• শনিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শেরপু‌রে গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণ

  শা‌কিল মুরাদ, শেরপুর

০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৩:২৩
শেরপুর
ছবি : প্রতীকী

শেরপুরের শ্রীবরদীতে এক গৃহবধূকে (২০) দল‌বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- উপজেলার লঙ্গরপাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে মো. কামরুজ্জামান (২৩) ও দুদু মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৭) এবং জামালপুরের দেউরপাড়া গ্রামের আব্দুল সেকের ছেলে আয়নাল হক (৫০)। আয়নাল হক উপজেলার লঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শ্রীবরদী থানায় মামলা করেছেন। পরে শ্রীবরদী থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করেন। সোমবার (২৯ নভেম্বর) রাতে উপজেলার লঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবনে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন আগে ওই গৃহবধূ উপজেলার উত্তর খড়িয়া গ্রামের বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। কিছুদিন আগে গ্রেফতার কামরুজ্জামান গৃহবধূর কাছ থেকে ১ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলেন। সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূ কামরুজ্জামানের কাছে তার পাওনা টাকা চান। এরপর ওইদিন সন্ধ্যায় টাকা দেওয়ার কথা বলে কামরুজ্জামান ও তার সহযোগী শফিকুল ইসলাম গৃহবধূকে লঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে গেলে নৈশ প্রহরী আয়নাল হক বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক খুলে দেন এবং ওই দুই যুবকের পরামর্শ অনুযায়ী গৃহবধূকে বিদ্যালয়ের চারতলা ভবনের একটি কক্ষে নিয়ে আটকে রাখেন। পরে সোমবার রাত দশটার দিকে কামরুজ্জামান, শফিকুল ও নৈশ প্রহরী আয়নাল জোরপূর্বক ওই গৃহবধূকে গণধর্ষণ করেন।

এক পর্যায়ে তারা ধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেন এবং এ ঘটনার কথা কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেন। পরে ভুক্তভোগী তার বাবার বাড়িতে চলে আসেন এবং অভিভাবকদের কাছে ধর্ষণের ঘটনাটি জানান। প‌রে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে গ্রেফতার তিনজনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো এক-দুইজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শ্রীবরদী থানায় মামলা করেছেন। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে ধর্ষণ ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুন : দিনাজপুরে যুবকের রগকাটা মরদেহ উদ্ধার

শ্রীবরদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল হাশিম বলেন, ভিক‌টিম‌কে ডাক্তারী পরীক্ষা করানোর জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওডি/এফই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড