• শনিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নির্বাচনি দায়িত্ব দিতে ফের আনসারদের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহণ

  তন্ময় কুমার সাহা, রায়পুরা (নরসিংদী)

০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৪:০৮
ছবি : অধিকার

নরসিংদীর রায়পুরায় ইউপি নির্বাচনে আনসার ভিডিপি সদস্য নিয়োগে আবারও ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ উঠেছে উপজেলা আনসার বিডিপি কর্মকর্তা রওশন আরা বেগম ও সহকারী আনসার কর্মকর্তা আজিমুর শানের বিরুদ্ধে।

এরআগে দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনেও একই অভিযোগ উঠেছিল। সে সময় বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রচারিত হয়। কিন্তু তাতেও থেমে থাকেনি তাদের ঘুষ বাণিজ্য। টাকার বিনিময়ে নির্বাচনি নিয়োগে অংশ নিতে হয়েছে আনসার বাহিনীর সদস্যদের। যদিও এ ব্যাপারে উপজেলা আনসার বিডিপি কর্মকর্তা রওশন আরা বেগম কিছুই জানে না বলে দাবি করছেন।

রায়পুরা উপজেলা আনসার বিডিপি অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে তৃতীয় ধাপে ১২ টি ইউনিয়নের নির্বাচনে ১১১ টি সেন্টারে সর্বমোট ১৮৮৭ জন আনসার ও বিডিপি সদস্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে ২২২ জন আনসার ও ১৬৬৫ জন ভিডিপি সদস্য নিয়োগ দেওয়া হয়।

প্রতি সেন্টারে পিসি এপসি ২ জন এবং মহিলা ৭ জন ও পুরুষ ৮ জনসহ সর্বমোট ১৭ জন দায়িত্ব পালন করেছে। ৩/৪ দিন নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করে প্রতিজন আনসার ভিডিপি সদস্য পাবেন তিন হাজার থেকে তিন হাজার তিনশত টাকা। আর এ পরিমাণ ভাতা পেতে তাদের গুনতে হচ্ছে উৎকোচ।

সরজমিন ঘুরে জানা গেছে, নির্বাচনি ৪-৫দিনের জন্য দায়িত্ব পালনে নিয়োগ পেতে কর্মকর্তাদের ঘুষ দিতে হয় ৮শ থেকে ১৫শ টাকা এমন অভিযোগ আনসার ভিডিপি সদস্যদের। যা শুধু নির্বাচনই নয় বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্যেও দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন ডিউটি দেওয়ার নামেই আনসার সদস্যদের কাছ থেকে এরকম ভাবে ঘুষ নেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তারা। যা অনেকটা শুনেও না শোনার মতো রয়েছে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ।

নির্বাচনি পরবর্তী সময়ে সাংবাদিকদের কাছে আশা কিছু সংখ্যক ভিডিয়ো ফুটেজে দেখা গেছে, তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনের আগের দিন অর্থাৎ চলতি বছরের (২৮ নভেম্বর) সোমবার আনসারদের ইউনিয়ন দলপতি ও দলনেত্রীদের কাছ থেকে দল প্রতি ১০-১২ হাজার টাকা নেওয়া হয়। উপজেলা আনসার বিডিপি কর্মকর্তা রওশন আরা বেগমের নির্দেশে তারই সহকারী আনসার বিডিপি কর্মকর্তা আজিমুর শানের নিকট টাকা দেওয়ার কথা স্বীকার করে কয়েকজন আনসার সদস্য।

এ সময় অফিসারের চাহিদা অনুযায়ী টাকা দেওয়ার পরও নির্বাচনি ডিউটিতে দলনেতা-দলনেত্রীদের দলের নাম না থাকায় ভুক্তভোগীরা দুই ঘুষখোর কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উপজেলা প্রাঙ্গণে মাইকে টাকা নেওয়ার বিষয়টি জানান।

আলাউদ্দিন ও জয়নাল নামে দুই আনসার সদস্য জানান, নির্বাচনি ডিউটি পাওয়ার জন্য আদিয়াবাদ ইউনিয়নের দলনেত্রী লিলি বেগমের কাছে ১১’শ টাকা করে প্রত্যেকে জমা দিয়েছন। টাকা দিয়েও তাদের মধ্যে অনেকেই ডিউটি পাননি।

নিলক্ষ্যা ইউনিয়নের দলনেত্রী সালমা বেগম জানান, নির্বাচনি ডিউটিতে আমার সাতটি গ্রুপ দেওয়ার কথা ছিল। আনসার বিডিপি কর্মকর্তা রওশন আরা বেগম প্রতি গ্রুপের জন্য ১২ হাজার করে টাকা সহকারী আনসার বিডিপি কর্মকর্তা আজিমুর শানের কাছে জমা দিতে বলেন। টাকা দেওয়ার পরেও আমি দল পায়নি।

বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজগর হোসেনের বলেন,অভিযোগটির যাচাই করে দেখা হবে। যদি অভিযোগের সত্যতা মেলে তাহলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবো।

এ ব্যাপারে সহকারী আনসার বিডিপি কর্মকর্তা আজিমুর শানের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঘুষ গ্রহণের বিষয়ে আমি কিছু বলতে চাই না। আমার যে সিনিয়র আছে আপনি তার সাথে কথা বলুন।

ঘুষ দেওয়ার পর আজিমুর শানের ব্যক্তিগত হোয়াটস্অ্যাপ নাম্বারে কর্মীদের টাকা দেওয়ার কনফার্ম মেসেজের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আপনার সাথে সরাসরি কথা হবে বলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এ ব্যাপারে আনসার বিডিপি নরসিংদী জেলা কমান্ড্যান্ট তানজিনা বিন্তে এরশাদ সাংবাদিকদের বলেন, আমি ঘুষ গ্রহণের বিষয়টি শুনেছি। অভিযোগের সত্যতা যাচাই করা হয়নি। এ ব্যাপারে আমি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করব।

ওডি/এমএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড