• মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাজাকারের ছেলে নৌকার চেয়ারম্যান হওয়ার অভিযোগ

  আরাফাত আলী, কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা)

০৭ অক্টোবর ২০২১, ১৫:০২
সাতক্ষীরা
ছবি : সংগৃহীত

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলায় রাজাকারের ছেলে নৌকার চেয়ারম্যান হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছেন। সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে উপজেলার ধলবাড়ি ইউনিয়নের মৃত খোরশেদ গাজী। এলাকাতে তাকে সবাই চিনতেন একজন রাজাকার হিসেবে। ১৯৭১ সালে তিনি ছিলেন পাকবাহিনীর প্রধান হাতিয়ার। যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি বহু মানুষের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ দিয়েছেন। এলাকার নিরীহ মানুষদের বাড়ি থেকে সব মালামাল ও লুটপাটের ও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে বলে জানান স্থানীয়রা।

সাবেক কালিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মৃত আলহাজ্ব শেখ ওহেদুজ্জামান খোরশেদ গাজীকে রাজাকার হিসেবে চিহ্নিত করেন। এমনকি তিনি বর্তমানে গ্রেজেট ভুক্ত রাজাকারের তালিকায় রয়েছে বলে জানান স্থানীয় প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা। তবে তার ছেলে আলহাজ্ব গাজী শওকত হোসেন নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে জয়লাভ করেন। কিন্তু চেয়ারম্যান শওকত হোসেন ও তার পরিবার আজীবন আওয়ামী লীগ সরকারের কট্টর বিরোধীতা করেছেন।

ধলবাড়ী ইউনিয়নের ৩ নাম্বার ওয়ার্ডের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক গনি মোড়ল ও স্থানীয় খোরশেদ আলম বলেন, চেয়ারম্যান শওকত হোসেনের পিতা ছিলেন এলাকার চিহ্নিত একজন রাজাকার। চেয়ারম্যান ছিলেন জামাতের একজন সক্রিয় নেতা ও অর্থ জোগান দাতা। কিন্তু স্থানীয় দলীয় রাজনৈতিক নেতাদের ম্যানেজ করে তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন। নৌকার চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পরেও আওয়ামী লীগের কোন সদস্য পদ নেই তার।

স্থানীয় দলীয় নেতাদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে বহু আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মেরে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। আজও পর্যন্ত রাজাকারের ছেলে চেয়ারম্যান ইউনিয়ন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কোনো দলীয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেননি। এমনকি কখনো দলীয় কার্যালয়ের ভিতরে প্রবেশ করতে দেখা যায়নি তাকে।

এছাড়া জাতীয় সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতীক এর বিরুদ্ধে তিনি সরাসরি অবস্থান নিয়ে ছিলেন বলে জানান উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা।

কালিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মো. আব্দুল হাকিম বলেন,ধলবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গাজী শওকত হোসেনের পিতা মৃত গাজী খোরশেদ আলম স্বাধীনতার বিপক্ষে কাজ করেছেন। তিনি তৎকালীন পাকিস্তানের পিস কমিটির সদস্য ছিলেন। সেই সময়ে তার নির্যাতনের শিকার হয়েছে অনেক নিরীহ পরিবার বলে জানান তিনি।

কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হোসেন ছোট জানান, ধলবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হোসেন উপজেলা, ইউনিয়ন এমনকি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কোন সদস্য পদে নেই।

ঘটনার সম্পর্কে জানতে চাইলে ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী শওকত হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে অধিকাংশ মিথ্যা। আমি আওয়ামী লীগের একজন সক্রিয় কর্মী। জামাত এমনকি বিএনপির সংগঠনের সাথে আমি জড়িত ছিলাম না। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আওয়ামী লীগের কোন অনুষ্ঠানে আমাকে জানানো হয় না। এজন্য আমি কোন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারি না। এছাড়া তার পিতা রাজাকার ছিলেন না বলে দাবি করেন তিনি।

আরও পড়ুন : কালিয়াকৈরে মেয়রের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা

এবিষয়ে সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি একে এম ফজলুল হক বলেন, গাজী শওকত হোসেনের পিতা রাজাকার ছিলেন এটা আমি শুনেছি। আমি গতবার জেলা সভাপতির দায়িত্বে ছিলাম না এজন্য সে কিভাবে নৌকা পেয়েছে এ বিষয়ে আমি অবগত নয়। তবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাননীয় প্রাধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী শওকত হোসেনের এবার নৌকা প্রতীক পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে জানান তিনি।

ওডি/এফই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড