• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অবহেলায় তিস্তা ব্যারেজের কোটি টাকার গাড়ি ও যন্ত্রাংশ

  সুমন খান, লালমনিরহাট

১৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৯
রংপুর
অবহেলায় মূল্যবান যন্ত্রাংশ (ছবি : অধিকার)

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় অবস্থিত দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজ নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত যানবাহনসহ যন্ত্রাংশ নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পর ব্যারেজের কাজের জন্য চাহিদা না থাকায় আর ব্যবহার হচ্ছে না যন্ত্রাংশগুলো। খোলা আকাশের নিচে ব্যারেজের গোডাউনে অযত্ন আর অবহেলায় যুগ যুগ ধরে পরে আছে কয়েকশ কোটি টাকার মূল্যবান যন্ত্রাংশ।

(ছবি : অধিকার)

জানা গেছে, উত্তরাঞ্চলের লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার গড্ডিমারী ইউনিয়নের দোয়ানী নামক এলাকায় তিস্তা নদীর ওপর ৫৬টি জলকপাট দিয়ে নির্মিত ব্যারেজটি দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প। এ প্রকল্পে নীলফামারী, রংপুর ও দিনাজপুর ও কুড়িগ্রাম জেলার ৫ লাখ ৪০ হাজার হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা প্রদান করা হয়। ওই ব্যারেজের নির্মাণ কাজ ১৯৭৯ সালে শুরু হয়ে ১৯৯০ সালে শেষ হয়। সেচ প্রকল্প ও ব্যারেজটি রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনা করেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পানি উন্নয়ন বোর্ড।

(ছবি : অধিকার)

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তিস্তা নদীর ওপর নির্মিত ব্যারেজের কাজ শেষে দোয়ানী গোডাউনে খোলা আকাশের নিচে পড়ে আছে ট্রাক, বেকার, ওযাগন, ঢালাই মেশিনসহ কয়েকশ কোটি টাকা দামের দামী যানবাহন ও বিভিন্ন যন্ত্রাংশ। অযত্ন অবহেলায় আর এসব জিনিস দীর্ঘদিন ধরে পরে থাকায় ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

সূত্র মতে, পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ এসব দামী যানবাহন ও যন্ত্রাংশ মেরামতের উদ্দ্যোগ না নেওয়ায় ব্যবহার ও চলাচল যোগ্য যানবাহন, যন্ত্রাংশগুলো রোদ বৃষ্টি পুরে ভিজে নষ্ট হচ্ছে ও চুরি হয়ে যাচ্ছে এর যন্ত্রাংশ। অথচ এক সময়ের এসব সচল আধুনিক জিনিসগুলো বর্তমানে অচল হয়ে গেছে। শোনা যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ যেকোন সময় দামি যানবাহন ও বিভিন্ন যন্ত্রাংশ ব্যবহার অযোগ্য ঘোষণা করতে পারে। এদিকে গোডাউনে পরে থাকা জিনিসগুলো জং ধরে ব্যবহার অনুপযোগী হওয়ার কারণে মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে পড়েছে।