• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শখের বসে মাল্টা চাষে লাখপতি

  এস এম জুবাইদ, পেকুয়া (কক্সবাজার)

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৪২
মাল্টা চাষ
মাল্টা চাষী ইউনুস (ছবি : দৈনিক অধিকার)

৪০ শতক জমিতে মাত্র ১০৬টি গাছ নিয়ে শখের বসে মাল্টার চাষ শুরু করেছেন ইউনুস। তিন থেকে চার ফুট উচ্চতার একেকটি গাছে ঝুলছে ৫০ থেকে ৮০টি করে মাল্টা। গাঢ় সবুজ রঙের মাল্টাগুলোর কোনটিতে হলুদভাব এসেছে। ছিমছাম এবং পরিপাটি বাগানে ভাদ্র মাসের এক পশলা বৃষ্টি শেষে স্নিগ্ধতা ঝরছিল।

ফলবতী গাছে ঠাসা বাগানটির মালিক কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার টইটং ইউনিয়নের বটতলী মাদ্রাসাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ইউনুস আহমদ (৪৭)। আড়াই বছর আগে শখের বশে শুরু করা বাগানটি থেকেই এখন তার আয় হয় বেশি। এখন তার প্রধান আয়ের উৎস মাল্টা।

বাগান পরিচর্যার কাজের ফাঁকে মাল্টার চাষের গল্প শোনান ইউনুস আহমদ। তিনি বলেন, বাগানের জন্য আম চারা কিনতে সাতক্ষীরায় গিয়ে মাল্টার চারা নিয়ে বাড়ি ফিরেছিলেন তিনি। শৌখিন লোকজন তার কাছ থেকে এসব চারা কিনে লাগায়। তবে অন্য কারও বাগানেই টেকেনি চারা। শুরুর দিকে তিনিও ইউনিয়নের আব্দুল্লাহর ঝিরি এলাকায় দুই একর জমিতে মাল্টার ৪০০ চারা রোপণ করেন। কিন্তু সবকটি মারা যায়। তখন কিছুটা হতাশ হয়ে পড়েন।

সেই ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে টইটং ইউনিয়নের জুম পাড়া এলাকায় ৪০ শতক জমিতে ১০৬টি চারা রোপণ করেন। নিবিড় পরিচর্যার মাধ্যমে ১০০ চারা বড় হয়। চলতি মৌসুমে সব গাছেই ফলন এসেছে। ইতোমধ্যে দেড় লক্ষাধিক টাকার মাল্টা বিক্রি করেছেন তিনি।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোকাদ্দেস মোহাম্মদ রাসেল বলেন, ‘পেকুয়ায় ইউনুস আহমদ-ই একমাত্র বারি মাল্টা চাষি।’

আরও পড়ুন : নোয়াখালীতে জামায়াতের আমিরসহ গ্রেফতার ৩

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তপন কুমার রায় বলেন, ‘বারি মাল্টা বাংলাদেশে উদ্ভাবিত একপ্রকার সাইট্রাস জাতীয় ফল। দেশের বাজারে এটি অন্যতম জনপ্রিয়। পাহাড়ি ঢালু জমিতে মাল্টা চাষ ভাল হয়ে থাকে। প্রতিটি মাল্টা গাছ ১০-১২ বছর ফলন দেয়। এক মৌসুমে প্রতি গাছে ৮০-১০০ কেজি ফলন হয়। মাল্টা গাছ খুবই স্পর্শকাতর। সার-কীটনাশক দেওয়ায় তারতম্য হলে গাছের নানা সমস্যা দেখা দেয়। অনেক সময় মারা যায়। মাল্টা চাষে সফল হওয়া ইউনুস আহমদকে সহযোগিতা ও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।’

ওডি/এসএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড