• মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পলাশবাড়ীর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পানি আর ঘাস

  রফিকুল ইসলাম রফিক, গাইবান্ধা

১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:২৬
পলাশবাড়ীর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পানি আর ঘাস
বিদ্যালয়ের মাঠে পানি জমে আছে (ছবি : দৈনিক অধিকার)

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার দিগদারী ২ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পানি জমে আছে। জমানো পানির উপরে ভেসে আছে ঘাস। বিদ্যালয়ের মাঠে ছোট বড় গর্ত হয়েছে।

এতে পানি জমা হওয়ার কারণে নানা সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের পানি ও কাদা মাড়িয়ে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করতে হচ্ছে। স্কুল মাঠের এই অবস্থায় খেলা ধুলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয়টি ফসলি জমির পাশে স্কুলের পূর্ব সাইটে ধানের ক্ষেত, পশ্চিম সাইটে পুকুর। স্কুলের দরজা ঘেঁষে পানি জমানো মাঠ। আইল দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের। এখন স্কুল ছুটি হলে মাঠে পাড়ার শিশুরা জাল পেতে মাছ ধরা শুরু করে।

চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল জাবির বলেন, স্কুল মাঠে পানি আর ঘাস। স্কুলের কোনো রাস্তা নেই। আইল দিয়ে স্কুলে আসতে হচ্ছে। এতে প্রতিদিন কেউ না কেউ পড়ে যাচ্ছে। বই খাতা-কাপড় ভিজে যায়। খেলতে পারছি না। পানি সরানোর ব্যবস্থা করে স্কুল মাঠে মাটি ভরাট করা হলে ভালো হতো।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, ১৯৯৫ সালে উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের দিগদারি এলাকায় ৩৩ শতাংশ জমির ওপর স্থাপিত হয় দিগদারি ২ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি। তবে ২০১৩ সালে স্কুলটি জাতীয় করণ হয়।

তিন কক্ষ বিশিষ্ট স্কুলটির অধিকাংশ জমিতে বিভিন্ন ফসল চাষাবাদ করতেন তৎকালীন প্রধান শিক্ষক। পরে তিনি অন্য স্কুলে বদলি হয়ে চলে গেলে চাষাবাদ বন্ধ করে স্কুলের মাঠ হিসেবে ব্যবহার করছেন বর্তমান প্রধান শিক্ষক।

স্কুলটিতে শিশু শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ৮৫ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ও মাটি ভরাট না করায় প্রায় দুই বছর ধরে বর্ষাকালে স্কুল মাঠে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের খেলা-ধুলা বন্ধ হয়ে যায়। সম্প্রতি স্কুল মাঠে হাঁটু পর্যন্ত পানি উঠেছে।

প্রধান শিক্ষক মো.আবুল কাশেম বলেন, স্কুল মাঠে পানি জমে থাকায় শিশুরা খেলতে পারে না। ফলে তাদের শারীরিক বিকশিত হচ্ছে না। রাস্তা না থাকায় বিদ্যালয়ে আইল দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা কক্ষ ছাড়া কোথাও বের হতে পারে না।

স্কুল মাঠটি অন্য জমি থেকে নিচু হওয়ায় বর্ষাকালে সামান্য বৃষ্টি আসলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। স্কুল মাঠে মাটি ভরাট করা হলে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা এ পরিবেশ থেকে নিস্তার পারে। তাই তিনি এ সমস্যা সমাধানের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

আরও পড়ুন : ঝালকাঠিতে এক ঘণ্টার ডিসি কিশোরী জান্নাতুল

পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কামরুজ্জামান দৈনিক অধিকারকে জানান, বিষয়টি কেউ অবগত করেনি। এখন স্কুল মাঠের বিষয়টি জানলাম। সরকারি বরাদ্দের মাধ্যমে স্কুল মাঠে মাটি ভরাট করার ব্যবস্থা করা হবে।

ওডি/এসএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড