• মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শারিরীক শিক্ষকদের ইটিআইএফে অন্তর্ভুক্ত না করলে মামলার হুমকি 

  কাজী হুমায়ুন কবির, বিভাগীয় প্রধান, চট্টগ্রাম

১২ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩৭
দফহদফগদফ
ছবি : সংগৃহীত

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড ETIF পূরণের নোটিশে শরীর চর্চা শিক্ষকদের বাদ-সহকারি শিক্ষক (শারীরিক শিক্ষা) হিসেবে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নীতিমালা ২০১৮ সহ পুরাতন নীতিমালা অনুযায়ী একজন শারীরিক শিক্ষককে তার নির্ধারিত বিষয়ের পাশাপাশি আরো দুটি বিষয়ে নবম ও দশম শ্রেণিতে পাঠদান করে যাচ্ছেন।

সহকারী শিক্ষক/সিনিয়র শিক্ষক (শারীরিক শিক্ষা),এর শিক্ষাগত যোগ্যতা - বি এস সি ,বি পি এড /বি এ, বি পি এড/বি কম বি পি এড/বি এস এস ,বি পি এড অথবা স্নাতকোত্তর বি পি এড হয়, তাই তাহারা বিদ্যালয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

এছাড়াও সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় তাহারা নবম গ্রেড প্রাপ্তির পর প্রথম শ্রেণীর গ্রেজেটেড অফিসার পদোন্নতি পাচ্ছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন শারীরিক শিক্ষক দৈনিক অধিকারকে বলেন, চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড বিগত প্রায় ২/৩ বছর ধরে শারীরিক শিক্ষকদের নিয়ে বিমাতাসূলভ আচরণ করে আসছে । চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের এই ধরনের সিদ্ধান্ত শারীরিক শিক্ষা বিষয়ের শিক্ষকদের মানহানিকর ও বটে।

বিষয়টি নিয়ে শারীরিক শিক্ষকগণ সাবেক চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবরে স্মারকলিপি সহকারে স্বাক্ষাত করলে, তিনি ভবিষ্যতে সংশোধন করে দিবেন আশ্বস্ত করেছিলেন। উপরোক্ত লিখা থাকার পরও অনেক শারীরিক শিক্ষক বিভিন্ন বিষয়ে পরীক্ষক, প্রধান পরীক্ষক,নিরীক্ষক এর দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। কিন্ত কর্মের স্বিকৃতি বা ন্যায্য অধিকার তারা পাচ্ছেন না। জানা যায়, একজন শারীরিক শিক্ষক এর সাথে অন্য বিষয়ের শিক্ষকদের শিক্ষাগত যোগ্যতার পার্থক্য হলো বি এড ও বি পি এড নিয়ে। অথচ এই দুটি ও সমমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা যাহা স্নাতক/স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করার পর করতে হয় এবং বি এড / বি পি এড- এক বছর মেয়াদি একটি কোর্স মাত্র। উপরোক্ত বিষয়ে স্বাধীনতা শারীরিক শিক্ষাবিদ পরিষদ বাংলাদেশ এর সাধারণ সম্পাদক বিগত ০৬/১০/২০২১ইং তারিখে ২৯/০৯/২০২১ইং তারিখের ETIF নোটিশের ৫নং কলাম থেকে শরীর চর্চা শিক্ষক বাদ দিয়ে সংশোধন পূর্বক পুনরায় নোটিশ প্রচারের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন জানান। একই তারিখে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির সভাপতি ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক পার্থ সারথি চৌধুরীর নেতৃত্বে শারীরিক শিক্ষকগণ চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে সচিব,উপ-সচিব ও উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এর সাথে স্বাক্ষাত করে লিখিত আবেদন করেন।০৭/১০/২০২১ইং তারিখে অধ্যাপক পার্থ সারথি চৌধুরী , জনাব সৈয়দ মোহাম্মদ খালেদ এবং প্রধান শিক্ষক পরিষদ, চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক জনাব নূর মোহাম্মদ তালুকদার সহ চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এর সাথে উল্লেখিত বিষয়ে স্বাক্ষাত করলে,তাহারা অন্যান্য শিক্ষা বোর্ড এর খোঁজ খবর নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন আশ্বাস দেন। কিন্তু অন্যান্য সকল বোর্ড ETIF পূরণে শরীর চর্চা শিক্ষকদের বাদ দেয়নি বলে জানা গেছে।

স্বাধীনতা শারীরিক শিক্ষাবিদ পরিষদ বাংলাদেশ এর সভাপতি জনাব মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক জনাব সৈয়দ মোহাম্মদ খালেদ এক যুক্ত বিবৃতিতে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের ETIF পূরণে শরীর চর্চা শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্ত করতে পুনরায় নোটিশ প্রচারের জন্য চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কতৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানান অন্যথায় চট্টগ্রম শিক্ষাবোর্ড কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা দায়ের করা হবে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হইয়াছে।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নারায়ন চন্দ নাথ বলেন, শারীরিক শিক্ষকদের বক্তব্য আমরা শুনেছি। তারা যদি প্রধান শিক্ষকদের সাথে সমন্বয় করে কাজ করে তাহলেতো সমস্যা হবার কথা নয়। বিষয়টাতে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি । আমি চেয়ারম্যান মহোদয়ের সাথে কথা বলে বঞওঋ ব্যাপারে একটা সিদ্ধান্ত নিবো।

এই বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যপরিষদের সভাপতি ও মেরন সান স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ সানাউল্লাহ বলেন, শিক্ষকতো শিক্ষকই। সেখানে আবার বৈষম্য হবে কেন। শারিরীক শিক্ষা ও একটি শিক্ষা । চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের ETIF পুরনে শারিরীক শিক্ষকদের অবশ্যই অর্ন্তভুক্ত করা হোক। এই বিষয়ে বোর্ড কর্তৃক সার্কোলার দেয়া হোক।

স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির সভাপতি ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক পার্থ সারথি চৌধুরী দৈনিক অধিকারকে বলেন, আমরা শিক্ষকদের মাঝে কোনরুপ বৈষম্য চাইনা। শিক্ষকরা সমমর্যাদার। সবাই সহকারী শিক্ষক পদ মর্যাদায়। সেখানে শারিরীক শিক্ষার শিক্ষকরা কেন সমমর্যাদার হয়েও বৈষম্যর শিকার হবে। শারীরিক বিষয়ের শিক্ষকরা যে বিষয় পড়াবেন অবশ্যই তাদের সে বিষয়ে তাদের পরীক্ষকের মর্যাদা দিতে হবে। আমার জানা মতে, অন্য কোন বোর্ডে শারিরীক শিক্ষকদের নিয়ে এই ধরনের বৈষম্য নেই।

ওডি/এস এইচএস

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড