• বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কৃষক বারেক গাজী হত্যামামলা পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ

  রুম্মান হাওলাদার, পিরোজপুর

০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২২
মৃত কৃষক বারেক গাজীর কবর (ছবি : দৈনিক অধিকার)

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় রহস্যজনকভাবে কৃষকের মৃত্যুর ঘটনায় হত্যামামলা হয়েছে। মৃত কৃষক বারেক গাজীর আপন ভাই আ. হালিম গাজী (৬৭) বাদী হয়ে ৬ সেপ্টেম্বর মঠবাড়িয়া বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। হত্যা মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট বাবুল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মৃত আ. বারেক গাজী উপজেলার ৯নং সাপলেজা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ভাইজোড়া গ্রামের মৃত শের আলী গাজীর পুত্র। মামলার একমাত্র আসামি মো. ইউনুস হাওলাদার (৫৫) মঠবাড়িয়া উপজেলার ভাইজোড়া গ্রামের মৃত ওয়াজেদ আলী হাওলাদারের পুত্র।

জানা গেছে, গত ২৯ আগস্ট সকাল ১১টার দিকে মৃত আব্দুল বারেক গাজী নিজ জমিতে ইরিধানের বীজ রোপন করে। ওইদিন বিকালে কে বা কারা মামলায় উল্লেখিত আসামি ইউনুস হাওলাদারের বীজ চুরি করে। এতে মামলার আসামি বাদীর আপন ভাই মৃত আব্দুল বারেক গাজীকে সন্দেহ করে। একপর্যায়ে বাড়িতে ডেকে নিয়ে বীজতলা থেকে ধানের বীজ নেওয়াকে কেন্দ্র করে মারধর করে। এতে ঘটনাস্থলেই বারেক গাজী মারা যায়।

আরও পড়ুন : ১৯৯০ সাল থেকে পত্রিকা বিলি করছেন আব্দুল আলিম

মামলার আসামি ইউনুস হাওলাদার বলেন, মৃত বারেক গাজীকে আমার বাড়িতে ডেকেছি এটা সত্য। তবে আমি তাকে মারধর করি নাই। বীজ নেওয়ার কথা বলতেই সে আমার কাছে ক্ষমা চেয়ে আমার পা জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করে। আমি পা ধরতে দেইনি। বলেছি, এই সামান্য বিষয়ে পা ধরতে হবে না। আমি তাকে পান খেতে দেই। এরপর সে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড