• রোববার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শিক্ষার্থীদের বরণের মধ্য দিয়ে শ্রেণি পাঠদান শুরু

  শেখ শান্ত, খুলনা

১২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১৩
খুলনা
শিক্ষার্থীদের বরণ করছেন শিক্ষকরা (ছবি : দৈনিক অধিকার)

খুলনায় করোনা মহামারির প্রায় দেড়বছর পর ১৫৭৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় আবারও প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে এসব প্রতিষ্ঠান। স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে সরাসরি শ্রেণি পাঠদানে অংশ নেবে শিক্ষার্থীরা। এরই মধ্যে স্কুল ক্যাম্পাস পরিস্কারসহ ধুয়ে মুছে পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে শ্রেণিকক্ষ। দীর্ঘ সময় পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি পাঠদান শুরু করার লক্ষ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো প্রথম দিন উৎসব-আয়োজনের মাধ্যমে বরণ করবে শিক্ষার্থীদের।

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে খুলনার সরকারি ইকবাল নগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের প্রতিষ্ঠান সাজাতে ব্যস্ত সময় পার করতে দেখা গেছে। বিদ্যালয়ের মূল ফটকে কাগজের শাপলা ফুল, জরির মালা, বিভিন্ন রঙের বেলুন, রঙিন কাগজ দিয়ে সাজানো হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ ফারুকুল ইসলাম বলেন, দেড় বছর পর প্রথম দিন শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে আসবে সে কারণে শ্রেণিকক্ষসহ পুরো বিদ্যালয় বাড়তি করে সাজানো হচ্ছে। প্রথমদিন বিদ্যালয়ের প্রবেশ পথে শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করা হবে। শিক্ষকরা নিরলসভাবে কাজ করেছেন, অনেকটা উৎসব পালন করার আনন্দ নিয়ে।

প্রথম দিনের প্রস্তুতি সম্পর্কে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা কামরুন্নাহার শিরিন বলেন, আমরা সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়েছি স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব মানার ক্ষেত্রে। যেভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, তাতে কোনও সমস্যা হবে না। শিক্ষা কর্মকর্তা, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীসহ অভিভাবকদের সচেতন করতে বিভিন্ন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে বিদ্যালয়ে আনা নেওয়া এবং শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য অভিভাবকদের দায়িত্ব অনেক বেশি। নিশ্চয় তারা তা পালন করবেন।

জানা যায়, শ্রেণি কার্যক্রম শুরুর আগে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার্থীদের মানসিকভাবে প্রস্তুত করা ও কোভিড ১৯ সচেতনতা বিষয়ে শ্রেণি শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করবেন। প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের মানসিকভাবে প্রস্তুত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন শ্রেণি শিক্ষকরা। রুটিন নির্ধারিত থাকলেও প্রথম চারদিন শিক্ষার্থীদের প্রস্তুত করবেন শিক্ষকরা। এদিকে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জরাজীর্ন অবস্থার তৈরি হয়েছে। তবে নানা সংস্কারের মধ্যে দিয়ে দ্রুততম সময়ে শ্রেনিকক্ষ ব্যবহারের উপযোগী করা হচ্ছে। খুলনা জেলায় মোট ১১৫৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৪২০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে মহানগরীর আটটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (সপ্রাবি) আগে থেকেই বেহাল অবস্থায় ছিল।

দীর্ঘদিন পরিচর্যা, সংস্কারের অভাবে সেগুলো আরও খারাপ হওয়ায় পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- কাজী আব্দুল বারী সপ্রাবি, টিঅ্যান্ডটি সপ্রাবি, জহিরউদ্দিন গণবিদ্যাপীঠ সপ্রাবি হাউজিং (৩-তলা) সপ্রাবি, হাজি আব্দুল মালেক সপ্রাবি, শেরে-বাংলা সপ্রাবি, টুটপাড়া বয়েজ সপ্রাবি এবং কয়লাঘাটা সপ্রাবি। এ সকল বিদ্যালয়ের শ্রেণিকার্যক্রম পাশ্ববর্তী স্কুলে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া অতিবৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ডুমুরিয়া লতাবুনিয়া বাঁআশতলা সপ্রাবি এর কার্যক্রম পাশে বেড়িবাঁধের ওপর করতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন : তেঁতুলিয়ায় দেখা মিলছে কাঞ্চনজঙ্ঘার মোহনীয় দৃশ্য

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এএসএম সিরাজুদ্দোহা জানান, এরই মধ্যে সকল স্কুল ভবন ও শ্রেণি কক্ষ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সময়মতো পাঠদান শুরু করতে বলা হয়েছে। কোন ধরনের প্রতিবন্ধকতা থাকলেও পার্শ্ববর্তী স্কুলের সাথে সংযুক্ত করে পাঠদান চালু রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ওডি/এফই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড