• বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাঙামাটি সর্বত্র বিহারগুলোতে চলছে কঠিন চীবর দানোৎসব

  এম.কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি

২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২৪
রাঙামাটি সর্বত্র বিহারগুলোতে চলছে কঠিন চীবর দানোৎসব
চীবর দান উদযাপিত। ছবি : অধিকার

গৌতম বুদ্ধের প্রধান সেবিকা মহা পুণ্যবতী বিশাখা কর্তৃক প্রবর্তিত কঠিন চীবরদানোৎসবকে ঘিরে ধর্মীয় নানা আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বরকল উপজেলার সুবলং ইউনিয়নের বরুণাছড়ি সার্বজনীন বনবিহারে নবম তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান উদযাপিত হয়।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) শুরু হয়ে বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুইদিন ব্যাপী ধর্মীয় কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কর্মসূচির মধ্য বুদ্ধপুজা, বুদ্ধমূর্তিদান, সংঘদান, অষ্টপরিষ্কার দান, কঠিন চীবর দান, পঞ্চশীল প্রার্থনা, সূত্রপাঠ, ধর্মীয় দেশনা, কল্পতরু প্রদক্ষিণ ও ফানুস বাতি উৎসর্গসহ নানাবিধ দান উল্লেখযোগ্য।

দানোৎসবকে ঘিরে রাঙামাটি রাজবন বিহারে দূর-দূরান্ত থেকে হাজারো পুণ্যার্থীর ঢল নামে। বিশ্বের সকল প্রাণীর হিতসুখ ও মঙ্গল কামনায় এবং মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে পরিত্রাণের জন্য ভাবনা (নীরবতা) করেন পুণ্যার্থীরা। স্মরণ করা হয় মহাসাধক সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তেকে। ভগবান বুদ্ধের জয়ধ্বনিতে হাজার পুণ্যার্থীদের ভক্তি ও শ্রদ্ধায় মুখর হয়ে উঠে পুরো বিহার প্রাঙ্গণ।

দুপুরে কল্পতরু ও কঠিন চীবরকে পুরো বিহার এলাকা প্রদক্ষিণ করে আনন্দ শোভাযাত্রা করা হয়।

পরে উদ্বোধনী ধর্মীয় সঙ্গীত পরিবেশনার মধ্যদিয়ে শুরু হয় কঠিন চীবর দানোৎসব। অনুষ্ঠান পরিচালনায় পঞ্চশীল পাঠ করেন সহকারী শিক্ষক সুজন চাকমা।

এ সময় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন- যমচুগ বনাশ্রম ভাবনা কেন্দ্রের পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রূপক চাকমা,আরও বক্তব্য রাখেন, ১ নং সুবলং ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিহারী রঞ্জন চাকমা পবিত্র চাকমা ও বিহারী চাকমা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জ্ঞান রঞ্জন চাকমা ও প্রতিচার্য্য চাকমা।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্য উপস্থিত ছিলেন- ধর্মীয় বনভান্তের অমৃতময় বাণীর উদ্ধৃতি দিয়ে পুণ্যার্থীদের মাঝে ধর্মদেশনা দেন, বৌদ্ধরত উপাধিপ্রাপ্ত, মহাসাধক বনভান্তে’র প্রধান শিষ্য ভদন্ত শ্রীমৎ নন্দপাল মহাস্থবির। অন্যান্য ভিক্ষুদের মধ্য ধর্মদেশনা দেন, ধুতাঙ্গটিলা বনবিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ দেবধাম্মা মহাস্থবির। এ সময় অন্যান্য সিনিয়র ভিক্ষুর মধ্যে দীঘিনালা বনবিহারের আবাসিক সিনিয়র ভিক্ষু ভদন্ত শ্রীমৎ শুভবর্ধন মহাস্থবির। বরুণাছড়ি সার্বজনীন বনবিহারের বিহার অধ্যক্ষ কুলজ্যোতি ভিক্ষুসহ অন্যান্য প্রমুখ ভিক্ষু উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন : কুষ্টিয়ায় ৯ আওয়ামী লীগ নেতাকে বহিষ্কার

স্বধর্ম ধর্মীয় সভায় ভদন্ত শ্রীমৎ নন্দপাল মহাস্থবির বলেন, মানব জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ধর্ম রক্ষার্থে বিহারের যেমন গুরুত্ব রয়েছে তেমনি ধর্ম প্রচারে বিহারে ভিক্ষুরও প্রয়োজন আছে। তেমনি বিহার পরিচালনা করার জন্য পুণ্যার্থীদেরও প্রয়োজন আছে। সবকিছু একে-অপরের পরিপূরক। সেক্ষেত্রেও পারিবারিক জীবনে পঞ্চশীলের গুরুত্ব অপরিসীম। শীলের পাশা-পাশি দান, শীল-ভাবনা (ধ্যান) করতে হবে। ভাবনার মাধ্যমে জ্ঞান অর্জন করতে হবে।

ওডি/এসএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড