• বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অর্ধ বছর ধরে বিকল পানির পাম্প, ভোগান্তি চরমে

  কাজী শাহরিয়ার রুবেল, আমতলী (বরগুনা)

১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৪:২৫
আমতলী উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ট্রমা সেন্টার (ছবি : অধিকার)

বরগুনার আমতলী উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ট্রমা সেন্টারের পানি সরবরাহের প্রধান পাম্পটি অর্ধ বছর ধরে বিকল। ধারণা করা হচ্ছে, পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিনিয়ত অন্য স্থান থেকে পানি সরবরাহ করে খুব কষ্ট করে জরুরি কাজ করা হচ্ছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন রোগী, চিকিৎসক, নার্স ও আবাসিক ভবনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

অপরদিকে কোভিড-১৯ সুরক্ষায় উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ভ্যাকসিন নিতে আসছে। পানি স্বল্পতায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে চিকিৎসেবা সেবা নিতে আসা রোগীদের। পানি সংকটে বাথরুম এবং টয়লেট ব্যবহার করতে পারছেন না বলে অভিযোগ একাধিক ভুক্তভোগীর।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, পানি সরবরাহের প্রধান পাম্পটি গত এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে বিকল। এতে বেশ কিছুদিন হাসপাতালের পানি সরবরাহ বন্ধ থাকে। পরবর্তীতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রশাসক ডা. আবদুল মুনয়েম সাদ নিজ উদ্যোগে হাসপাতাল মসজিদের গভীর নলকূপ থেকে বিকল্প সংযোগ স্থাপন করে স্বল্প পরিসরে পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করে দেন। যা ভর্তিকৃত রোগী, রোগীদের স্বজন ও শৌচাগার ব্যবহারের তুলনায় নগণ্য।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, পানি স্বল্পতায় হাসপাতালের বাথরুম ও টয়লেটগুলোতে দুর্গন্ধ। বাতাসে তা ছড়িয়ে যাচ্ছে ভর্তি থাকা রোগীদের ওয়ার্ডে। অপরদিকে হাসপাতালের ৪টি আবাসিক কোয়ার্টারে থাকা চিকিৎসক, নার্সসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে। পর্যাপ্ত পানির অভাবে তারা তাদের নিত্য প্রয়োজনীয় ও সাংসারিক কাজকর্ম করতে পারছেন না।

হাসপাতালে ভর্তি হলদিয়ার রোগী নাজমা বেগম বলেন, পানির অভাবে হাসপাতালের টয়লেট ও বাথরুমগুলো ব্যবহার করা যাচ্ছে না। ঠিকমত গোসল, কাপড়-চোপড় ধোয়া যায় না। তাছাড়া টয়লেট করতে ভোগান্তির যেন শেষ নেই।

করোনায় টিকা নিতে আসা মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, লাইনে দাঁড়িয়ে সময় সাপেক্ষে টিকা নিতে হচ্ছে। অনেক সময় টয়লেট ও বাথরুমে যাওয়ার প্রয়োজন হয়। পানি নেই, তাই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। সব থেকে বেশি সমস্যা হয় নারীদের।

কথা হয় হাসপাতালের কোয়ার্টারে বসবাসরত নার্স রেবা রাণীর সাথে। তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতালের পানির পাম্পটি অকেজো। এখন পর্যাপ্ত পানি সরবরাহ নেই। বিকল্প পন্থায় যে পানি সরবরাহ করা হয় তা দিয়ে আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় ও সাংসারিক কাজকর্ম করা সম্ভব হচ্ছে না। বাহির থেকে বালতি দিয়ে পানি এনে কাজকর্ম করতে হচ্ছে।

স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের (পটুয়াখালী) উপ-সহকারী প্রকৌশলী দেবব্রত হালদার মুঠোফোনে বলেন, আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থাপিত পাম্পের পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় পুরনো পাম্প দিয়ে আর পানি উঠছে না। হাসপাতালে পানির সমস্যা স্থায়ীভাবে সমাধানের জন্য ওখানে একটি নতুন পাম্প স্থাপন করতে হবে।

এ বিষয়ে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবদুল মুনয়েম সাদ জানান, ৬ মাস ধরে পানির পাম্পটি বিকল। এতে হাসপাতালে পানি সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। হাসপাতাল মসজিদের নলকূল থেকে বিকল্প সংযোগ দিয়ে স্বল্প আকারে পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করেছি। পানি সরবরাহের বিকল্প ব্যবস্থা কখন বন্ধ হয়ে যায় তা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন : পটুয়াখালীতে কলেজছাত্রকে জোর করে বিয়ে, তরুণীর বিরুদ্ধে মামলা

বরগুনা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মারিয়া হাসান মুঠোফোনে বলেন, বিষয়টি স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরকে জানানো হয়েছে। আশা করি দ্রুত তারা এ সমস্যাটির সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ নেবেন।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড