• সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মাদরাসা সুপার ও সভাপতির বিরুদ্ধে জালিয়াতির মামলা

  মো. রুম্মান হাওলাদার, পিরোজপুর

২৪ নভেম্বর ২০২১, ১৮:৩৮
দেবত্র এনএস দাখিল মাদরাসা
মঠবাড়িয়া উপজেলায় মধ্য দেবত্র এনএস দাখিল মাদরাসা। (ছবি: সংগৃহীত)

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় মধ্য দেবত্র এনএস দাখিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার মো. এনামুল হক (৫২) ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. ইলিয়াস খানের (৫৫) বিরুদ্ধে জালিয়াতির মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মধ্য দেবত্র এনএস দাখিল মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটির বিদ্যোৎসাহী সদস্য মো. মনিরুজ্জামান (৬০) বাদী হয়ে ১৬ নভেম্বর মঠবাড়িয়া বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিরোজপুর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য আদেশ দেন।

মামলার বাদী মনিরুজ্জামান মধ্য দেবত্র গ্রামের মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সামছুল আলম মোক্তারের ছেলে। এর আগে তিনি ওই মাদরাসার সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। বর্তমানে তিনি বিদ্যোৎসাহী সদস্য।

মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপারকে ১ নং আসামি, সভাপতিকে ২ নং আসামি এবং মো. এমাদুল হক নামে একজন অভিভাবক সদস্যকে ৩নং আসামি করা হয়েছে। ৩ নং আসামি এমাদুল হক দেবত্র গ্রামের মৃত নুরুল ইসলাম খানের ছেলে।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ম্যানেজিং কমিটির বিদ্যোৎসাহী সদস্য মো. মনিরুজ্জামান, দাতা সদস্য মো. জিয়াউল হক ফারুকী, শিক্ষক প্রতিনিধি সদস্য মো. নূরুল ইসলাম ও অভিভাবক সদস্য মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের স্বাক্ষর জাল করে একাধিক রেজুলেশন করে। আসামিরা ম্যানেজিং কমিটির উক্ত সদস্যদের স্বাক্ষর জাল করে সিদ্ধান্তের পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যদের উপস্থিতি দেখায়। জাল স্বাক্ষরের মাধ্যমে রেজুলেশন তৈরি করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে জেনুইন স্বাক্ষর হিসেবে আসামিরা প্রেরণ করেন। এরপর নবসৃষ্ট তিনটি পদে একজন করে আয়া, নিরাপত্তা কর্মী ও সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন।

আসামিরা পছন্দের প্রার্থীদের নিকট থেকে কোরাম অনুযায়ী আবেদন নিয়ে ৩টি পদে ২৫ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে গোপনে নিয়োগ প্রদান করে। নিয়োগপ্রাপ্তদের ম্যানেজিং কমিটির বৈধ কোন অনুমোদন নেই। জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে ম্যানেজিং কমিটির একাংশের স্বাক্ষর জাল করে নিয়োগ প্রক্রিয়া সহ মাদরাসার অফিস কার্যক্রম পরিচালনা করেন আসামিরা।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন কর্তৃক অনুসন্ধানে ওই মাদরাসার রেজুলেশনের মূল কপি সংগ্রহ করে হস্তরেখা বিশারদ ও টেকনিক্যাল প্রক্রিয়া ব্যবহার করে তুলনামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বিজ্ঞ আদালতে বাদী মামলাটি দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে মধ্য দেবত্র এনএস দাখিল মাদরাসার সভাপতি মো. ইলিয়াস খান জানান, মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটি কর্তৃক সদস্যদের স্বাক্ষর জাল করে নিয়োগ প্রক্রিয়ার রেজুলেশন তৈরি করার বিষয়টি আমার জানা নেই।

আরও পড়ুন : অন্তকোন্দলে বকুলনেছা মহিলা ডিগ্রী কলেজের অচলাবস্থা

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাহাত খান জানান, ওই মাদরাসাটির বর্তমান সংকটাপন্ন পরিস্থিতির জন্য অবসরপ্রাপ্ত সুপার জিয়াউল হক ফারুকী, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সুপার এনামুল হক ও বর্তমান ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইলিয়াস খান দায়ী। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া।

ওডি/জেআই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড