• বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বাঁশখালীতে এবারও শিমের বাম্পার ফলন

  শিব্বির আহমদ রানা, বাঁশখালী (চট্টগ্রাম)

১৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৩৪
শিমের চাষ
শিমের চাষ (ছবি : অধিকার)

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে এবারও শিমের বাম্পার ফলন হয়েছে। গত কয়েক বছর ধরে বাঁশখালীর বিভিন্ন এলাকায় শিমের আবাদ হচ্ছে ব্যাপকভাবে। শীতকালীন শিমের পাশাপাশি আগাম চাষাবাদ হওয়ায় শিমের কদর দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর তাই কৃষকদের শিম চাষে আগ্রহ বাড়ছে বলে জানা গেছে।

ভৌগলিক কারণে বাঁশখালীর অবাদী জমিসহ পাহাড়ি এলাকা চাষাবাদের উপযোগী থাকায় বিভিন্ন সবজির চাষবাদ হয় এখানে। এবার উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় শিমের চাষ করা হয়েছে। খালি জমি, রাস্তার আশেপাশে এমনকি পাহাড়েও শিমের আবাদ করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, বাঁশখালীতে এবার ৩০০ হেক্টর জমিতে দেশীয় ও ফরাস জাতীয় শিমের চাষ হয়েছে। বাঁশখালী শিম চাষের উর্বর জমি হওয়ায় চাষিদেরকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে চাষাবাদে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে বলেও জানায় কৃষি অফিস। আগাম শিম চাষাবাদে কৃষকরা প্রচুর লাভবান হচ্ছে। শীতকালীন শিম বাজারে আসায় ভোক্তাদের মধ্যে বেশ চাহিদা রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বিভিন্ন উঁচু এলাকায় শিমের চাষাবাদ হয়ে থাকে। উপজেলার পুঁইছড়ি, নাপোড়া, চাম্বলের পাহাড়ি জমি, শিলকুপের পাহাড়ি ও আবাদী জমি, জঙ্গল জলদী, পুকুরিয়া, সাধনপুর, কালীপুর, বৈলছড়ি, সরল, খানখানাবাদ ও গন্ডামারা এলাকায় প্রচুর পরিমাণ শিম উৎপাদন হয়েছে। প্রতিদিন চাষিরা খেত থেকে শিমগুলো তুলে এনে বিভিন্ন স্থানীয় বাজারে পাইকারি দরে বিক্রি করছেন। উপজেলার শিলকুপ, পুঁইছড়ি, জঙ্গল চাম্বল, জঙ্গল জলদী, কালীপুর এলাকায় এই শিমের আবাদ হয়েছে প্রচুর। দেশের বিভিন্ন এলাকার পাইকাররা তাই এখানকার হাট-বাজারগুলোতে ভিড় করছেন।

এছাড়া বাঁশখালীতে এবার ৩৫০ হেক্টর জমিতে টমেটো, যা সরল, গন্ডামারা, বৈলছড়ি, চাম্বল, পুইছড়ি ও শীলকূপে বেশিরভাগ হয়ে থাকে। ৭৫ হেক্টর জমিতে বাঁধাকপি, ৪৪০ হেক্টর জমিতে বেগুন, যা শীলকূপ, সাধনপুর, সরল, বৈলছড়ি, চাম্বল, পুঁইছড়িতে বেশি উৎপাদন হয়। ৭০ হেক্টর জমিতে ফুলকপি, ৪৬০ হেক্টর জমিতে মূলা, ৫ হেক্টর জমিতে বাটি শাক, ৫০ হেক্টর জমিতে লাল শাক, ১০০ হেক্টর জমিতে বরবটি, ৩৫০ হেক্টর জমিতে দেশি শিম, ৩০০ হেক্টর জমিতে লাউ এবং ১২০ হেক্টর জমিতে করলা, ১৪০ হেক্টর জমিতে মিষ্টি কুমড়া মিলে শীতকালীন সবজি, মসলা ফসলসহ মোট ২৮০০ হেক্টর জমিতে শীতকালীন সবজির আবাদ হয়েছে বলে জানান উপজেলা কৃষি অফিস।

শিলকুপের পূর্ব-মনকিচর এলাকার কৃষক মু. মোজাম্মেল হক হোছেন জানান, আমি দেড় কানির মতো শিমের চাষ করেছি। আমার খেতে এবার প্রচুর পরিমাণ শিম উৎপাদন হয়েছে। আমরা পাইকারিভাবে প্রতি কেজি ৫০-৬০ টাকা বিক্রি করলেও ব্যবসায়ীরা তা আরও চড়া দামে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করে। আমরা পাইকারিভাবে বিক্রি করতে গিয়ে সেই দাম পাই না। অথচ হাতবদলের পর নানাভাবে দাম বাড়তে থাকে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবু ছালেহ বলেন, এবার বাঁশখালীতে প্রচুর পরিমাণ শীতকালীন সবজি উৎপাদিত হয়েছে। স্থানীয় হাট-বাজারগুলোতে সবজির যথেষ্ট মজুদ রয়েছে। সাধারণ চাষিরা আগাম সবজির চাষ করে সন্তোষজনক দাম পেয়ে খুশি।

আরও পড়ুন : চট্টগ্রামে করোনা শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৩৫ শতাংশ

তিনি আরও বলেন, চট্টগ্রামের অধিকাংশ সবজির চাহিদা যোগান দেয় বাঁশখালী উপজেলা। বাঁশখালী থেকে প্রতিদিন শতাধিক ট্রাকবোঝাই সবজি শহরের বিভিন্ন বাজারগুলোতে যায়। দেশের বিভিন্ন জায়গায় শিমের ব্যাপক চাহিদা থাকায় বাঁশখালীর কৃষকদের শিমের আবাদের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড