে এই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের সেবার মান। প্রসূতি সেবাদানে এই কেন্দ্র এখন অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে উঠেছে। বর্তমানে গর্ভবতী ও প্রসূতিদের কাছে নিরাপদ সন্তান প্রসবের আস্থা হয়ে উঠেছে এটি।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সর্বপ্রথম প্রাতিষ্ঠানিক নিরাপদ সন্তান প্রসব (ডেলিভারি) শুরু হয় এ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে। ইতোপূর্বে কেউ কোনো গর্ভবতী মা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে নিরাপদ প্রসব করতে এ কেন্দ্রে আসেনি। এমনটি জানিয়েছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিং প্রু মার্মা।

তিনি আরও বলেন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের পাশাপাশি গর্ভবতী মায়েদের নিরাপদ প্রসব করতে কেন্দ্রটিকে উপযোগী করে তুলেছেন মাতৃত্ব স্বাস্থ্যসেবা মান উন্নয়নের জাতীয় প্রোগ্রাম ‘মামনি-এমএনসিএস’ প্রকল্প। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সাথে সমন্বয় রেখে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বেসরকারি সংস্থা ‘সেভ দ্যা চিলড্রেন’ ও ‘গ্রীন হিল।’

জানা যায়, বর্তমানে এ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে আশেপাশের ইউনিয়নগুলোতে। নিরাপদে সন্তান প্রসবের জন্য দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি। পরিচ্ছন্ন পরিবেশে বিনা খরচে সন্তান প্রসব শেষে হাসিমুখে বাড়ি ফিরে যান মায়েরা। কেন্দ্রটিতে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ থেকে এক উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার, মামনি প্রকল্প থেকে মিডওয়াইফ একজন চিকিৎসাসেবা প্রদান করছেন। এছাড়াও মাঠে পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক, পরিবার কল্যাণ সহকারী, স্বেচ্ছাসেবী তাদের নিরলস প্রচেষ্টায় এই সেবাকেন্দ্র আজ জনগণের কাছে বহুল আলোচিত।

প্রসূতি সেবা নিতে আসা ইউনিয়নের দুর্গম ৪ নম্বর ওয়ার্ড এ মন্ডুপাড়া বাসিন্দা জিপি মার্মা জানায়, ‘লোকমুখে এটার কথা শুনে এসেছি। মঙ্গলবার সকালে আমার প্রসবজনিত ব্যথা ও পানি ভাঙে। দ্রুত এই কেন্দ্রে চলে আসলে নিরাপদে আমার একটি ছেলেসন্তান জন্ম হয়।’

এ বিষয়ে মিডওয়াইফ রিটু চাকমা জানান, এখানে ২৪ ঘণ্টা নরমাল ডেলিভারি করানো হয়। যখনই প্রসূতি আসেন তখনই সেবা দেওয়া হয়।

এদিকে এ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার প্রিয়া দে বলেন, এখানে যারা আসেন তাদের সকলকে সাধ্যমতো চিকিৎসা দেওয়া হয়। সন্তান হওয়ার পরও নিয়মিত স্বাস্থ্য সেবা ও পরামর্শ পান এখানকার রোগীরা। শুধু প্রসূতি মায়েরা নন, অন্যান্য রোগীরা এখান থেকে পরামর্শ ও ওষুধ নেন। অধিক গুরুতর রোগ ও রোগীর ক্ষেত্রে উপজেলা হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেন তারা।

আরও পড়ুন : শিমের রাজ্য পূর্বাচল

এ বিষয়ে লামা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জোবাইরা বেগম জানান, রুপসীপাড়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রটি উপজেলাতে একটি মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করতে শুরু করেছে। জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে উপ-পরিচালক ডা. অংচালুর আন্তরিকতায় বর্তমানে এই কেন্দ্রে সেবার মান দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই এই কেন্দ্রের সফলতা দেখে পুরো ইউনিয়নের মানুষের এখন একমাত্র ভরসা স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড