• মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিশৃঙ্খলায় বন্ধ শিক্ষার্থীদের টিকাদান কার্যক্রম

  তন্ময় কুমার সাহা, রায়পুরা (নরসিংদী)

১০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:৫৭
দুর্ভোগের শিকার টিকা নিতে আসা বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা (ছবি : অধিকার)

নরসিংদীর রায়পুরায় সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা না থাকায় দিনব্যাপী দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন দূর-দূরান্ত থেকে করোনার টিকা নিতে আসা বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। উপজেলায় একটি মাত্র কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের টিকা প্রদানের ব্যবস্থা করায় এ সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, টিকাদান কেন্দ্রে রবিবার (৯ জানুয়ারি) সকাল থেকে উপজেলার মাহমুদাবাদ রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু উচ্চ বিদ্যালয়, রামনগর উচ্চ বিদ্যালয়, পিরিজকান্দি উচ্চ বিদ্যালয় ও দৌলতকান্দি মহিউদ্দিন ভূইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা টিকা নেওয়ার জন্য কেন্দ্রে আসে। প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের উপচেপড়া ভিড় সামলাতে চরম হিমশিম খেতে হয়েছে কর্তৃপক্ষকে। সকাল ১০টায় উপজেলা বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুলকেন্দ্রে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়। এর ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই ভ্যাকসিন নিতে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের প্রচণ্ড ভিড় জমে।

এ সময় লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কিসহ হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। সেখানে গাদাগাদি করে শিক্ষার্থীরা দীর্ঘসময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকে। কক্ষ ছোট হওয়ায় বাইরে প্রচণ্ড ধাক্কাধাক্কি শুরু হলে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। বিশৃঙ্খল অবস্থায় বুথে একসাথে অনেকে প্রবেশের ফলে সেবাদাতা ও শিক্ষকরা টিকাদানকক্ষে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। এতে ওই সময় টিকাদান কার্যক্রম এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করলে পুনরায় কার্যক্রম শুরু হয়।

এছাড়া দুপুরে মাহমুদাবাদ রাজিউদ্দিন আহামেদ রাজু উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে তাকে নিকটস্থ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে টিকা না দিয়েই বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়া হয়। বিকালে টিকা নিতে না পেরে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীর মধ্যে হট্টগোল শুরু হয়। এ সময় বহিরাগত ও স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কয়েক দফায় হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজগর হোসেন ও মাধ্যমিক কর্মকর্তা মো. সামালমগীর আলম উপস্থিত হলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের ফাইজারের টিকা দেওয়া শুরু হয়। মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়। প্রায় ২৪ হাজার শিক্ষার্থীকে টিকার আওতায় আনার লক্ষ্য রয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের।

টিকা নিতে আসা শিক্ষার্থী তাসফিয়া তারান্নুম বলে, সকাল থেকে অনেকক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকা নিয়েছি।

কৌহিনুর বেগম নামে একজন অভিভাবক বলেন, বুথ ও স্বাস্থ্যকর্মীর সংখ্যা বাড়ালে এত ভিড় হতো না। আজকের এই ভোগান্তি ও হট্টগোলের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব অবহেলাকে দায়ী করেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষক টিকাদান কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীদের গাদাগাদি ও হট্টগোল দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, স্বাস্থ্য সুরক্ষার টিকা নিতে এসে শিক্ষার্থীরা নতুন করে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ছেন নাতো?

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট মোছা. শেলী আক্তার সাংবাদিকদের বলেন, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকার জন্য সিভিল সার্জন অফিস থেকে প্রায় ২ হাজার ৪শ ডোজের চাহিদা পাওয়া গেছে। আজ প্রথম দিনে তিনটি বুথে ২ হাজার ৩০৮ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। ১২ দিনের মধ্যে শেষ করার কথা থাকলেও জনবল সংকটের কারণে সময় কিছুটা বেশি লাগতে পারে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সামালমগীর আলম সাংবাদিকদের বলেন, এ রকম পরিস্থিতি যেন আর না হয় সে জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের সতর্ক করে দিয়েছি এবং শিক্ষার্থীরা যাতে শৃঙ্খলা বজায় রাখে সে জন্য নিজ নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নজর রাখতে বলেছি।

আরও পড়ুন : জামানত হারালেন নৌকার তিন মাঝি

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজগর হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, সোমবার থেকে রায়পুরা সরকারি কলেজে দুইটি বুথের মাধ্যমে টিকা প্রদান করা হবে। পাশাপাশি বিশৃঙ্খলা রোধে নিরাপত্তার ব্যবস্থা জোরদার করা হবে।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড